সিংহলি জাতি (সিংহলি: සිංහල ජනතාව Sinhala Janathāva) শ্রীলঙ্কা দ্বীপের স্থানীয় একটি ইন্দো-আর্য জাতিগোষ্ঠী।তারা ঐতিহাসিকভাবে হেলা লোক (সিংহলি: හෙළ নামে পরিচিত ছিল) তারা শ্রীলঙ্কার জনসংখ্যার প্রায় ৭৫% এবং সংখ্যা ১৬.২  মিলিয়ন এর বেশি। [২] সিংহলির পরিচয় ভাষা, সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য এবং জাতীয়তার উপর ভিত্তি করে।সিংহলির লোকেরা সিংহলী ভাষায় কথা বলে, একটি অন্তর্নিহিত ইন্দো-আর্য ভাষা, এবং তারা প্রধানত থেরবাদ বৌদ্ধ,[১১] যদিও সিংহলির সংখ্যালঘুরা খ্রিস্টধর্ম এবং অন্যান্য ধর্মের শাখাগুলি অনুসরণ করে।১৮১৫ সাল থেকে, তারা বিস্তৃতভাবে দুটি নিজ নিজ গোষ্ঠীতে বিভক্ত ছিল: মধ্য পার্বত্য অঞ্চলে 'উপ-দেশীয় সিংহলী' এবং উপকূলীয় অঞ্চলে 'নিম্ন-দেশীয় সিংহলি'; যদিও উভয় গোষ্ঠী একই ভাষায় কথা বলে, তারা আলাদা আলাদা সাংস্কৃতিক রীতিনীতি পালন করে। [১২][১৩]

সিংহলি জাতি
සිංහල ජනතාව
চিত্র:Sinhalese of India, Mumbai, India, 1897.jpg
১৮৯৭ সালে ভারতের মুম্বই শহরে একজন সিংহলি ভদ্রলোক
মোট জনসংখ্যা
আনু. 17 million[১]
উল্লেখযোগ্য জনসংখ্যার অঞ্চল
 Sri Lanka১৬.২ মিলিয়ন (৭৪.৯%) (২০১২)[২]
 Australia109,849 (2016)[৩][যাচাইকরণ ব্যর্থ হয়েছে]
 United Kingdom~100,000 (2010)[৪]
 United States~41,000 (2016)[৫]
 Singapore~25,000 (2016)[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
 Malaysia~10,000 (2009)[৬]
 New Zealand9,171 (2018)[৭]
 Canada7,285 (2016)[৮]
 India~4,200[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
ভাষা
Hela language (historical)
সিংহল
ধর্ম
প্রধানত:
Dharma Wheel.svg থেরবাদ বৌদ্ধধর্ম
সংশ্লিষ্ট জনগোষ্ঠী
South Asian ethnic groups, তামিল, বাঙালি[৯]
Austroasiatic peoples (especially Khmer)[১০]

মহাবংশ এবং দীপবংশ অনুসারে, একটি ৩য়-৫ম শ্রীলঙ্কার অনুরাধাপুর মহা বিহারায় বৌদ্ধ সন্ন্যাসীদের দ্বারা পালি ভাষায় লেখা শতাব্দীর গ্রন্থ, সিংহলিরা ৫৪৩ সালে দ্বীপে এসে বসতি স্থাপনকারীদের থেকে এসেছে বিসিই সিংহপুরা থেকে প্রিন্স বিজয়ার নেতৃত্বে যিনি আদিবাসী ইয়াক্কা এবং পরে পান্ড্য রাজ্যের বসতি স্থাপনকারীদের সাথে মিশেছিলেন। [১৪][১৫][১৬][১৭]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Sinhala"Ethnologue 
  2. "A2 : Population by ethnic group according to districts, 2012"। Department of Census & Statistics, Sri Lanka।  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "statistics.gov.lk" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  3. "Sri Lanka-born Community Information Summary" (PDF)Department of Home Affairs। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  4. Wijenayake, N. A. J. (২০১৯-১২-১৬)। "The Sinhalese Buddhist Diaspora in the United Kingdom: Negotiating Sinhalese Identity" (PDF)Liverpool John Moores University (10.24377/LJMU.T.00011772)। 
  5. "SPECIAL CONCERNS FOR SRI LANKAN AMERICAN VOTERS – FOREIGN POLICY AND TERRORISM"Sri Lankan American Action Coalition। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  6. Stuart Michael. (2009). A traditional Sinhalese affair ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০১২-১০-১৫ তারিখে[অবস্থানগত প্যারামিটার উপেক্ষা করা হয়েছে]. Last accessed 3 March 2010.
  7. "2018 Census ethnic group summaries | Stats NZ"www.stats.govt.nzStatistics New Zealand। Sinhalese ethnic group। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-০২ 
  8. "Sinhalese Canadians"2016 Census। Canadian Encyclopedia। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০২০ 
  9. Kirk, R. L. (জুলাই ১৯৭৬)। "The legend of Prince Vijaya — a study of Sinhalese origins"। American Journal of Physical Anthropology45 (1): 91–99। ডিওআই:10.1002/ajpa.1330450112 
  10. Hawkey, D E (১৯৯৮)। "Out of Asia: Dental evidence for affinity and microevolution of early and recent populations of India and Sri Lanka"। 
  11. Ethnologue: Languages of the World (16th সংস্করণ)। SIL International। ২০০৯। 
  12. William Howard Wriggins (৮ ডিসেম্বর ২০১৫)। Ceylon: Dilemmas of a New Nation। পৃষ্ঠা 22। আইএসবিএন 9781400876907 
  13. Jiggins, Janice (৭ জুন ১৯৭৯)। Caste and Family Politics Sinhalese 1947-1976। পৃষ্ঠা 24। আইএসবিএন 9780521220699 
  14. "The Coming of Vijaya"The Mahavamsa। ৮ অক্টোবর ২০১১। 
  15. https://mahavamsa.org/mahavamsa/original-version/07-consecrating-vijaya/
  16. Gananath Obeyesekere, “Buddhism, ethnicity and Identity: A problem of Buddhist History,” in “Journal of Buddhist Ethics”, 10, (2003): 46 https://blogs.dickinson.edu/buddhistethics/files/2010/04/Obeyesekere.pdf
  17. John M. Senaveratna (১৯৯৭)। The story of the Sinhalese from the most ancient times up to the end of "the Mahavansa" or Great dynasty। Asian Educational Services। পৃষ্ঠা 7–22। আইএসবিএন 978-81-206-1271-6