দুটি হাইড্রোজেন পরমাণুর মধ্যে দুটি ইলেকট্রন শেয়ারের মাধ্যমে একটি হাড্রোজেন অণুর (H2) সৃষ্টি

সমযোজী বন্ধন (ইংরেজি: Covalent bond) হল এমন এক ধরনের রাসায়নিক বন্ধন যেখানে পরমাণুসমূহ তাদের নিজেদের মধ্যে ইলেকট্রন শেয়ারের মাধ্যমে আবদ্ধ থাকে। ইলেকট্রন শেয়ার করা পরমাণুদ্বয়ের মধ্যেকার আকর্ষন ও বিকর্ষনের ফলে যে সুস্থিত ভারসাম্য বল তৈরী হয় তাই সমযোজী বন্ধনের সৃষ্টি করে।[১] সমযজী বন্ধন এদের গঠনের ধরন অনুযায়ী পাই-বন্ধন, সিগমা বন্ধন, অ্যাগস্টিক মিথস্ক্রিয়া এবং ত্রিকেন্দ্রীক দ্বিইলেক্ট্রন বন্ধন ইত্যাদী ধরনের হয়ে থাকে।[২][৩] সমযোজী বন্ধন শব্দটির প্রচলন ১৯৩৯ সাল থেকে।[৪]

পরমাণুসমুহের মধ্যে সমযোজী বন্ধন তখনই গঠিত হয় যখন এদের তড়িৎ ঋণাত্মকতা সমান বা অতি নিকটবর্তী হয়। শেয়ারকৃত ইলেকট্রন যদি দুটি পরমাণুর মধ্যে নির্দিষ্ট না থেকে অনেকগুলি পরমাণু দ্বারা শেয়ার হয়ে থাকে তখন একে ডিলোকালাইজড ইলেকট্রন বলা হয়।

সিগমা বন্ধনসম্পাদনা

সিগমা বন্ধন এমন একটি বন্ধন যা দুটি পরমাণুর অরবিটালের মুখমুখি সংযুক্তি ঘটে।

পাই বন্ধনসম্পাদনা

দুটি পরমাণুর প্রত্যেকটি হতে একটি করে দুটি সমান্তরাল p অরবিটালের পার্শ্ব অধিক্রমনের ফলে যে বন্ধন সৃষ্টি হয় তাকে পাই বন্ধন বলে ।

পাই বন্ধনের বৈশিষ্ট্য:

  • দুটি পরমাণু সিগমা বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার পর উভয় পরমাণুর সমান্তরাল অক্ষবিশিষ্ট দুটি অরবিটাল এর পাশাপাশি অধিক্রমন
  • অধিক্রমন এলাকায় ইলেকট্রন মেঘের ঘনত্ব কম থাকে।
  • পাই বন্ড সিগমা বন্ড অপেক্ষা দুর্বল ।
  • সংকর অরবিটালে পাই বন্ধন ঘটেনা। s অরবিটাল ব্যতীত বিশুদ্ধ অন্য অরবিটালে ঘটে।

ডেলটা বন্ধনসম্পাদনা

বন্ধন শক্তিসম্পাদনা

বন্ধনের দৈর্ঘ্য pm এককে
বন্ধন শক্তি kJ/mol এককে।

১০০ দিয়ে ভাগ (১ Å = ১০০ pm) করার দ্বারা
বন্ধনের দৈর্ঘ্য Å-এ রুপান্তর করা যায়।
[৫]
বন্ধন দৈর্ঘ্য
(pm)
বন্ধন শক্তি
(kJ/mol)
H — হাইড্রোজেন
H–H 74 436
H–C 109 413
H–N 101 391
H–O 96 366
H–F 92 568
H–Cl 127 432
H–Br 141 366
C — কার্বন
C–H 109 413
C–C 154 348
C=C 134 614
C≡C 120 839
C–N 147 308
C–O 143 360
C–F 135 488
C–Cl 177 330
C–Br 194 288
C–I 214 216
C–S 182 272
N — নাইট্রোজেন
N–H 101 391
N–C 147 308
N–N 145 170
N≡N 110 945
O — অক্সিজেন
O–H 96 366
O–C 143 360
O–O 148 145
O=O 121 498
F, Cl, Br, I — হ্যালোজেন সমূহ
F–H 92 568
F–F 142 158
F–C 135 488
Cl–H 127 432
Cl–C 177 330
Cl–Cl 199 243
Br–H 141 366
Br–C 194 288
Br–Br 228 193
I–H 161 298
I–C 214 216
I–I 267 151
S — সালফার
C–S 182 272

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Campbell, Neil A. (২০০৬)। Biology: Exploring Life। Boston, Massachusetts: Pearson Prentice Hall। আইএসবিএন 0-13-250882-6। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০২-০৫  অজানা প্যারামিটার |coauthors= উপেক্ষা করা হয়েছে (|author= ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে) (সাহায্য)
  2. March, Jerry (১৯৯২)। Advanced organic chemistry: reactions, mechanisms, and structure। John Wiley & Sons। আইএসবিএন 0-471-60180-2 
  3. Gary L. Miessler (২০০৪)। Inorganic chemistry। Prentice Hall। আইএসবিএন 0-13-035471-6  অজানা প্যারামিটার |coauthors= উপেক্ষা করা হয়েছে (|author= ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে) (সাহায্য)
  4. Merriam-Webster – Collegiate Dictionary (2000).
  5. "Bond Lengths and Energies"। Science.uwaterloo.ca। ২০০৭-১২-১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১০-১৫