শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়াম

বাংলাদেশের একটি স্টেডিয়াম

শহীদ কামারুজ্জামান স্টেডিয়াম বাংলাদেশের রাজশাহী জেলায় অবস্থিত একটি স্টেডিয়াম। এটি জাতীয় নেতা মোহাম্মদ কামারুজ্জামানের নামে নামকরণ করা হয়। এটি পূর্বে রাজশাহী বিভাগীয় স্টেডিয়াম নামে পরিচিত ছিল

শহীদ কামারুজ্জামান স্টেডিয়াম
রাজশাহী বিভাগীয় স্টেডিয়াম
Shaheed Kamruzzaman Stadium (29273929866).jpg
শহীদ কামারুজ্জামান স্টেডিয়াম
পূর্ণ নামশহীদ এ. এইচ. এম. কামারুজ্জামান স্টেডিয়াম
অবস্থানরাজশাহী, বাংলাদেশ
স্থানাঙ্ক২৪°২২′৫২.৬৮″ উত্তর ৮৮°৩৫′২৭.৯৮″ পূর্ব / ২৪.৩৮১৩০০০° উত্তর ৮৮.৫৯১১০৫৬° পূর্ব / 24.3813000; 88.5911056
মালিকজাতীয় ক্রীড়া পরিষদ[১]
পরিচালকজাতীয় ক্রীড়া পরিষদ[১]
ধারণক্ষমতা১৫,০০০
আয়তন১৮৬ মিঃ x ১৩৮ মিঃ
উপরিভাগঘাস
নির্মাণ
নির্মাণাধীন২০০৪
উদ্বোধন২০০৪ (2004)
ভাড়াটে
বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল
দুরন্ত রাজশাহী
২০১৬ সালে শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়াম।

স্টেডিয়ামের ধারণ ক্ষমতা ৩৫,০০০ এবং এটি প্রতিষ্ঠা করা হয় ২০০৪ সালে। স্টেডিয়ামটি প্রধানত ক্রিকেটের জন্য ব্যবহৃত হয়।[২]

ইতিহাসসম্পাদনা

স্টেডিয়ামটি ২০০৪ সালে নির্মিত হয় ও এর ধারণক্ষমতা ১৫,০০০। এই স্টেডিয়ামে ২০০৪ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের তিনটি গ্রুপ পর্বের ম্যাচ এবং ২০১০ সালের দক্ষিণ এশীয় গেমসের চারটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।

দর্শক ধারণক্ষমতা বাড়ানোর জন্য এবং মাঠের বড় উন্নতি করার জন্য সম্প্রতি স্টেডিয়ামটি সরকারের কাছ থেকে তহবিল পায়। এটি বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের সবচেয়ে বড় স্টেডিয়াম। এটি জাতীয় ক্রিকেট লিগে রাজশাহী বিভাগের হোম গ্রাউন্ড। এই স্টেডিয়ামের পাশে ক্লেমন ক্রিকেট একাডেমী অবস্থিত।

চিত্রশালাসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুন ২০১৬ 
  2. "Shaheed Kamruzzaman Stadium"। ESPN Cricinfo। 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা