সাঁ-পিয়ের, সাঁ-পিয়ের এবং মিকলোঁ

আটলান্টিক মহাসাগরে ফ্রান্সের সামুদ্রিক অঞ্চল সাঁ-পিয়ের ও মিকলোঁ-র রাজধানী শহর

সাঁ-পিয়ের (ফরাসি: Saint-Pierre) ফ্রান্সের সামুদ্রিক অঞ্চল সাঁ পিয়ের ও মিক‌লোঁ-র রাজধানী শহর। শহরটি পূর্ব কানাডার নিউফাউন্ডল্যান্ডল্যাব্রাডর প্রদেশের উপকূল থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে আটলান্টিক মহাসাগরে অবস্থিত সাঁ-পিয়ের ও মিকলোঁ সামুদ্রিক অঞ্চলটির দক্ষিণ অংশে অবস্থিত সাঁ-পিয়ের দ্বীপের পূর্ব তীরে অবস্থিত একটি বন্দর শহর। এখানে প্রায় ৬ হাজার (৫৮৮৮[১]) লোকের বাস। এখানকার অধিবাসীদের অনেকেই ফ্রান্সের বাস্ক, ব্র্যতাইন ও নরমঁদি অঞ্চল ও আকাদিয়া বংশোদ্ভূত লোক।

সাঁ-পিয়ের
কম্যুন
সাঁ-পিয়ের শহরের বিমান দৃশ্য
সাঁ-পিয়ের শহরের বিমান দৃশ্য
সাঁ-পিয়েরের পতাকা
পতাকা
সাঁ-পিয়েরের প্রতীক
প্রতীক
Saint Pierre and Miquelon map.gif
সাঁ-পিয়েরের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ৪৬°৪৬′৪০″ উত্তর ৫৬°১০′৪০″ পশ্চিম / ৪৬.৭৭৭৮° উত্তর ৫৬.১৭৭৮° পশ্চিম / 46.7778; -56.1778
দেশ ফ্রান্স
বৈদেশিক সংগ্রহস্থলসাঁ পিয়ের ও মিক‌লোঁ
সরকার
 • মেয়র (2014-2020) কারিন ক্লেরো (LREM)
আয়তন২৫ বর্গকিমি (১০ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (জুলাই ২০১১)৫,৮৮৮
 • জনঘনত্ব২৪০/বর্গকিমি (৬১০/বর্গমাইল)
আইএনএসইই/ডাক কোড97502 /97500
উচ্চতা০–২০৭ মি (০–৬৭৯ ফু)

শহরটি সাঁ পিয়ের ও মিকলোঁ-র প্রশাসনিক ও বাণিজ্যিক কেন্দ্র। ১৬শ শতকে ইউরোপীয় তথা ফরাসি মৎস্যশিকারীরা এখানে বসতি স্থাপন করে। ১৯শ শতকে স্থানীয় মৎস্যশিল্পের যোগানকেন্দ্র ও সেবাকেন্দ্র হিসেবে শহরটির বৃদ্ধি ঘটে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মদ্যপানীয় নিষিদ্ধকরণ পর্বে (১৯২০-৩৩) "বুটলেগিং" (মদ্যপানীয়ের বেআইনি ব্যবসা) কর্মকাণ্ডের জন্য শহরে সাময়িকভাবে অর্থের আগমন ঘটে। শহরের মৎস্যশিকারীরা কড মাছ শিকারে সিদ্ধহস্ত। এখানে কড মাছ প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্প আছে। তবে কানাডার নিউফাউন্ডল্যান্ড উপকূলের কাছে কড মাছ শিকারের উপরে কানাডা সরকার অনেক বিধিনিষেধ আরোপ করেছে, যা শহরের অর্থনীতির উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। সাঁ-পিয়ের শহরে ১৯৯৯ সালের সেপ্টেম্বর থেকে একটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর আছে।

চিত্র প্রদর্শনীসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা