সঞ্জীব চৌধুরী

বাংলাদেশি গায়ক ও সাংবাদিক

সঞ্জীব চৌধুরী (২৫ ডিসেম্বর, ১৯৬৪ – ১৯ নভেম্বর, ২০০৭) ছিলেন একজন বাংলাদেশি সংগীতশিল্পী ও সাংবাদিক। তিনি বাংলা ব্যান্ডদল দলছুটের প্রতিষ্ঠাতা এবং অন্যতম প্রধান সদস্য ছিলেন। সঞ্জীব দলছুটের চারটি অ্যালবামে কাজ করার পাশাপাশি অনেক গান রচনা ও সুরারোপও করেছেন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

সঞ্জীব চৌধুরী
সঞ্জীব চৌধুরী.jpeg
প্রাথমিক তথ্য
আরো যে নামে
পরিচিত
সঞ্জীব দা
জন্ম(১৯৬৪-১২-২৫)২৫ ডিসেম্বর ১৯৬৪
মাকালকান্দি, বানিয়াচং, হবিগঞ্জ জেলা, বাংলাদেশ
উদ্ভবঢাকা, বাংলাদেশ
মৃত্যু১৯ নভেম্বর ২০০৭(2007-11-19) (বয়স ৪২)
ঢাকা, বাংলাদেশ
ধরনপপ
পেশাসঙ্গীতশিল্পী, সাংবাদিক
বাদ্যযন্ত্রসমূহগিটার
কার্যকাল১৯৯৬-২০০৭
লেবেলজি-সিরিজ
সহযোগী শিল্পীদলছুট

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

সঞ্জীব চৌধুরী ২৫ ডিসেম্বর ১৯৬৪[১] সালে বাংলাদেশের হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার মাকালকান্দি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা গোপাল চৌধুরী এবং মাতা প্রভাষিনী চৌধুরী। নয় ভাই বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন সপ্তম।

শিক্ষাজীবনসম্পাদনা

ছোটবেলায় হবিগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেন ও এরপরে ঢাকার বকশী বাজার নবকুমার ইন্সটিটিউটে নবম শ্রেণিতে এসে ভর্তি হন ও এখান থেকে ১৯৭৮ সালে মাধ্যমিক পরীক্ষায় মেধা তালিকায় ১২তম স্থান অর্জন করেন। ১৯৮০ সালে তিনি ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেও মেধা তালিকায় স্থান করে নেন। এরপর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গণিত বিভাগে ভর্তি হন; কিন্তু বিভিন্ন কারণে তা শেষ না করে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন।

কর্মজীবনসম্পাদনা

তিনি একজন খ্যাতনামা সাংবাদিকও ছিলেন। বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় সংবাদপত্র আজকের কাগজ, ভোরের কাগজযায়যায়দিনে কাজ করেন। তিনি হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদের স্বৈরাচারী শাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলনের একজন কর্মী ছিলেন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

ডিস্কোগ্রাফিসম্পাদনা

সঞ্জীব চৌধুরীর গাওয়া গানসম্পাদনা

বছর শিরোনাম অ্যালবাম টীকা
১৯৯৭ "চোখ" আহ্
২০০০ "আমি তোমাকেই বলে দেবো" হৃদয়পুর দলছুট
২০০০ "চল বুবাইজান" হৃদয়পুর দলছুট
২০০০ "গাড়ি চলে না" হৃদয়পুর দলছুট
২০০০ "আমাকে অন্ধ করে" হৃদয়পুর দলছুট
২০০০ "খুঁজি যখন"
(বাপ্পা মজুমদার সহ)
হৃদয়পুর দলছুট
২০০০ "খোলা আাকাশ" হৃদয়পুর দলছুট
২০০০ "আল্লাহর ওয়াস্তে" হৃদয়পুর দলছুট
২০০৭ "হাতের উপর" জোছনাবিহার দলছুট
২০০৭ "সবুজ খুঁজি"
(বাপ্পা মজুমদার সহ)
জোছনাবিহার দলছুট
২০০৭ "চলতে চলতে" জোছনাবিহার দলছুট
২০০৭ "দিন সারাদিন"
(বাপ্পা মজুমদার সহ)
জোছনাবিহার দলছুট
২০০৭ "ভালো লাগে না" জোছনাবিহার দলছুট
২০০৭ "নোঙরের গল্প" জোছনাবিহার দলছুট
২০০৭ "ধরি মাছ না ছুঁই পানি" জোছনাবিহার দলছুট
"আমি ঘুরিয়া ঘুরিয়া" স্বপ্নবাজী
"হাওয়ারে তুই বাজা নূপুর" স্বপ্নবাজী
"কোথাও বাঁশি"
"অপেক্ষা"
"আমি ফিরে পেতে চাই"
"আমার বয়স হল সাতাশ" বাড়ি ফেরা হল না
"একটি চোখে কাজল" বাড়ি ফেরা হল না
"কালা পাখি"
"গাছ"
"চোখটা এত" বাড়ি ফেরা হল না
"তোমার ভাঁজ খোল আনন্দ দেখাও"
"দিন সারা দিন"
"নৌকা ভ্রমণ"
"বাড়ি ফেরা" বাড়ি ফেরা হল না
"বায়োস্কোপ" বাড়ি ফেরা হল না
"সবুজ যখন"
"সমুদ্র সন্তান"
"সাদা ময়লা"
"সানগ্লাস"
"স্বপ্নবাজি"

মৃত্যুসম্পাদনা

সঞ্জীব চৌধুরী বাইল্যাটারাল সেরিব্রাল স্কিমিক স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছিলেন। নভেম্বর ১৫, ২০০৭ সালে আকস্মিকভাবে অসুস্থ বোধ করার কারণে তাঁকে ঢাকার অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেয়া হয়।[২] তিন দিন পর নভেম্বর ১৯ তারিখে আইসিইউ শাখায় সঞ্জীব চৌধুরী মৃত্যুবরণ করেন।[৩][৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "সঞ্জীব চৌধুরীকে অশ্রু আর ফুলেল শ্রদ্ধায় শেষ বিদায়"। দৈনিক প্রথম আলোমাহফুজ আনাম। নভেম্বর ২০, ২০০৭। পৃষ্ঠা ২০। 
  2. "জীবন-মৃত্যুর মাঝে সঞ্জীব চৌধুরী"। দৈনিক প্রথম আলোমাহফুজ আনাম। নভেম্বর ১৮, ২০০৭। 
  3. "চলে গেলেন সঞ্জীব চৌধুরী"BDNews24.com। নভেম্বর ১৯, ২০০৭। পৃষ্ঠা ১৪। ২৪ মে ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২১, ২০১৬ 
  4. "হৃদয়ে সঞ্জীবদা এবং কিছু কথা..."। নতুন দেশ। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০১৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগসম্পাদনা