শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান সরকারি ডিগ্রি কলেজ

রাজশাহী নগরীর অন্যতম সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

শহীদ এ এইচ এম কামারুজ্জামান ডিগ্রি কলেজ রাজশাহী নগরীর অন্যতম সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। রাজশাহীর কৃতি সন্তান ও জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ এ এইচ এম কামারুজ্জামানের স্মৃতির প্রতি সম্মান রেখে এর নামকরণ করা হয়।[১]

শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান সরকারি ডিগ্রি কলেজ
শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান সরকারি ডিগ্রি কলেজ.jpg
ধরনসরকারি
স্থাপিত১৯৯৪
অন্যান্য শিক্ষার্থী
উচ্চ মাধ্যমিক
ঠিকানা
উপশহর, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন
, ,

ইতিহাসসম্পাদনা

১৯৯৪ সালে রাজশাহী মহানগরীর উপশহর এলাকার কিছু বেকার যুবক হাউজিং স্টেটের জমি নিয়ে কলেজটি প্রতিষ্ঠা করে। ২০১২ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে শিক্ষামন্ত্রনালয় এর নামকরণের বিষয়টি অনুমোদন দেয়। সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা এই কলেজের সভাপতি।[১]

জাতীয়করণসম্পাদনা

২০১৩ সালে প্রতিষ্ঠানটি জাতীয়করনের মধ্য দিয়ে রাজশাহী শহরে আরো একটি সরকারি কলেজ এর যাত্রা শুরু হয়।[১] নগরীর শহীদ এ এইচ এম কামারুজ্জামান ডিগ্রি কলেজ জাতীয়করণ রাজশাহীর শিক্ষা ক্ষেত্রে একটি বড় অর্জন।

অবকাঠামোসম্পাদনা

 
শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান সরকারি ডিগ্রি কলেজ ভবন

পরিচালনাসম্পাদনা

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "সাংসদ বাদশার ঐকান্তিক চেষ্টায় সরকারি হলো শহীদ কামারুজ্জামান ডিগ্রি কলেজ"সোনালি সংবাদ। কাদিরগঞ্জ, গ্রেটার রোড, রাজশাহী, বাংলাদেশ। ২৮ অক্টোবর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৪-২৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]