সিঙ্গাপুরে ইসলাম

২০১০ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী সিঙ্গাপুরের ১৫ বছর এবং এর অধিক বয়সী নাগরিকদের প্রায় ১৫% মুসলমান।[১] এদের অধিকাংশই মালয় এবং সুন্নি। সিঙ্গাপুরের মুসলমানদের ১৭ শতাংশ দক্ষিণ এশীয় বংশোদ্ভূত। অন্যদের মধ্যে রয়েছে চীনা, আরব ও ইউরোশীয় সম্প্রদায়ের। সিঙ্গাপুরের মুসলমানদের অধিকাংশ ঐতিহ্যগতভাবেই সুন্নি মুসলমান, যারা শাফি বা হানাফি মাজহাবের অনুসরণ করে।

আইনি ইতিহাসসম্পাদনা

যেহেতু এই অঞ্চলে ইসলামের আগমন ঘটে, সেহেতু ইসলামী আমলাতন্ত্র সালতানাত মালয়ে দীর্ঘকাল একটি অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ গঠন করেছিল। ১৫০০ এর দশকে মালাক্কা সালতানাতে শরিয়াহ আইন চর্চা করা হয়েছিল, পাশাপাশি এর জোহরের উত্তরসূরি হিসেবে সিঙ্গাপুরেও, যা ১৮২৪ সাল পর্যন্ত এর অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিল বলে রেকর্ড করা হয়েছিল।[২] ব্রিটিশরা যখন সিঙ্গাপুর শাসন শুরু করে, তখন শরিয়াহ আইন ব্যক্তিগত আইনে পরিণত হয়।

১৯১৫ সালে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক কর্তৃপক্ষ মোহামেডান এডভাইজারি বোর্ড প্রতিষ্ঠা করে। ইসলাম ধর্ম এবং অন্যদের সাথে সম্পর্কিত বিষয়গুলির উপর ঔপনিবেশিক কর্তৃপক্ষকে পরামর্শ দেওয়ার জন্য বোর্ডকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল।

মসজিদসম্পাদনা

দেমেগং দায়েং ইব্রাহিম মসজিদ (যেটি মালয়েশিয়ার জহর রাজ্য পরিচালনা করে) বাদ দিয়ে সিঙ্গাপুরে ৭৫টি মসজিদ রয়েছে। সিঙ্গাপুরের সকল মসজিদ মুইস কর্তৃক পরিচালিত হয়।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Singapore Statistics 2010" (PDF)। ২০১১-০১-২৪ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৬-১৩ 
  2. Kamali, Mohammad Hashim (২০০০)। Islamic law in Malaysia : issues and developments। Kuala Lumpur: Ilmiah Publishers। আইএসবিএন 9789832092278