লক্ষণাবন্দ ইউনিয়ন

সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জ উপজেলার একটি ইউনিয়ন

লক্ষণাবন্দ ইউনিয়ন বাংলাদেশের সিলেট জেলার গোলাপগঞ্জ উপজেলার অন্তর্গত একটি ইউনিয়ন[১][২]

লক্ষণাবন্দ
ইউনিয়ন
ইউনিয়ন পরিষদ ভবন
ইউনিয়ন পরিষদ ভবন
লক্ষণাবন্দ সিলেট বিভাগ-এ অবস্থিত
লক্ষণাবন্দ
লক্ষণাবন্দ
লক্ষণাবন্দ বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
লক্ষণাবন্দ
লক্ষণাবন্দ
বাংলাদেশে লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°৪৬′৩১.০০১″ উত্তর ৯১°৫৯′১২.৯৯৮″ পূর্ব / ২৪.৭৭৫২৭৮০৬° উত্তর ৯১.৯৮৬৯৪৩৮৯° পূর্ব / 24.77527806; 91.98694389স্থানাঙ্ক: ২৪°৪৬′৩১.০০১″ উত্তর ৯১°৫৯′১২.৯৯৮″ পূর্ব / ২৪.৭৭৫২৭৮০৬° উত্তর ৯১.৯৮৬৯৪৩৮৯° পূর্ব / 24.77527806; 91.98694389 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগসিলেট বিভাগ
জেলাসিলেট জেলা
উপজেলাগোলাপগঞ্জ উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
আয়তন
 • মোট২,৭৬৮ হেক্টর (৬,৮৪১ একর)
জনসংখ্যা
 • মোট৩১,৩৭৬
 • জনঘনত্ব১,১০০/বর্গকিমি (২,৯০০/বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৫৪.৪০%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৩১০৮ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৬০ ৯১ ৩৮ ৬৯
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
মানচিত্র

ইতিহাসসম্পাদনা

লক্ষণাবন্দ ইউনিয়ন ১৯৬০ সালে ঢাকা দক্ষিণ মৌজার বিদাইটিকর গ্রামের টিলার উপর চৌধুরী বাজারের পাশে প্রথমে ইউনিয়ন কাউন্সিল নামে প্রতিষ্ঠিত হয়। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে রাষ্ট্রপতির আদেশ নং ০৭/১৯৭২ সালে ইউনিয়ন কাউন্সিল বাতিল করে ইউনিয়ন পঞ্চায়েত গঠন করা হলে প্রশাসক নিয়োগ দেয়া হয়। ১৯৭৩ সালে রাষ্ট্রপতির আদেশ ২২/১৯৭৩ অনুযায়ী লক্ষণাবন্দ ইউনিয়ন পঞ্চায়েত নাম পরিবর্তন করে নামকরণ করা হয় লক্ষণাবন্দ ইউনিয়ন পরিষদ।[৩]

অবস্থান ও সীমানাসম্পাদনা

লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের পূর্ব দিকে ঢাকাদক্ষিণভাদেশ্বর ইউনিয়ন , পশ্চিমে লক্ষ্মীপাশা ইউনিয়ন, উত্তরে লক্ষ্মীপাশাঢাকাদক্ষিণ ইউনিয়ন, দক্ষিণে ধামড়ির হাওর অবস্থিত। উপজেলা সদর থেকে ইউনিয়নের দূরত্ব ৯ কিলোমিটার। ইউনিয়নের প্রধান ব্যবসা কেন্দ্র হচ্ছে পুরকায়স্থ বাজার ও চৌধুরী বাজার। [৪]

গ্রাম সমূহসম্পাদনা

উল্লেখযোগ্য গ্রাম সমূহ- উত্তরগাঁও, পশ্চিম পাড়া, ভুটিরা পাড়া, ইসলামাবাদ, নিলামপাড়া, নোয়াই, মোল্লাটিকর, মাদারখা, বিদাইটিকর, চক্রবর্তীপাড়া, মাইজপাড়া, পুরকায়স্থ পাড়া, ভঙ্গাপাড়া, নিশ্চিন্ত, মুকিতলা, ফুলতলা, দক্ষিণভাগ, করগাও, ফুলসাইন্দ, বখতিয়ারঘাট, পুরান পাড়া।[১]

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসম্পাদনা

উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

আয়তনসম্পাদনা

 
মানচিত্রে [[লক্ষণাবন্দ ইউনিয়ন]]

লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের আয়তন ২৪ স্কয়ার কি.মি।[১]

জনসংখ্যাসম্পাদনা

২০১১ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী লক্ষণাবন্দ ইউনিয়নের লোকসংখ্যা ১৯৬৭২ জন এর মধ্যে পুরুষ- ১০২০৬ ও মহিলা- ৯৪৪৬ জন। ১৮,৬৩৩ জন ভোটারের মধ্যে পুরুষ ৯,২৬৭ জন ও মহিলা ৯,৩৬৬ জন।[২]

জনগোষ্ঠীর আয়ের উৎসসম্পাদনা

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ৩৪.০৫%, অকৃষি শ্রমিক ৬.০৩%, শিল্প ০.৯৪%, ব্যবসা ১৪.৬৪%, পরিবহন ও যোগাযোগ ৪.০১%, চাকরি ৬.১৬%, নির্মাণ ২.৮৮%, ধর্মীয় সেবা ০.৫৮%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিটেন্স ১৮.৩৪% এবং অন্যান্য ১২.৩৭%।[২]

মোট জমিসম্পাদনা

৫৬৭৫ একর। কৃষিভূমির ভূমিমালিক ৪২.৭৬%, ভূমিহীন ৫৭.২৪%। শহরে ২৭.৯৮% এবং গ্রামে ৪৩.৯১%। প্রধান কৃষি ফসল ধান, কচু, সুপারি, বরবটি, মিষ্টি কুমড়া, মরিচ। বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসলাদি সরিষা, তিল, তিসি।[৩]

প্রধান রপ্তানিদ্রব্যসম্পাদনা

স্বাস্থ্যকেন্দ্রসম্পাদনা

  • ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্র,
  • স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র,
  • কমিউনিটি ক্লিনিক,
  • মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র,

এনজিওসম্পাদনা

  • ব্যাংক এশিয়া
  • ব্র্যাক ব্যাংক

উল্লেখযোগ্য স্থানসম্পাদনা

 
প্রকৃতির সুন্দর্যের লিলা ভূমি সিলেটের কৈলাশ টিলার মাজারের গুহা।[৩]
 
বাংলাদেশ স্কাউটস সিলেট আঞ্চলিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র।[২]

শিল্প-কলকারখানা ও কুটিরশিল্পসম্পাদনা

  • আইসক্রিম ফ্যাক্টরি
  • বেকারি
  • পলিথিন ব্যাগ কারখানা
  • কুটির শিল্প

দর্শনীয় স্থানসম্পাদনা

ইউনিয়ন চেয়ারম্যানগণের তালিকাসম্পাদনা

বর্তমান চেয়ারম্যান: মো: নছিরুল হক শাহীন

ক্রম নং চেয়ারম্যানের নাম সময়কাল
০১ মৌলভী সমছুল হক
০২ নগেন্দ্র কুমার চৌধুরী
০৩ পীর আলতাফুর রহমান
০৪ মজির উদ্দিন
০৫ আব্দুল হান্নান
০৬ হাছিবুর রহমান
০৭ সুরুজ আলী
০৮ মো: নছিরুল হক শাহীন[১] ২০০৩-বর্তমান

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. লক্ষণাবন্দ ইউনিয়ন বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন
  2. বাংলাপিডিয়া। "লক্ষণাবন্দ ইউনিয়ন" 
  3. গোলাপগঞ্জের ইতিহাস ও ঐতিহ্য - আনোয়ার শাহজাহান, প্রকাশকাল. প্রথম প্রকাশ নভেম্বর ১৯৯৬
  4. "লক্ষণাবন্দ ইউনিয়ন" 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা