শ্যানন গ্যাব্রিয়েল

শ্যানন টেরি গ্যাব্রিয়েল (জন্ম: ২৮ এপ্রিল, ১৯৮৮) ত্রিনিদাদ ও টোবাগোয় জন্মগ্রহণকারী ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার[১] ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। দলে শ্যানন গ্যাব্রিয়েল মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট বোলার হিসেবে ভূমিকা রাখছেন। পাশাপাশি ডানহাতে ব্যাটিং করে থাকেন। ঘরোয়া ক্রিকেটে ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ক্রিকেট দলের প্রতিনিধিত্ব করছেন।

শ্যানন গ্যাব্রিয়েল
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামশ্যানন টেরি গ্যাব্রিয়েল
জন্ম (1988-04-28) ২৮ এপ্রিল ১৯৮৮ (বয়স ৩২)
ত্রিনিদাদ ও টোবাগো
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি fফাস্ট মিডিয়াম
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ২৯৩)
১৭ মে ২০১২ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট২০ মার্চ ২০১৩ বনাম জিম্বাবুয়ে
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০১০-বর্তমানত্রিনিদাদ ও টোবাগো
২০১০-বর্তমানসাগিকর হাই পারফরমেন্স সেন্টার
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি এলএ টি২০আই
ম্যাচ সংখ্যা ৩১ ১১
রানের সংখ্যা ১৩ ১১৮ ১৪
ব্যাটিং গড় ৬.৫০ ৪.৩৭ ৭.০০
১০০/৫০
সর্বোচ্চ রান ১৩ ১৪ ৬*
বল করেছে ৩৫৫ ৪,১৯৯ ৫১৯ ১৮
উইকেট ১০ ৮৩ ১৬
বোলিং গড় ১৭.০০ ২৮.৪৫ ২৩.৫০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/১০ ৫/৭৮ ৪/৩৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/– ৭/–
উৎস: ESPNcricinfo, ১১ এপ্রিল ২০১৩

ঘরোয়া ক্রিকেটসম্পাদনা

২৯ জানুয়ারি, ২০১০ সালে ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ক্রিকেট দলের পক্ষে অভিষেক ঘটে তার।[২] ২০০৯-১০ মৌসুমের আঞ্চলিক চারদিনের প্রতিযোগিতায় লিওয়ার্ড আইল্যান্ডসের বিপক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে রিচার্ড কেলি’র সাথে বোলিং উদ্বোধন করেন। মালি রিচার্ডসকে আউট করে তিনি তার প্রথম উইকেট তুলে নেন। খেলায় তিনি ৪৬ রানে ২ উইকেট নিয়ে দলকে ৪৫ রানের জয়ে ভূমিকা রাখেন। এরপর থেকেই দলের বোলিং আক্রমণে প্রধান দায়িত্ব পালন করছেন।

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

মে, ২০১২ সালে ইংল্যান্ড সফরে রবি রামপাল নাকে আঘাত পাওয়ায় লর্ডসে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক ঘটে।[৩] খেলায় ৮৬ রানের বিনিময়ে তিনি চার উইকেট পান। কিন্তু ঘাড়ে ব্যথা পাওয়ায় তিনি মাত্র পাঁচ ওভার বোলিং করেন ও ইংল্যান্ড সফলভাবে ১৯১ রানের জয়ের লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছে যায়। এরফলে সফর থেকে দেশে ফিরে আসতে বাধ্য হন ও তার স্থলাভিষিক্ত হন টিনো বেস্ট।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Shannon Gabriel player profile"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৮ মে ২০১২ 
  2. "Shannon Gabriel player summary"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৮ মে ২০১২ 
  3. Collomosse, Tom (১৭ মে ২০১২)। "Windies show some fight after Jimmy Anderson leads the way again"London Evening Standard। সংগ্রহের তারিখ ১৮ মে ২০১২ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা