রাসূলের নামাযের বৈশিষ্ট্য (বই)

নবীর নামাযের বর্ণনা (আরবি: صفة صلاة النبي, সিফাতুস সালাতুন নবী) যা বাংলায় রাসুলুল্লাহ (সাঃ) এর নামাজ/সালাত সম্পাদন পদ্ধতি নামে পরিচিত, হলো মুহাম্মাদ নাসিরুদ্দিন আল-আলবানী রচিত একটি ইসলামী বই।[১] এই বইয়ে নামাজের পদ্ধতি অনুসারে সাজানো হয়েছে, এর শুরু থেকে কেবলামুখী হওয়া, দাঁড়ানো এবং তাকবীর বলা এবং নামাজের শেষ পর্যন্ত বর্ণনা রয়েছে। বইতে উল্লেখিত হাদিসগুলো উদ্ধৃত করে নামাযের প্রতিটি গুণের হুকুম নির্দেশ করা, তা ফরয হোক বা ওয়াজিব হোক, সেগুলো বর্ণনা করা হয়েছে। এতে ফুকাহাদের কথা উল্লেখ করা হয়েছে, যাদের উপর তিনি তার চিন্তাধারাকে শক্তিশালী করার জন্য এই বিষয়ে নির্ভর করেছিলেন। এসব বিষয়াদির প্রমাণ নিয়ে এই বইতে আলোচনা করেছেন।

صفة صلاة النبي من التكبير إلى التسليم كأنك تراها
নবীর নামাযের বৈশিষ্ট্য
লেখকমুহাম্মদ নাসিরুদ্দীন আল-আলবানী
মূল শিরোনামআরবি: صفة صلاة النبي من التكبير إلى التسليم كأنك تراها, সিফাতুস সালাতুন নবী মিনাল তাকবীর ইলাল তাসলীম কানাক তিরাহা (তাকবীর থেকে তাসলীম পর্যন্ত নবীর সালাতের বর্ণনা যেন আপনি দেখতে পাচ্ছেন)
দেশআলবেনিয়া
ভাষাআরবি
বিষয়নামাজ, কুরআন, সহীহ হাদীস, ফিকহ

এই বইটিতে, শেখ আল-আলবানী হাদিসের মূলনীতি গ্রহণ করে তার নিরঙ্কুশ অধ্যবসায় দেখিয়েছেন। তিনি এমন হাদিসের উপর কাজ করেননি, যে হাদিসটি তার নিকট দুর্বল হিসাবে দেখা যায়, বরং তিনি সকল তথ্যের ক্ষেত্রে সহীহ হাদীস ব্যবহার করেছেন। যদিও তিনি আইনশাস্ত্রের বিধান সংশোধন এবং দুর্বল প্রমাণ করার ক্ষেত্রে প্রাথমিক আইনবিদদের উদ্ধৃতি দিয়েছেন, এমনকি যদি কিছু আইনবিদ তাদের উপর আমল করেছেন।[২]

বইটি লেখার কারণ

সম্পাদনা

বইটির সংস্করণের ভূমিকার পরে, তিনি বইটি লেখার কারণ সম্পর্কে বলেছিলেন:

বইয়ের বিষয়

সম্পাদনা
  • কিবলা মুখী করা
  • কিয়াম
  • রোগীর নামাজ বসে পড়া
  • জাহাজে নামায পড়া
  • রাতের নামাজে দাঁড়ানো ও বসা (কিয়ামুল লাইল/তারাবীহ/তাহাজ্জুদ)
  • জুতা পরে নামায পড়া এবং আদেশ করা
  • মিম্বরে নামায পড়া
  • সূত্র ফরয
  • কিসে নামাজ ভঙ্গ হয় ?
  • কবরের দিকে মুখ করে দোয়া করা
  • নিয়ত
  • তাকবীর
  • রফে ইয়াদাইন বা হাত তোলা
  • ডান হাত বাম দিকে রাখা এবং আদেশ করা
  • বুকের উপর হাত বাঁধা
  • সেজদা ও খুশুর স্থানের দিকে তাকানো
  • প্রারম্ভিক দোয়া
  • তিলাওয়াত
  • কুরআনের আয়াত তিলাওয়াত
  • আল-ফাতিহার গুরুত্ব এবং এর ফজিলত
  • ইমামের পিছনে উচ্চস্বরে পড়া অনুলিপি করা
  • মুক্তাদীর গোপনে তেলাওয়াত করা ওয়াজিব, এবং ইমামকে অবশ্যই উচ্চস্বরে তেলাওয়াত করতে হবে
  • আল-ফাতিহার পরে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যা পড়তেন
  • রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, এটিকে এক রাকাতে সাদৃশ্য এবং অন্যদের মধ্যে একত্রিত করেছেন
  • আল-ফাতিহার মধ্যে নিজেকে সীমাবদ্ধ রাখা বৈধ
  • প্রাত্যহিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ এবং অন্যদের মধ্যে উচ্চস্বরে এবং গোপনে
  • রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, যা নামাজে পাঠ করতেন
  • ফজরের সুন্নতে পড়া
  • শেষ দুটিতে আল-ফাতিহার পর তাঁর সালাম তিলাওয়াত করেছেন
  • প্রত্যেক রাকাতে আল-ফাতিহা পড়া ওয়াজিব
  • কুরআন তেলাওয়াত করা এবং এর কণ্ঠস্বর উন্নত করা
  • ইমামের উপর আল-ফাতিহা পুনরুদ্ধার করা এবং ওয়াসওয়াস থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য নামাজে থুথু দেওয়া
  • রুকু
  • রুকু অবস্থায় প্রশান্তির প্রয়োজনীয়তা
  • রুকুর জিকির
  • হাঁটু পর্যন্ত দীর্ঘায়িত হওয়া
  • রুকু অবস্থায় কুরআন পাঠ করা হারাম
  • রুকুতে সংযম, এবং তিনি এ সম্পর্কে কি বলেন
  • হাতের উপর সিজদা করতে সিজদা করা
  • সিজদায় শান্তিতে থাকা আবশ্যক
  • সেজদা অবস্থায় কুরআন তিলাওয়াত করা নিষেধ
  • দীর্ঘায়িত সিজদা সিজদার ফজিলত
  • মাটিতে ও চাটাইয়ে সিজদা করা
  • সেজদা থেকে উত্তোলন
  • দুই সিজদার মাঝের দোয়া
  • দুই সিজদার মধ্যে আশ্বাসের প্রয়োজনীয়তা
  • দুই সিজদার মাঝের যিকির
  • রাকাতে উঠার সময় হাতের উপর ভরসা করা
  • প্রত্যেক রাকাতে আল-ফাতিহা পড়া ওয়াজিব
  • প্রথম তাশাহহুদ- তাশাহহুদ বৈঠক
  • তাশাহহুদে আঙ্গুল নাড়ানো
  • প্রথম তাশাহহুদের ফরজ এবং তাতে দোয়ার বৈধতা
  • তাশাহহুদের ধরন
  • নবীর উপর দরুদ, এর অবস্থান এবং এর নিয়মাবলি
  • উম্মতের নবীর জন্য দোয়া করার গুরুত্বপূর্ণ ফজীলত
  • তৃতীয় ও চতুর্থ রাকাতের জন্য দাঁড়ানো
  • পাঁচ ওয়াক্ত নামাজে কুনূত
  • বিতরে কুনূত
  • শেষ তাশাহহুদ- তাশাহহুদের ফরজ
  • নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর উপর দরূদ পাঠ করা ওয়াজিব
  • দোয়া করার এক চতুর্থাংশ আগে আশ্রয় চাওয়া ওয়াজিব
  • সালামের আগে দোয়া এবং এর প্রকারভেদ
  • তাসলিম
  • সালামের ওয়াজিব
  • উপসংহার

আরও দেখুন

সম্পাদনা

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "كتب الألباني"। ২০২০-০৫-০১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০৯ 
  2. "ص21 - كتاب أصل صفة صلاة النبي صلى الله عليه وسلم - منهج الكتاب - المكتبة الشاملة الحديثة"। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-০৯ 

বহিঃসংযোগ

সম্পাদনা