নাযীর হুসাইন দেহলভী

আহলে হাদিস শায়েখ
(সাইয়েদ নাজীর হুসাইন থেকে পুনর্নির্দেশিত)

মিয়া সাইয়েদ নাযীর হুসাইন মুহাদ্দিস দেহলভী (উর্দুঃمیاں سید محمد نذیر حسین محدث دہلوی) ভারতের একজন ধর্মীয় নেতা এবং হাদিস বিশারদ ছিলেন। ইসলাম ও মুসলিমদের খেদমতে যারা নিরলসভাবে পাঠদান করে গেছেন, তাদের মধ্যে ভারতের আলেম, বিশ্ববিখ্যাত উস্তায আল্লামা নাযীর হুসাইন দেহলবী রহিমাহুল্লাহ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।ভারতীয় উপমহাদেশসহ বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ জায়গা থেকেই তার কাছ থেকে শিক্ষা অর্জনের জন্য মানুষ ছুটে আসতো।আর এজন্যেই তার উপাধি ছিলো শায়খুল কুল ফিল কুল (সর্বকালের সেরা বিদ্বান)।

শাইখুল হাদিস
মিয়া সাইয়েদ নাজীর হুসাইন দেহলভী
میاں سید محمد نذیر حسین محدث دہلوی
জন্ম১৮০৫ খ্রিঃ
মৃত্যু১৯০২ খ্রিঃ (৯৬-৯৭ বৎসর বয়সে)
অন্য নামমিয়া সাহেব
অঞ্চলভারতীয়
পেশাইসলামী ধর্মতত্ত্ববিদ, শিক্ষক ও নেতা
আন্দোলনআহলুল হাদিস(সালাফি)
মূল আগ্রহহাদিস, ফাতাওয়া
লক্ষণীয় কাজ“মিয়া’রুল হক”

জন্ম ও শৈশব

সম্পাদনা

নাযীর হুসাইন দেহলভী(রহ)১২২০ হিজরী মোতাবেক ১৮০৫ খ্রিষ্টাব্দে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ভারতের বিহার প্রদেশের অন্তর্গত মুঙ্গের জেলার বালথোয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।[১][২][৩][৪][৫][৬] তার বাবার নাম ছিল সাইয়্যেদ জাওয়াদ আলী।[৭][৮] হুসাইন(রা.) এর বংশধর সাইয়েদ নাযীর হুসাইন বিন জাওয়াদ আলীর বংশধারা ৩৫তম উর্ধ্বতন স্তরে গিয়ে রাসুল(সা.) এর সাথে মিলে যায়।[১][৯]

বংশধারা:

নাযীর হুসাইন বিন জাওয়াদ আলী বিন আযমাতুল্লাহ বিন এলাহ বখস বিন মুহাম্মাদ বিন মাহরূ বিন মাহবুব বিন কুতুবুদ্দীন বিন হাশেম বিন চান্দ বিন মারুফ বিন বুধন বিন ইউনুস বিন বুযর্গ বিন যায়রাক বিন রুকনুদ্দীন বিন জামালুদ্দীন বিন আহমাদ জাজনীরী বিন মুহাম্মাদ বিন মাহমূদ বিন দাউদ বিন আফযাল বিন ফুযাইল বিন আবুল ফারাহ বিন ইমাম হাসান আসকারী বিন ইমাম নকী বিন ইমাম তাক্বী বিন মূসা রিযা বিন মূসা কাযিম বিন ইমাম জা'ফর ছাদিক বিন ইমাম বাক্কির বিন ইমাম আলী যয়নুল আবেদীন বিন ইমাম হুসাইন বিন আলী ওয়া ফাতিমা বিনতে মুহাম্মাদ (সা.)।[৯][১০]

শিক্ষা জীবন

সম্পাদনা

শৈশবকালে তিনি পিতার কাছে ফারসি ভাষার প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করেন এছাড়া আরবির জ্ঞানও লাভ করেন।[১][২]১৮২২ সালে পনের বছর বয়সে তিনি পাটনার শহরতলীর একটি মাদরাসায় ভর্তি হন।এখানে তিনি শাহ মুহাম্মদ হুসাইনের নিকট মিশকাতুল মাসাবীহ এবং কুরআনের বিভিন্ন পারার তাফসির অধ্যায়ন করেন।[১][২][৩][১১]এখানে ছাত্র থাকা অবস্থায় একটি ইসলামী সভায় শাহ ইসমাইল শহীদ ও এরফান বেরীলভী আগমন করেন। এই সভা অনুষ্ঠিত হয় পাটনার গান্ধী ময়দানে। এ দু’জনের দাওয়াতী কর্মকান্ড দেখে এবং তাঁদের ওয়ায শুনে বালক নাযীর হুসাইন আকৃষ্ট হয়ে পড়েন।[১][২][১১]তিনি তাঁদের দ্বীনি আলোচনা শুনে জ্ঞানার্জনের জন্য পাটনা ছেড়ে বেরিয়ে পড়েন দিল্লির উদ্দেশ্যে।সেখান থেকে চলে যান উত্তর প্রদেশের গাজীপুরের একটি মাদরাসায়। এখান থেকে রাজধানী দিল্লীর দূরত্ব তিনশ’ কিলোমিটার। এখানে উল্লেখযোগ্য উস্তায পেয়েছিলেন মৌলভী আহমদ আলী চিড়িয়াকোটিকে।[১][২][৬] অতঃপর তিনি এলাহাবাদ চলে যান।এখানে তিনি নাহু-ছরফের প্রাথমিক কিতাব মারাহুল আরওয়াহ,যুনজানী,নুকুদুছ ছরফ, জাযুলি,শরহু মিয়াতে আমেল,মিছবাহ,মাকামাতে হারিরি,হেদায়াতুন্নাহু ইত্যাদি অধ্যায়ন করেন।[১২]

অল্প কিছু দিনের মধ্যে তিনি দিল্লী পৌঁছলেন এবং দিল্লীর একাধিক মাদরাসা ও মসজিদে অবস্থান করে বড় বড় মাশায়েখদের নিকট থেকে উলূম ও ফনূনে উচ্চ শিক্ষাগ্রহণ করেন। যেমন আওরঙ্গবাদের ফেনজান কাটরা মসজিদে ও মাদরাসা কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে তিনি সেখানকার অভিজ্ঞ শিক্ষকদের কাছে পড়েন,অবশেষে তিনি রহীমিয়া মাদরাসার নিয়মিত ছাত্র হিসাবে পড়াশুনা শুরু করেন। সেখানে তিনি শাহ ইসহাক দেহলভী ও শাহ ইসমাইল শহীদকে তাঁর প্রিয় শিক্ষক ও মুহাদ্দিছ হিসাবে পেয়েছিলেন। [১১]

কর্ম জীবন

সম্পাদনা

রচনাবলি

সম্পাদনা

ছাত্রের তালিকা

সম্পাদনা
নাম জন্ম স্থান পরিচিতি
মুহাম্মদ শামসুল হক আজিমাবাদী ভারত আবু দাউদের বিখ্যাত ভাষ্য গ্রন্থ আয়নুল মাবুদ এর লেখক
সানাউল্লাহ অমৃতসরী ভারত ফাতিহে কাদিয়ান তথা কাদিয়ান বিজয়ী হিসেবে খ্যাত
আব্দুর রহমান মুবারকপুরী ভারত তিরমিযির জগদ্বিখ্যাত ভাষ্য তুহফাতুল আহওয়াযীর লেখক
আবুল কাসেম সায়েফ বেনারসী ভারত মাদরাসা সাঈদিয়াহ ইসলামিয়া এর শায়খুল হাদিস ছিলেন
মুহাম্মদ ইব্রাহিম মীর শিয়ালকোটি পাকিস্তান তারিখে আহলে হাদিস গ্রন্থের লেখক
মুহাম্মদ জুনাগড়ী ভারত তাফসিরে মুহাম্মাদির লেখক
আব্দুল মান্নান ওয়াজিরাবাদি ভারত প্রতিষ্ঠাতা মাদরাসা দারুল হাদিস
আব্দুল্লাহ গাযীপুরী ভারত
আকরাম খাঁ বাংলাদেশ মোস্তফা চরিতের লেখক,বাংলা ভাষায় প্রথম তাফসির লেখক,বাংলার মুসলিম সাংবাদিকতার জনক
আব্বাস আলী ভারত কুরআনের প্রথম পূর্ণাঙ্গ মুসলিম বঙ্গানুবাদক
ইবরাহীম আরাভী ভারত
ওয়াহেদুজ্জামান হায়দারাবাদী ভারত
আব্দুর রহমান কান্দাহারী আফগানিস্তান দেলদুয়ার জমিদার বাড়ি মাদরাসার শায়খুল হাদিস ছিলেন
আব্দুল্লাহ গযনভী আফগানিস্তান

মৃত্যু

সম্পাদনা

হাজারো আলেমের উস্তায এই বিদ্বান ১৩২০ হিজরী মোতাবেক ১৯০২ খ্রিষ্টাব্দে দিল্লীতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।তাকে শীদীপুরা কবরস্থানে দাফন করা হয়।[৬][৮][১১]

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. ইবরাহিম মীর শিয়ালকোটি(রহ) (১৯৮৪)। তারিখে আহলে হাদিস (উর্দু ভাষায়)। ইদারাতু দাওয়াতুল ইসলাম। পৃষ্ঠা ২৯৪। 
  2. ফাতওয়া নাযীরীয়াহ। পৃষ্ঠা ২৮। 
  3. ড.মোহাম্মদ এছহাক। Indias contributiuon to the study of hadith literature [ইলমে হাদিসে ভারতীয় উপমহাদেশের অবদান] (ইংরেজি ভাষায়)। যাকারিয়া, মাওলানা মুহাম্মদ কর্তৃক অনূদিত। ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ। পৃষ্ঠা ১৭৫। 
  4. Ahmed, Chanfi (২০১৫-০৩-১০)। West African ʿulamāʾ and Salafism in Mecca and Medina: Jawāb al-Ifrῑqῑ - The Response of the African (ইংরেজি ভাষায়)। BRILL। আইএসবিএন 978-90-04-29194-2 
  5. "Syed Nazeer Husain | Syed Nazir Hussain Shah Sahib | Sayyad Nazeer Husain Ad-Dehlawi"www.darussalaam.co.uk। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০২-১০ 
  6. "مضمون تفصیل | محدث میگزین"magazine.mohaddis.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৩-০৪ 
  7. ফাতওয়া নাযীরীয়াহ। পৃষ্ঠা ২৭। 
  8. আল-ইতিছাম, মাসিক। "মনীষী পরিচিতি-৪ : সাইয়্যেদমিয়াঁনাযীর হুসাইন দেহলভী রহিমাহুল্লাহ, আল-ইতিছাম ডেস্ক - ডিসেম্বর ২০২২"মাসিক আল-ইতিছাম (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০২-১০ 
  9. ফযল হুসাইন বিহারী (১৯৫৯)। আল হায়াত বা'দাল মামাত (উর্দু ভাষায়)। করাচী: মাকতাবা শুয়াইব। পৃষ্ঠা ১০–১২। 
  10. আসাদুল্লাহ আল গালিব (২০১১)। আহলে হাদিস আন্দোলন উৎপত্তি ও ক্রমবিকাশ। হাদীছ ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ। পৃষ্ঠা ৩৩৯। 
  11. At-tahreek, Monthly। "সৈয়দ নাযীর হুসাইন দেহলভী,সেপ্টেম্বর ২০২১ - মাসিক আল-ইখলাছ"মাসিক আল-ইখলাছ - কুরআন, সুন্নাহ ও সালাফী মানহাজ ভিত্তিক গবেষণা পত্রিকা। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৩-০৪ 
  12. ফাতওয়া নাযীরীয়াহ। পৃষ্ঠা ২৯।