সালাহ আল-দিন সড়ক

সালাহ আল-দিন সড়ক (যা সালাউদ্দিন সড়ক এবং সালাহ আদ-দ্বীন মহাসড়ক নামেও পরিচিত) হল গাজা ভূখণ্ডের প্রধান মহাসড়ক, এটি দক্ষিণের রাফাহ সীমান্ত ক্রসিং থেকে উত্তরে এরেজ সীমান্ত ক্রসিং পর্যন্ত ৪৫ কিলোমিটার বিস্তৃত।[১] এই সড়কটি দ্বাদশ শতাব্দীর মুসলিম সেনাপতি সালাহউদ্দিনের নামে নামকরণ করা হয়েছে।[২]

গাজা ভূখণ্ডের মানচিত্রে সালাহ আল-দিন মহাসড়ক

ইতিহাসসম্পাদনা

সালাহ আল-দিন সড়ক পৃথিবীর প্রাচীন সড়কগুলোর মধ্যে অন্যতম।[২] লেভান্ত জয়ের উদ্দেশ্যে প্রাচীন মিশরের সেনারা, মহান আলেকজান্ডার, প্রথম ক্রুসেডারেরা এবং নেপোলিয়ন বোনাপার্ট এরা সবাই এই স্থানে ভ্রমণ করে এসেছিলেন।[১][২] ষষ্ঠদশ শতাব্দীর প্রথমে অন্তত উসমানীয় সাম্রাজ্যের শাসনের সূচনাকালে সড়কটির দৈর্ঘ্য দক্ষিণে সিনাইয়ের আল-আরিশ থেকে উত্তরে আধুনিক তুরস্ক পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়। কয়েক শতক ধরে এটি "পলেষ্টীয়দের পথ" নামে পরিচিত ছিলো এবং এটি মিশরকে বর্তমান লেবানন, সিরিয়া, তুরস্ক এবং এর দূরের দেশগুলোকে সংযুক্ত করেছে। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ফিলিস্তিনের নিয়ন্ত্রণ প্রাপ্তির পর, ব্রিটিশরা সালাহ আল-দিন সড়ক সংলগ্ন সমান্তরালে দক্ষ সরবরাহ এবং অস্ত্র পরিবহনের জন্য একটি রেললাইন নির্মাণ করে।[১]

জেরাল্ড বাটের মতে, গাজা শহরে "সম্পূর্ণ জীবনের কেন্দ্রবিন্দু" সরাসরিভাবে এই সড়কের সাথে সম্পর্কিত ছিলো যা "শহরটিকে এর অস্তিত্বের উদ্দেশ্য প্রদান করেছে।" যদিও, ১৯৪৮ সালে ইসরায়েল প্রতিষ্ঠা এবং চলমান আরব-ইসরায়েলি সংঘাতের ফলে মিশরসিরিয়ার মধ্যকার এর প্রধান সংযুক্তিকরণের ভূমিকা খর্ব হয়।

১৯৬৭ থেকে ২০০৫ পর্যন্ত ইসরায়েলের গাজা ভূখণ্ডের দখলদারিত্ব কালে সালাহ আল-দিন সড়কের বিরাট অংশে ফিলিস্তিনিদের প্রবেশ বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং ইসরায়েল বাহিনী সড়কের ১২টি জায়গায় চেকপয়েন্ট বসায়।[১] দ্বিতীয় অভ্যুত্থানের সময় সড়কটির অধিকাংশ অংশ ইসরায়েলিদের জন্যও বন্ধ করে দেওয়া হয়। ২০০৭ সালে ফাতাহের সাথে হামাস গাজার লড়াইয়ে অঞ্চলের ক্ষমতা পাওয়ার পর বর্তমানে হামাস সরকার এসব চেকপয়েন্টগুলো নিয়ন্ত্রণ করছে।[১]

অঞ্চলের ক্ষমতা পাওয়ার পর হামাস সরকার নিজেদের সুড়ঙ্গ ব্যবসার আয় দিয়ে সড়কটি উন্নয়ন ও প্রশস্ত করেছে।[৩] ২০১০ সালে দ্য ন্যাশনাল সালাহ আল-দিন সড়ক সম্পর্কে লিখে "এখন, মেহনতি কৃষক, সবজান্তা মেকানিক এবং রঙচঙে সড়কের পাশের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান গুলোর প্রদর্শনী পর্যন্ত সালাহ আল দীনের দৈর্ঘ্য প্রসারিত হয়েছে, কেন্দ্রীয় থেকে দক্ষিণ গাজা পর্যন্ত। উটগুলো এর লেনগুলোর মাঝে এলোমেলোভাবে হাঁটছে, এবং টলটলায়মান, হর্ন ডাকা লরিগুলো সড়কের প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত চোরাচালান পণ্য নিয়ে যায় এবং ১৫ লাখ মানুষকে সাহায্য সহায়তা করে ..."[১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Cunningham, Erin. Ancient Gaza Roadway Still a Vital Resource, The National. 2010-03-10.
  2. Johnston, Alan. Gaza's ancient history uncovered. BBC News. 2005-11-22.
  3. Pelham, Nicolas. Gaza's Tunnel Complex. Middle East Research and Information Project. Winter 2011.