শহীদ উল্লা খন্দকার

মোঃ শহীদ উল্লা খন্দকার একজন বাংলাদেশি অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা যিনি সর্বশেষ গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।[১][২]

শহীদ উল্লা খন্দকার
সচিব
গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়
কাজের মেয়াদ
১৫ মার্চ ২০১৬ – ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২
প্রধানমন্ত্রীশেখ হাসিনা
উত্তরসূরীকাজী ওয়াছি উদ্দিন
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মনারিকেলবাড়ী গ্রাম, কোটালীপাড়া উপজেলা, গোপালগঞ্জ জেলা
জাতীয়তাবাংলাদেশী
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
প্রাক্তন শিক্ষার্থীব্রজমোহন কলেজ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

জন্ম ও প্রাথমিক জীবন

সম্পাদনা

শহীদ উল্লা খন্দকার গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ার নারিকেলবাড়ী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি নারিকেলবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, বিএম কলেজ থেকে এইচএসসি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন করেন।

কর্মজীবন

সম্পাদনা

শহীদ উল্লা ২১ জানুয়ারি ১৯৮৬ সালে বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারে চাকরিতে যোগদান করে প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা হিসেবে সহকারী কমিশনার, উপজেলা ম্যাজিস্ট্রেট, কগনিজেন্স ম্যাজিস্ট্রেট, নেজারত ডেপুটি কালেক্টর, রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর ও থানা নির্বাহী কর্মকর্তা সহ সরকারি বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি উপসচিব, যুগ্মসচিব ও অতিরিক্ত সচিব হিসেবে অর্থ মন্ত্রণালয়, তথ্য মন্ত্রণালয় এবং গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সালে পদোন্নতি পেয়ে ভারপ্রাপ্ত সচিব হিসেবে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগে যোগদান করেন।

২ মার্চ ২০১৫ সালে সচিব হিসেবে পদোন্নতি পেয়ে ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ সালে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ে যোগদান করেন। এর পর ১৫ মার্চ ২০১৬ থেকে ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করে অবসরোত্তর ছুটির পর ২৭ আগস্ট ২০১৯ সালে পুনরায় তাকে একই মন্ত্রণালয়ে চুক্তি ভিত্তিক নিয়োগ দেয়া হয়।[২][৩] ৫ বছর চুক্তিভিত্তিক দায়িত্ব পালনের পর ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২ সালে তিনি অবসরে যান। শহীদ উল্লা খন্দকার ২৬ অক্টোবর ২০২২ সালে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনি এলাকা গোপালগঞ্জ-৩ (কোটালীপাড়া-টুঙ্গিপাড়া) আসনের উন্নয়ন কার্যক্রম তদারকির দায়িত্ব পালনের জন্য প্রতিনিধি হিসেবে মনোনয়ন পেয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব-১ মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিনের স্বাক্ষরিত এক পত্রে এ মনোনয়নের কথা জানানো হয়েছে।[৪]

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "সচিব মহোদয়ের জীবনবৃত্তান্ত"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ২৫ মার্চ ২০১৯। ২২ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারী ২০২০ 
  2. "চুক্তিতে আরো দুই বছর গৃহায়ণের সচিব থাকছেন শহীদ উল্লা"বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম। ২৮ আগস্ট ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০২০ 
  3. Dhakatimes24.com। "অবসরে গেলেন গৃহায়ণ সচিব শহীদ উল্লা"Dhakatimes News। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-২২ 
  4. "প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনি এলাকায় উন্নয়ন তদারকির দায়িত্ব পেলেন শহীদ উল্লা খন্দকার"www.jugantor.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-১১-০৩