র‍্যান্ডি কোয়াইড

মার্কিন অভিনেতা

র‍্যান্ডি র‍্যান্ডাল রুডি কোয়াইড[৪] (ইংরেজি: Randy Randall Rudy Quaid; জন্ম: ১ অক্টোবর ১৯৫০) হলেন একজন মার্কিন চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন অভিনেতা। তিনি গুরুগম্ভীর নাট্যধর্মী ও হালকা মাত্রার হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য প্রসিদ্ধ। তিনি দ্য লাস্ট ডিটেইল (১৯৭৩) চলচ্চিত্রে তার কাজের জন্য শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কার, গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারবাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। ১৯৭৮ সালে তিনি মিডনাইট এক্সপ্রেস চলচ্চিত্রে একজন কয়েদী চরিত্রে অভিনয় করেন।

র‍্যান্ডি কোয়াইড
Randy Quaid
Randy Quaid.jpg
২০০৮ সালে কোয়াইড
জন্ম
র‍্যান্ডি র‍্যান্ডাল রুডি কোয়াইড[১][২]

(1950-10-01) অক্টোবর ১, ১৯৫০ (বয়স ৬৯)
মাতৃশিক্ষায়তনহিউস্টন বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাঅভিনেতা
কর্মজীবন১৯৭১–বর্তমান
উচ্চতা৬ ফুট ৪ ইঞ্চি[৩]
দাম্পত্য সঙ্গী
সন্তান
আত্মীয়

কোয়াইড আ স্ট্রিটকার নেমড ডিজায়ার (১৯৮৪) টেলিভিশন চলচ্চিত্রে অভিনয় করে প্রাইমটাইম এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তিনি এলবিজি: দ্য আর্লি ইয়ার্স (১৯৮৭) চলচ্চিত্রে মার্কিন রাষ্ট্রপতি লিন্ডন বি. জনসন চরিত্রে অভিনয় করে মিনি ধারাবাহিক বা টেলিভিশন চলচ্চিত্র অভিনেতা একটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার অর্জন করেন এবং একটি এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। এছাড়া তিনি এলভিস (২০০৫) মিনি ধারাবাহিকে অভিনয় করে একটি স্যাটেলাইট পুরস্কার অর্জন করেন এবং গোল্ডেন গ্লোব ও এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

কোয়াইড ১৯৫০ সালের ১লা অক্টোবর টেক্সাসের হিউস্টনে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা উইলিয়াম রুডি কোয়াইড (২১ নভেম্বর ১৯২৩ - ৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৭) ছিলেন একজন ইলেকট্রিশিয়ান এবং মাতা জুয়ানিতা "নিতা" বনিয়েদেল ছিলেন একজন আবাসন ব্যবসায়ের প্রতিনিধি।[৫] কোয়াইডের পূর্বপুরুষগণ ইংরেজ, স্কটস-আইরিশ ও ক্যাজুন ছিলেন।[৬] তার পিতার দিক থেকে তিনি জিন অট্রির চাচাতো ভাই।[৭] কোয়াইড টেক্সাসের হিউস্টনের একটি ছোট শহর বেলায়ারে বেড়ে ওঠেন। তার বড় ভাই অভিনেতা ডেনিস কোয়াইড

কর্মজীবনসম্পাদনা

কোয়াইডের প্রথম সফল ও সমাদৃত কাজ ছিল দ্য লাস্ট ডিটেইল (১৯৭৩)। এই চলচ্চিত্রে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরুণ নাবিক ল্যারি মিডোস চরিত্রে অভিনয় করেন এবং মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেন জ্যাক নিকোলসন[৮] তার এই কাজের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কার, গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারবাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। ১৯৭৬ সালে তিনি মার্লোন ব্র্যান্ডোর সাথে দ্য মিজুর ব্রেকস চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। ১৯৭৮ সালে তিনি তুরস্কে মার্কিনী ও ইংরেজদের বন্দীদশার সত্য-ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত অ্যালান পার্কারের মিডনাইট এক্সপ্রেস চলচ্চিত্রে একজন কয়েদী চরিত্রে অভিনয় করেন।[৯]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Person details for Randall Rudy Quaid"। ফ্যামিলিসার্চ। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৯ 
  2. কিম, সুজানা (নভেম্বর ১৭, ২০১০)। "Randy and Evi Quaid Forfeit $1Million in Bail"এবিসি নিউজ। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৯... the Quaids, listed in their 2000 Los Angeles bankruptcy filing as Randall R. Quaid and Evzenya H. Quaid ... 
  3. সেলস, ন্যান্সি জো (জানুয়ারি ২০১১)। "The Quaid Conspiracy"ভ্যানিটি ফেয়ার 
  4. "Randy Quaid (@RandyRRQuaid) Twitter"twitter.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৯ 
  5. "Randy Quaid"। বায়োগ্রাফি। ২৩ মার্চ ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৯ 
  6. ইনসাইড দি অ্যাক্টরস স্টুডিও অনুষ্ঠানের সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন।
  7. জর্জ-ওয়ারেন, হলি (৭ মে ২০০৭)। Public Cowboy No. 1: The Life and Times of Gene Autry (ইংরেজি ভাষায়)। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস। পৃষ্ঠা ৩০৪। আইএসবিএন 978-0-19-803947-1। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৯ 
  8. ক্যানবি, ভিনসেন্ট (ফেব্রুয়ারি ১১, ১৯৭৪)। "Last Detail a Comedy of Sailors on Shore"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৯ 
  9. "Midnight Express" (ইংরেজি ভাষায়)। টার্নার ক্লাসিক মুভিজ। সংগ্রহের তারিখ ১ অক্টোবর ২০১৯ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা