লোকনাথ ভট্টাচার্য

বাঙালি লেখক

লোকনাথ ভট্টাচার্য ( ৯ অক্টোবর ১৯২৭ – ২৩ মার্চ ২০০১) ছিলেন কবি, গবেষক, ফরাসি ভাষায় অভিজ্ঞ ও অনুবাদক।[১] তিনি ফরাসি  কবি আর্তুর  র‌্যাঁবোর (Arthur Rimbaud) 'মাতাল তরণী' ও 'নরকে এক ঋতু' বাংলায় অনুবাদ করে খ্যাতি লাভ করেন। [২] জীবৎকালে তাঁর রচিত কুড়িটি বই ফরাসি ভাষায় অনূদিত হয় এবং ফ্রান্সে সমাদৃত ও আলোচিত হয়। ‘’বাবুঘাটের কুমারী মাছ’’ উপন্যাসটি ইংরেজীতে অনূদিত হয় [১] এবং তিনি ফ্রান্সে একাধিক পুরস্কার লাভ করেন।   

লোকনাথ ভট্টাচার্য
জন্ম(১৯২৭-১০-০৯)৯ অক্টোবর ১৯২৭
ভাটপাড়া,কলকাতা, উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা,পশ্চিমবঙ্গ
মৃত্যু২৩ মার্চ ২০০১(2001-03-23) (বয়স ৭৩)
কায়রো মিশর
পেশাকবি, ঔপন্যাসিক ও অনুবাদক
জাতীয়তাভারতীয়
বিষয়কবিতা বাংলা সাহিত্য
দাম্পত্যসঙ্গীফ্রাঁস মঁতেরু ভট্টাচার্য
সন্তান

জন্ম ও শিক্ষাজীবন সম্পাদনা

লোকনাথ ভট্টাচার্যের জন্ম ১৯২৭ খ্রিস্টাব্দের ৯ই অক্টোবর বৃটিশ ভারতের অধুনা পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার ভাটপাড়ার এক রক্ষণশীল ব্রাহ্মণ পরিবারে। পিতা অধ্যাপক শিবপ্রসাদ ভট্টাচার্য। প্রথমে সংস্কৃত শিখে ১৯৪৫ খ্রিস্টাব্দে আইএ পাশ করে ভর্তি হন শান্তিনিকেতনে। তারপর কলকাতার আলিয়ঁস ফ্রঁসেজে ১৯৫০ খ্রিস্টাব্দ থেকে ফরাসি ভাষা শিক্ষা শুরু করেন। ১৯৫৩ খ্রিষ্টাব্দে ফরাসি সরকারের বৃত্তি নিয়ে যান প্যারিসে। প্যারিস বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণায় লিপ্ত হন। তার গবেষণার মূল বিষয় ছিল বৌদ্ধ-সংস্কৃতে লেখা এক ডাকিনীতন্ত্রের পুঁথির ফরাসি অনুবাদ ও তার ব্যাখ্যাসহ উপস্থাপনা। ১৯৫৬ খ্রিস্টাব্দে ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন। সংস্কৃতে পিএইচডি করার সময় বিদুষী ফরাসিনী ফ্রাঁস মঁতেরুর প্রেমে পড়েন এবং বিবাহ করেন। মঁতেরুই পরে তাঁর  ফরাসি দেশ ও বাংলা ভাষাসাহিত্যের প্রধান যোগসূত্র হন।

কর্মজীবন সম্পাদনা

১৯৫৬ খ্রিস্টাব্দে দেশে ফিরে নেফায় নাগা ট্রাইবালদের মধ্যে সংগীত ও নৃত্যের রক্ষণাবেক্ষণের চাকরিতে যোগ দেন। পরে কিছু দিন পুদুচেরিতে কাটিয়ে ১৯৬১ খ্রিস্টাব্দে থেকে ‘স্প্যান’ পত্রিকায় যুক্ত হন। ১৯৬৩  মলিয়েরের ‘তার্ত্যুফ’ অনুবাদ করেন। ১৯৬৫ খ্রিস্টাব্দে সাহিত্য অকাদেমির ইংরাজী মুখপত্র ‘ইন্ডিয়ান লিটারেচার’ পত্রিকার সম্পাদক হন এবং সাত বছর সম্পাদনা করেন। ১৯৭২ খ্রিস্টাব্দ হতে ন্যাশনাল বুক ট্রাস্টে যোগ দেন এবং ১৯৮১ খ্রিস্টাব্দে এর ডিরেক্টর হন। ভারত সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক দপ্তরে কর্মরত থাকার কারণে একসময় বেলজিয়াম, রুমানিয়া, যুগোশ্লাভিয়া ভ্রমণ করেন। জীবনের শেষ দশকটি  ফ্রান্সে স্ত্রীর সাথে অতিবাহিত করেন।

