প্রধান মেনু খুলুন

শিবলি সাদিক

বাংলাদেশী চলচ্চিত্র পরিচালক

শিবলি সাদিক (জানুয়ারি ৯, ১৯৪১ - জানুয়ারি ৭, ২০১০) জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও বাচসাস পুরস্কারজয়ী বাংলাদেশী প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক।

শিবলি সাদিক
জন্ম(১৯৪১-০১-০৯)৯ জানুয়ারি ১৯৪১
মঙ্গলবাড়ি, নওগাঁ, ব্রিটিশ ভারত
মৃত্যু৭ জানুয়ারি ২০১০(2010-01-07) (বয়স ৬৮)
সেন্ট্রাল হাসপাতাল, ঢাকা, বাংলাদেশ
সমাধিউত্তরা, ঢাকা, বাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
পেশাচলচ্চিত্র পরিচালক, চিত্রনাট্যকার, সংলাপ রচয়িতা, অভিনেতা
কার্যকাল১৯৭৩–২০১০
উল্লেখযোগ্য কর্ম
দোলনা, আনন্দ অশ্রু, অন্তরে অন্তরে
আত্মীয়খসরু নোমান (ভাই)
পুরস্কারজাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার
বাচসাস পুরস্কার

পরিচ্ছেদসমূহ

কর্মজীবনসম্পাদনা

শিবলি সাদিক মস্তাফিজুর রহমানের সহকারী হিসেবে চলচ্চিত্রে পদারপন করেন। তার পরিচালিত উল্লেখযোগ্য ছবিগুলো হচ্ছে নোলক, জীবন নিয়ে জুয়া, তিনকন্যা, দোলনা, ভেজা চোখ, অচেনা, মা মাটি দেশ, আনন্দ অশ্রু, মায়ের অধিকার, অন্তরে অন্তরে। ২০০৬ সালে তার পরিচালিত সর্বশেষ ছায়াছবি বিদেশিনী মুক্তি পায়। [১]

চলচ্চিত্রের তালিকাসম্পাদনা

মুক্তির সাল চলচ্চিত্রের শিরোনাম পরিচালক চিত্রনাট্যকার সংলাপ রচয়িতা অভিনেতা টীকা
বালা প্রথম পরিচালিত চলচ্চিত্র, সৈয়দ আওয়ালের সঙ্গে যৌথভাবে
শীত বসন্ত একক পরিচালনায় প্রথম চলচ্চিত্র
১৯৮৫ মহানায়ক হ্যাঁ
সুরুজ মিয়া হ্যাঁ
১৯৮৭ সারেন্ডার হ্যাঁ
১৯৮৮ ভেজা চোখ হ্যাঁ
১৯৯০ দোলনা হ্যাঁ হ্যাঁ বিজয়ী শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার
১৯৯১ অচেনা হ্যাঁ হ্যাঁ হ্যাঁ
১৯৯২ ত্যাগ হ্যাঁ হ্যাঁ
১৯৯৪ অন্তরে অন্তরে হ্যাঁ হ্যাঁ
১৯৯৬ মায়ের অধিকার হ্যাঁ হ্যাঁ
১৯৯৭ আনন্দ অশ্রু হ্যাঁ হ্যাঁ
২০০৬ বিদেশিনী হ্যাঁ সর্বশেষ পরিচালিত চলচ্চিত্র, সরকারি অনুদানে নির্মিত

মৃত্যুসম্পাদনা

শিবলি সাদিক দীর্ঘদিন রগে ভোগে ২০১০ সালের ৭ জানুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন। জানাজা শেষে তাকে উত্তরায় দাফন করা হয়।[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "শিবলী সাদিক আর নেই"দৈনিক ডেসটিনি। ঢাকা, বাংলাদেশ। ৮ জানুয়ারি ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 
  2. "চলচ্চিত্র পরিচালক শিবলী সাদিক আর নেই"দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা, বাংলাদেশ। ৭ জানুয়ারি ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা