সাঈ সুব্বুলক্ষ্মী

সাঈ এবং সুব্বুলক্ষ্মী, সাঈ-সুব্বুলক্ষ্মী নামেই বেশি পরিচিত, এঁরা ছিলেন নারী ভরতনাট্যম নৃত্যশিল্পী যাঁরা দক্ষিণ ভারতে মঞ্চ এবং হিন্দি চলচ্চিত্রে প্রদর্শন করেছেন। তাঁরা ছিলেন যমজ নৃত্যশিল্পীদ্বয় এবং ১৯৫০ ও ১৯৬০ খ্রিস্টাব্দের দশকে জনপ্রিয় ছিলেন।[১] তাঁরা সমলয়ের নৃত্যানুষ্ঠানের জন্যে সুপ্রসিদ্ধ ছিলেন। তাঁরা দুজনে কত্থক এবং লোকনৃত্যের ধারায় আঞ্চলিক ও হিন্দি ভাষার চলচ্চিত্রে নৃত্য প্রদর্শন করেছেন।

সাঈ সুব্বুলক্ষ্মী

পরিবারসম্পাদনা

তাঁরা এমন একটা পরিবার থেকে এসেছেন যাঁরা চলচ্চিত্র শিল্পের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলেন। তাঁরা হলেন পানরুত্তি আদিলক্ষ্মীর উত্তরপুরুষ, কর্ণাটকী সংগীতশিল্পীদের আকর রাজামণি এবং পি এ পেরিয়ানায়াকি, যাঁরা ম্যাড্রাস সিস্টার্স নামে সমধিক প্রসিদ্ধ (শশী, কলা, এবং মালা এঁদের নামের সঙ্গে মিলিয়ে ফেলবেননা)। তাঁরা তামিল চলচ্চিত্রে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন। পি এ পেরিয়ানায়াকিও একজন নেপথ্য গায়ক হিসেবে পরিচিত। লাক্স সাবান সুন্দরী আর পদ্মা, যিনি ১৯৪১ খ্রিস্টাব্দের সাবাপাতি শীর্ষক মিলনান্তক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি সাঈ-এর শাশুড়ি।

(দ্রষ্টব্য: সাঈকে পি এ রাজামণি এবং সুব্বুলক্ষ্মীর কন্যা বলা হয়, যিনি সাঈ-এর থেকে ৩ বছরের বড়ো তুতবোন। এটা নিশ্চিত নয়। যাইহোক, তাঁরা নিকট সম্পর্কযুক্ত এবং একই বর্ধিত পরিবারের অন্তর্গত ছিলেন।)

নৃত্য প্রশিক্ষণসম্পাদনা

মুথুস্বামী পিল্লাই হলেন একজন নৃত্য শিক্ষক[২] যিনি ১৯৩৮ খ্রিস্টাব্দ থেকে চলচ্চিত্রের জন্যে নৃত্য পরিকল্পনা করতেন। মুথুস্বামী পিল্লাই যে সময় সালেম রত্ন স্টুডিয়োতে ইনবাভল্লি চলচ্চিত্রে বি এস সরোজা নৃত্যশিল্পীর জন্যে নৃত্য পরিকল্পনা করেছিলেন সেটা পি এ পেরিয়ানায়াকি অনুমোদন করেছিলেন। তিনি তাঁর সুন্দরী সাঈ এবং তার তুতবোন সুব্বুলক্ষ্মীকে নৃত্যের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্যে তাঁকে অনুরোধ করেন। মুথুস্বামী পিল্লাই সম্মত হয়েছিলেন। এই দুজনকে নিবিড়ভাবে প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্যে তিনি তাঁদের পরিবারের সঙ্গে থেকে গিয়েছিলেন। সাঈ তখন ৫ বছর বয়সী এবং সুব্বুলক্ষ্মী তাঁর চেয়ে ৩ বছরের বড়ো ছিলেন। কুমারী কমলা তাঁদের দুজনের নৃত্য প্রদর্শন অবলোকন করেছিলেন।

দুজন বালিকার জন্যে কঠোর প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা ছিল - সকালে ৩ ঘণ্টা আবার সন্ধ্যায় ৩ অথবা ৪ ঘণ্টা। মুথুস্বামী পিল্লাই তাঁর চলচ্চিত্রের কাজের ফাঁকে ৭ বছর ধরে তাঁদের প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন। শহরে থাকাকালীন তিনি নৃত্যশিক্ষার ক্লাস নিতেন।

সাঈ এবং সুব্বুলক্ষ্মী গোপী কৃষ্ণার কাছে কত্থক নৃত্যের প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন, যিনি ঝনক ঝনক পায়ল বাজে শীর্ষক বিখ্যাত হিন্দি চলচ্চিত্রে নৃত্যশিল্পী এবং নৃত্যপরিকল্পক ছিলেন।

আরঞ্জেট্রাম ও চলচ্চিত্রে পরিচিতিসম্পাদনা

১৯৫৩ খ্রিস্টাব্দের ১৪ সেপ্টেম্বর চেন্নাইয়ের আর আর সভা হলে রাজা স্যর এম এ মুথাইয়া চেট্টিয়ার মহাশয়ের সভাপতিত্বে সাঈ এবং সুব্বুলক্ষ্মীর আরঞ্জেট্রাম অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

এক বছরের মধ্যে ১৯৫৪ খ্রিস্টাব্দে মালাইক্কাল্লাম চলচ্চিত্রে তাঁদের প্রথম প্রদর্শন হয়েছিল। চলচ্চিত্রটা ছ-টা ভাষায় প্রস্তুত হয়েছিল যেটা এই নৃত্যশিল্পীদ্বয়ের দিকদিগন্তে সুযোগের দ্বার খুলে দিয়েছিল।

যে সমস্ত চলচ্চিত্রে তাঁরা নৃত্য প্রদর্শন করেছেন, তার ভিতর কিছু চলচ্চিত্রে নৃত্য প্রদর্শনের পাশাপাশি ছোটো ছোটো ভূমিকায় অভিনয়ও করেছিলেন।

১৯৫৪ খ্রিস্টাব্দ থেকে তাঁরা অনেক দক্ষিণ ভারতীয় আঞ্চলিক এবং হিন্দি চলচ্চিত্রে নৃত্য প্রদর্শন করেছিলেন।

ভরতনাট্যম প্রদর্শনসমূহসম্পাদনা

তাঁরা মঞ্চ উপস্থাপনা যথারীতি করতে থাকেন। যখন শিবাজি গণেশন চেন্নাইয়ের তিয়াগারায়া নগরে আন্নাই ইলম নাম এক নতুন বাড়ি তৈরি করেন, সেখানে অভ্যর্থনায় প্রধান আকর্ষণ ছিল সাঈ এবং সুব্বুলক্ষ্মীর প্রদর্শিত ভরতনাট্যম।

নৃত্যশৈলীসম্পাদনা

এই দ্বৈত শিল্পী এন এস কৃষ্ণান দ্বারা পাম্বারা সহোদরীগাল (ঘূর্ণ শীর্ষ ভগিনীগণ) হিসেবে সম্মানিত হয়েছিলেন। গতি, স্পষ্টতা, নমনীয়তা, পদসঞ্চালনে যুগ্মভাবে ছন্দসমতা তাঁদেরকে অনন্য জুটি করে তুলেছিল।

নৃত্য শিক্ষকসম্পাদনা

১৯৬০ খ্রিস্টাব্দের দশকের পর ভারতীয় চলচ্চিত্রের প্রবণতা একটা ব্যাপক পরিবর্তনের মধ্যে দিয়ে যায় এবং এই দ্বৈত শিল্পীর নৃত্য প্রদর্শন অলক্ষিতই থেকে যায়। সুব্বুলক্ষ্মী শিক্ষার্থীদের কাছে ভরতনাট্যম শিক্ষা দিতে থাকেন। তিনি ২০০০ খ্রিস্টাব্দে একজন নৃত্যশিক্ষিকা হিসেবে কলাইমামণি পুরস্কারসহ সম্মানিত হয়েছিলেন।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

সাঈ লাক্স সুন্দরী আর পদ্মের জ্যেষ্ঠ সন্তান ভি এস সান্তারামের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তাঁদের এক পুত্রসন্তান আছে। সাঈ স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হন এবং ২০১০ খ্রিস্টাব্দের ২৬ জানুয়ারি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

চলচ্চিত্রের তালিকাসম্পাদনা

বছর চলচ্চিত্র ভাষা গান নৃত্যপরিকল্পক সংগীত পরিচালক গায়ক/গণ
১৯৫৪ মালাইক্কাল্লান তামিল "নীলি মগন নী আল্লাভা"
"ও আম্মা ও আয়া"
মুথুস্বামী পিল্লাই এস এম সুব্বাইয়া নায়ডু পি এ পেরিয়ানায়াকি
১৯৫৪ আগি রামুদু তেলুগু "রারা যশোদা নন্দনা"
"পাল্লাভেরয়"
মুথুস্বামী পিল্লাই এস এম সুব্বাইয়া নায়ডু পি এ পেরিয়ানায়াকি
১৯৫৪ রথ কান্নীর তামিল "কথাভাই সাথাদি" মুথুস্বামী পিল্লাই সি এস জয়ারামন এম এল বসন্তকুমারী
১৯৫৫ আজাদ হিন্দি "আপলাম চাপলাম"
"ও বাল্লিয়ে বাল্লিয়ে"
হিরালাল সি রামাচান্দ্রা লতা মঙ্গেশকরঊষা মঙ্গেশকর
১৯৫৫ ডক্টর সাবিত্রী তামিল "নায়াগার পাদশামাদি" মুথুস্বামী পিল্লাই জি রামানাথান পি এ পেরিয়ানায়াকিএ পি কোমলা
১৯৫৫ গোমতিয়িন কাধালান তামিল "সিপ্রা কালাই বিঝাভিন অর্পুধাঙ্গালুক্কেল্লাম" সোহনলাল
কে এন দণ্ডায়ুধাপানি পিল্লাই
জি রামানাথান পি এ পেরিয়ানায়াকি, পি লীলা, রাধা জয়ালক্ষ্মীটি ভি রথিনাম
১৯৫৬ আলিবাবাভুম ৪০ থিরুদরগালুম তামিল "নামা আদুভাধুম পাদুভাধুম" কে এন দণ্ডায়ুধাপানি পিল্লাই এবং এ কে চোপড়া এস দক্ষিণামূর্তি স্বর্ণলতা ও কে যমুনা রানি
১৯৫৬ চোরি চোরি হিন্দি " মন ভওয়ন কে ঘর" কে এন দণ্ডায়ুধাপানি পিল্লাইগোপী কৃষ্ণা শংকর জয়কিশান লতা মঙ্গেশকরআশা ভোঁসলে
১৯৫৬ থাইক্কুপিন থারাম তামিল "নাদু সেঝিথিদা" টি সি থঙ্গরাজ কে ভি মহাদেবন এম এল বসন্তকুমারী
১৯৫৭ করপুক্কারাসি তামিল "ভিঝিয়োদু ভিলাইয়াদুম" পি এস গোপীকৃষ্ণান জি রামানাথান এম এল বসন্তকুমারীপি লীলা
১৯৫৭ মাক্কালাই পেত্রা মারাগাসি তামিল "মাল্লিয়াক্কা মাল্লিয়াক্কা এঙ্গাদি পোরা" হিরালাল ও পি ভি বলরাম কে ভি মহাদেবন জিক্কি, কে যমুনা রানিএ জি রত্নমালা
১৯৫৭ শারদা হিন্দি "জোরু কা গুলাম" হিরালাল ও সত্যনারায়ণা সি রামচন্দ্র আশা ভোঁসলেশামশাদ বেগম
১৯৫৮ মঙ্গল্যা ভাগ্যম তামিল "নেঞ্জাথিলে অচ্চম" চিন্নি-সম্পত জি রামানাথান এম এল বসন্তকুমারীপি লীলা
১৯৫৮ পেরিয়া কোভিল তামিল "আথাদি থাল্লাধা থাথাভাই" পি এস গোপলাকৃষ্ণান কে ভি মহাদেবন কে যমুনা রানিএল আর এশ্বরি
১৯৫৯ কান থিরানথাথু তামিল "পানাম কাসু পাদাইচালে" মুথুস্বামী পিল্লাই
জয়ারামন
টি আর রাজাগোপালন পি সুশীলাএস জানকী
১৯৫৯ ওরে ভাঝি তামিল "কালভি কালভি এন্দ্রু পাদু" কে এন দণ্ডায়ুধাপানি পিল্লাই আর গোবর্ধনম এম এল বসন্তকুমারীপি লীলা
১৯৫৯ প্রেসিডেন্ট পাঞ্চাতচারাম তামিল "ওলি পাদাইথা কান্নিনায়ি" মুথুস্বামী পিল্লাই জি রামানাথান এম এল বসন্তকুমারী(রাধা) জয়ালক্ষ্মী
১৯৫৯ শিবাগঙ্গাই সীমাই তামিল "মুথু পুগাঝ পাদাইত্থু" কে এন দণ্ডায়ুধাপানি পিল্লাই বিশ্বনাথন-রামমূর্তি এস বারালক্ষ্মী(রাধা) জয়ালক্ষ্মী
১৯৬১ সতী সুলোচনা তেলুগু "জয় জয় জয় মেঘানাধা" ভেমপতি চিনা সত্যম টি ভি রাজু কে যমুনা রানিএস জানকী
১৯৬৩ আরিভালি তামিল "ভাঝিয়া নিদুঝি" পি এস গোপলাকৃষ্ণান এস ভি ভেঙ্কটরামন (রাধা) জয়ালক্ষ্মীপি লীলা
১৯৬৩ ভরোসা হিন্দি "ধড়কা হো দিল ধড়কা গুজারা গলি সে" গোপী কৃষ্ণা রবি লতা মঙ্গেশকরআশা ভোঁসলে

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Vintage Heritage Club to pay tributes to four legendary dancers"Times of India। ২০১৭-০৬-২০। ২০১৭-১১-২৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১১-২৫ 
  2. "Thirai Nadanam -Kaala Chulatchiyil Nadana Kalai" [Art of Dancing in changing times]। tamil.thehindu.com (Tamil ভাষায়)। ২০১৭-০১-২৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১১-২৫