সাহিত্যকর্ম সম্পাদনা

ফরাসি ভাষায় লোকনাথের বিশেষ ব্যুৎপত্তিতে ফরাসি কবিতা ও সাহিত্য বাংলায় অনুবাদে এবং বাংলা সাহিত্য ফরাসি ভাষায় অনুবাদে সাবলীল ছিলেন তিনি। ফ্রান্সে অবস্থানকালে তিনি খ্যাতনামা  ফরাসি কবি আর্তুর র‌্যাঁবোর (Arthur Rimbaud)  বহু কবিতা বাংলায় অনুবাদ করেন এবং ১৯৫৪ খ্রিস্টাব্দে কবির জন্মশতবর্ষের বছরে তার অনুবাদের বই এবং তার উল্লেখযোগ্য উপন্যাস নরকে এক ঋতু প্রকাশ পায়। সেসময়  তার কিছু গুচ্ছ কবিতা বুদ্ধদেব বসুর কবিতা পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিল। অনুরূপ ভাবে, গান্ধী শতবার্ষিকী উপলক্ষে রোম্যাঁ রোলাঁর ভারত-দিনলিপির কিছু অংশ গান্ধী-রোমাঁ রোলার দৃষ্টি নামে ফরাসি ভাষা থেকে বাংলায় অনুবাদ করেন। নোবেলজয়ী ফরাসি কবি লুই আরাগোঁর (Louis Aragon) অনুরোধে তাঁর লের্ত্র ফ্রাসেজ পত্রিকায় "সূর্য সেন" ছদ্মনামে তার কবিতার ফরাসি অনুবাদ ছাপা হয়েছিল। ফরাসি সরকারের সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে তিনি প্যারিসে যান এবং অঁরি মিশোর (Henri Michaux) কবিতা বাংলায় অনুবাদ করেন।  লোকনাথের কবিতা সংকলন চারটি খণ্ডে, তিনটি নাটক, দুটি ছোট গল্প সংগ্রহ প্রকাশিত হয়েছে।

লোকনাথ ভট্টাচার্যের স্ত্রী ফ্রাঁস মঁতেরু ভট্টাচার্য বাংলা সাহিত্যের বিশিষ্ট ফরাসি অনুবাদক ছিলেন। তার অনুবাদে বঙ্গপ্রকৃতির স্নেহস্পর্শের কাহিনিতে মুগ্ধ হয়েছিল ফরাসি পাঠক। প্যারিস বিশ্ববিদ্যালয়ের এই ইমেরিটাস প্রফেসর ছিলেন ফ্রান্সের প্রাচ্যভাষা শিক্ষার শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠানের ভাইস প্রেসিডেন্ট। তিনি ফরাসিতে অনুবাদ করেছেন বাংলার অন্নদামঙ্গল, চণ্ডীমঙ্গল। এ ছাড়াও পথের পাঁচালীকপালকুণ্ডলা, আনন্দমঠ, চার অধ্যায়চারুলতা  যোগাযোগ, নষ্টনীড়-এর অনুবাদক তিনি। — তারাশঙ্কর, জীবনানন্দেরও রচনা অনুবাদ করেছেন। লিখেছেন বিদ্যাসাগরের জীবনী, ঊনিশ শতকের শ্রেষ্ঠ বাঙালিদের চিন্তার ইতিহাস। রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় ২০১২ খ্রিস্টাব্দে তাকে সাম্মানিক ডি লিট-এ ভূষিত করেছিল। [৩]

উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ সম্পাদনা

উপন্যাস
  • নরকে এক ঋতু ১৯৫৪ (অনুবাদ)
  • ভোর ১৯৬৬
  • যত দ্বার তত অরণ্য ১৯৬৬
  • দুয়েকটি ঘর, দুয়েকটি স্বর ১৯৬৭
  • বাবুঘাটের কুমারী মাছ ১৯৭২
  • থিয়েটার আরম্ভ সাড়ে সাতটায় ১৯৮৩
  • অশ্বমেধ ১৯৯৭
  • গঙ্গাবতরণ ১৯৯৮
  • এবং মুশায়েরা ১৯৯৯
নাটক
  • চক্র
  • এক রাত্রি এক নারী
গল্পগ্রন্থ -
  • প্রেম ও পাথর
  • আপনার কীর্তি

সম্মাননা সম্পাদনা

১৯৯৯ খ্রিস্টাব্দে ফরাসি সরকার তাঁকে ‘কমান্ডার অফ আর্ট্‌স্‌ অ্যান্ড লেটার্‌স্‌’ উপাধিতে ভূষিত করে।[৪]

জীবনাবসান সম্পাদনা

লোকনাথ ভট্টাচার্য ১৯৮৯ খ্রিস্টাব্দ থেকে ছিলেন প্যারিসবাসী। কিন্তু দুঃখের বিষয়, স্বদেশ ও বিদেশে তাকে সারাজীবন পরদেশী হয়ে থেকে যেতে হয়েছে। ২০০১ খ্রিস্টাব্দের ২৩ মার্চ মিশরের কায়রোতে মর্মান্তিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় তার গাড়ি নীলনদে পড়ে যায় এবং তাঁর মৃত্যু হয়।

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1.   অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, দ্বিতীয়  খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, জানুয়ারি   ২০১৯ পৃষ্ঠা ৩৬৩, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-২৯২-৬
  2. শিশিরকুমার দাশ (২০১৯)। সংসদ বাংলা সাহিত্যসঙ্গী। সাহিত্য সংসদ, কলকাতা। পৃষ্ঠা ২০১। আইএসবিএন 978-81-7955-007-9 
  3. "কলকাতার কড়চা- তনিষ্ঠা"। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-১২-০৫ 
  4. "ফরাসি কবিতার বাঙালি রাজকুমার"। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-১২-০৫ 

বহিঃসংযোগ সম্পাদনা