সিমলা রেলওয়ে স্টেশন

সিমলা রেলওয়ে স্টেশন ভারতের হিমাচল প্রদেশের সিমলায় অবস্থিত একটি ছোট রেল স্টেশন। স্টেশনটি ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান কালকা―সিমলা রেলওয়ের টার্মিনাস। সিমলা রেলওয়ে স্টেশনটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২,০৭৫ মিটার (৬,৮০৮ ফু) উচ্চতায় অবস্থিত।[১] এটি আম্বালা রেল বিভাগের অধিভুক্ত এসএমএল-এর রেলওয়ে কোড বরাদ্দ করা হয়। ৬১০ মিমি (২ ফুট) চওড়া ন্যারো-গেজ কালকা-সিমলা রেলওয়ে দিল্লি-আম্বালা-কালকা রেলওয়ে কোম্পানি দ্বারা নির্মিত হয়েছিল এবং ১৯০৩ সালে যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছিল।[২]

সিমলা রেলওয়ে স্টেশন
ভারতীয় রেলওয়ে স্টেশন
Kalka shimla railway.jpg
গোধূলীতে সিমলা রেলওয়ে স্টেশন
অবস্থানজাতীয় মহাসড়ক ২২, নাভা, সিমলা, হিমাচল প্রদেশ
ভারত
স্থানাঙ্ক৩১°০৬′০৯″ উত্তর ৭৭°০৯′৩৬″ পূর্ব / ৩১.১০২৫° উত্তর ৭৭.১৬০১° পূর্ব / 31.1025; 77.1601
উচ্চতা২,০৭৫ মিটার (৬,৮০৮ ফু)
মালিকানাধীনভারতীয় রেলওয়ে
লাইনকালকা―সিমলা রেল
প্ল্যাটফর্ম
রেলপথ৪ (ন্যারো গেজ)
সংযোগসমূহঅটো স্ট্যান্ড
নির্মাণ
গঠনের ধরনআদর্শ (অন-গ্রাউন্ড স্টেশন)
পার্কিংনা
সাইকেলের সুবিধানা
অন্য তথ্য
অবস্থাকার্যরত
স্টেশন কোডএসএমএল (SML)
অঞ্চল নর্দার্ন রেলওয়ে
বিভাগ আম্বালা
ইতিহাস
চালু১৯০৩
বৈদ্যুতীকরণনা
অবস্থান
সিমলা রেলওয়ে স্টেশন ভারত-এ অবস্থিত
সিমলা রেলওয়ে স্টেশন
সিমলা রেলওয়ে স্টেশন
ভারতে অবস্থান
সিমলা রেলওয়ে স্টেশন হিমাচল প্রদেশ-এ অবস্থিত
সিমলা রেলওয়ে স্টেশন
সিমলা রেলওয়ে স্টেশন
ভারতে অবস্থান

ইতিহাসসম্পাদনা

 
সিমলা রেলস্টেশনের উপর থেকে সিমলার একাংশ।

স্টেশনটি ১৯০৩ সালে ব্যবহারের জন্য উন্মুক্ত করা হয়।[৩] মূলত, স্টেশন ভবনের দেয়ালগুলি কাঠ দিয়ে আর একটি ছাদ গ্যালভানাইজকৃত লোহার ছাদ দিয়ে তৈরি হয়। কিন্তু পরবর্তীতে ট্র্যাফিকবৃদ্ধির কারণে এটি পুনর্নির্মাণ করা হয়। ১৯২১ সালের পুনঃনির্মিত কাঠামোতে একটি নতুন দ্বিতল ইটের ম্যাসনারি (চুন মর্টারে প্লাস্টার করা) হিসেবে গড়ে তোলা হয়। এই ভবনে স্টেশন মাস্টারের অফিস, কর্মী এবং নিয়ন্ত্রণ অফিস, দুর্ঘটনা ত্রাণ ব্যবস্থা, ওয়েটিং রুম, টেলিগ্রাফ অফিস এবং আশ্রয়কেন্দ্রসহ বিভিন্ন কাজের জন্য ব্যবহার করা শুরু হয়।[১] ১৯৪৪ সালে প্রবল তুষারপাতের কারণে প্ল্যাটফর্মের ছাদ ধসে পড়ার পর স্টেশন ভবন ও প্ল্যাটফর্মের উপর একটি নতুন ছাদ নির্মিত হয়।[৩]

১৯৮৬-৮৭ সালে স্টেশনটিকে এন্ড-টু-এন্ড প্ল্যাটফর্ম শেল্টার হিসেবে পুনর্বিকশিত করে তোলা হয়। তখন প্ল্যাটফর্মটি পুনরায় তৈরি করা হয় এবং পর্যটন তথ্য অফিস, রেলওয়ে টেলিফোন এক্সচেঞ্জ, প্ল্যাটফর্ম টিকেটিং অফিস, রিজার্ভেশন অফিস এবং ১০টি নতুন রিটায়ারিং রুম (প্রতিটি বড় জানালাবিশিষ্ট, যা দিয়ে উপত্যকার দৃশ্য উপভোগ করা যায়) স্থাপন করা হয় এবং নিচতলায় একটি ওয়েটিং হল যুক্ত করা হয়।[১]

প্রধান ট্রেনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Kalka Shimla Railway (India) No 944 ter"। UNESCO। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ২৯, ২০১৮ 
  2. Engineer journal article, circa 1915, reprinted in Narrow Gauge & Industrial Railway Modelling Review, no. 75, July 2008
  3. "About Shimla Town" (PDF)। Indian Railways। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৫, ২০১৮