সিদ্দিকুর রহমান (ভোলার রাজনীতিবিদ)

বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ

সিদ্দিকুর রহমান যিনি বাঘা সিদ্দিকহাইকমান্ড সিদ্দিক নামেও পরিচিত। বাংলাদেশের ভোলা জেলার রাজনীতিবিদ ও মুক্তিযোদ্ধা। তিনি তৎকালীন বাকেরগঞ্জ-৪ (বরিশাল-৪) ও ভোলা-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য[১][২][৩]

সিদ্দিকুর রহমান
বাকেরগঞ্জ-৪ (বরিশাল-৪) আসনের সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
১৯৭৯ – ১৯৮২
পূর্বসূরীইউসুফ হোসেন হুমায়ুন
উত্তরসূরীমঈদুল ইসলাম
ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
১৯৮৮ – ১৯৯০
পূর্বসূরীতোফায়েল আহমেদ
উত্তরসূরীতোফায়েল আহমেদ
ব্যক্তিগত বিবরণ
রাজনৈতিক দলজাতীয় পার্টি
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল
ডাকনামবাঘা সিদ্দিক, হাইকমান্ড সিদ্দিক

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

সিদ্দিকুর রহমান ভোলা জেলায় জন্মগ্রহণ করেন।

মুক্তিযুদ্ধে ভূমিকাসম্পাদনা

১৯৭১ সালে বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে সিদ্দিকুর রহমান তাতে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। ৬ মে ১৯৭১ সালে পাক বাহিনী ভোলার ওয়াপদাকে মূল ক্যাম্প করে। সেখানে হত্যাসহ ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দিচ্ছিল পাকবাহিনী। সেনাবাহিনীতে কর্মরত সিদ্দিকুর পটুয়াখালী, খুলনা ও বরিশালে যুদ্ধ করেন। পরবর্তীতে ৯ নম্বার সেক্টর কমান্ডার মেজর জলিল তাকে সেখানে যুদ্ধ পরিচালনার জন্য পাঠান। ভোলার বোরহানউদ্দিনে ২২ অক্টোরব ১৯৭১ সালে দেউলার যুদ্ধে সিদ্দিকের নেতৃত্বে মুক্তিবাহিনী দখদার মুক্ত করেণ। ১০ ডিসেম্বর ১৯৭১ সালে ভোলা মুক্ত হয়।

রাজনৈতিক জীবনসম্পাদনা

সিদ্দিকুর ১৯৭৯ সালের দ্বিতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের প্রার্থী হিসেবে তৎকালীন বাকেরগঞ্জ-৪ (বরিশাল-৪) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[১] ১৯৮৮ সালের চতুর্থ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে ভোলা-২ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "২য় জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা" (PDF)জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার। ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  2. "৪র্থ জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা" (PDF)জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার। ৮ জুলাই ২০১৯ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  3. বোরহানউদ্দিন, ভোলা, এম এইচ শিপন (২৩ ডিসেম্বর ২০১৯)। "মুক্তিযোদ্ধা বাঘা সিদ্দিককে ভুলতে বসেছে সবাই"দৈনিক যায়যায়দিন। ১৯ জুলাই ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুলাই ২০২০