প্রধান মেনু খুলুন

রবিন স্মিথ

ইংরেজ ক্রিকেটার

রবিন আর্নল্ড স্মিথ (ইংরেজি: Robin Smith; জন্ম: ১৩ সেপ্টেম্বর, ১৯৬৩) নাটাল প্রদেশের ডারবানে জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকান বংশোদ্ভূত সাবেক ও বিখ্যাত ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা।[১] ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম ব্যাটসম্যান রবিন স্মিথ ১৯৮৮ থেকে ১৯৯৬ সময়কালে টেস্ট ও একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন। প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে নাটাল, কাউন্টি ক্রিকেটে হ্যাম্পশায়ারমেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাবে খেলেছেন তিনি।

রবিন স্মিথ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামরবিন আর্নল্ড স্মিথ
জন্ম (1963-09-13) ১৩ সেপ্টেম্বর ১৯৬৩ (বয়স ৫৬)
ডারবান, নাটাল প্রদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা
ডাকনামজজ
উচ্চতা৫ ফুট ১১.৭৫ ইঞ্চি (১.৮২ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনলেগ ব্রেক
সম্পর্কক্রিস স্মিথ (ভাই)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৫৩০)
২১ জুলাই ১৯৮৮ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ টেস্ট২ জানুয়ারি ১৯৯৬ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১০১)
৪ সেপ্টেম্বর ১৯৮৮ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ ওডিআই৯ মে ১৯৯৬ বনাম শ্রীলঙ্কা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৮৯মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাব
১৯৮২–২০০৩হ্যাম্পশায়ার
১৯৮১–১৯৮৫নাটাল
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৬২ ৭১ ৪২৬ ৪৪৩
রানের সংখ্যা ৪,২৩৬ ২,৪১৯ ২৬,১৫৫ ১৪,৯২৭
ব্যাটিং গড় ৪৩.৬৭ ৩৯.০১ ৪১.৫১ ৪১.১২
১০০/৫০ ৯/২৮ ৪/১৫ ৬১/১৩১ ২৭/৮১
সর্বোচ্চ রান ১৭৫ ১৬৭* ২০৯* ১৬৭*
বল করেছে ২৪ ১,০৯৯ ২৭
উইকেট ১৪
বোলিং গড় ৭০.৯২ ৫.৩৩
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ২/১১ ২/১৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩৯/– ২৬/– ২৩৩/– ১৫৯/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৭ জুলাই ২০১৪

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

জজ বা জাজি ডাকনামে পরিচিত ছিলেন স্মিথ। শৈশবেই বিচারক হবার আকাঙ্খা থেকে তার চুল লম্বা রাখতে শুরু করেন বলেই এ নামকরণ হয়।[২] তার বড় ভাই ক্রিস স্মিথের ন্যায় তিনিও দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদবৈষম্যনীতির কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে নিজ দেশের হয়ে খেলা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। ফলশ্রুতিতে তার ইংরেজ পিতা-মাতার পরিচয়ে ইংল্যান্ডের পক্ষে খেলার সুযোগ পান।[১]

কাউন্টি ক্রিকেটসম্পাদনা

১৯৮৮ সালের শিরোপা জয়ের পর হ্যাম্পশায়ার দল ১৯৯২ সালে পুণরায় বেনসন এন্ড হেজেস কাপের শিরোপা পায়। লর্ডসের চূড়ান্ত খেলায় তারা কেন্টকে ৪১ রানে পরাজিত করে। দলের এ সাফল্যে রবিন স্মিথের দায়িত্বশীল ৯০ রান এবং ম্যালকম মার্শালশন উদালের তিন উইকেটপ্রাপ্তি মূখ্য ভূমিকা পালন করেছিল।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটসম্পাদনা

১৯৮৮ থেকে ১৯৯৬ সময়কালের মধ্যে ইংল্যান্ডের হয়ে এগারোটি টেস্ট সিরিজ ও বিদেশে ছয়টি সিরিজে অংশগ্রহণ করেছেন স্মিথ। ফাস্ট বোলিংয়ের বিপক্ষে দারুণ লড়াকু মনোভাবের জন্য তিনি তার বিশেষ যোগ্যতার পরিচয় দিয়েছেন। বিশেষ করে তিনি বলকে স্কয়ার-কাট করতেন সাবলীল ভঙ্গীমায়।[১] ১৯৮৮ সালে হেডিংলিতে অনুষ্ঠিত টেস্টের মাধ্যমে তার অভিষেক ঘটে। দক্ষিণ আফ্রিকান বংশোদ্ভূত সহ-খেলোয়াড় অ্যালান ল্যাম্বকে সাথে নিয়ে শতরানের জুটি গড়েন। ঐ সময়ের টেস্ট পরাশক্তি হিসেবে বিবেচিত ওয়েস্ট ইন্ডিজের ফাস্ট বোলারদের দাপুটে প্রভাবে অল্প কয়েকটি সেঞ্চুরির একটি ছিল এটি। পরবর্তী গ্রীষ্মে ১৯৮৯ মৌসুমে অনুষ্ঠিত অ্যাশেজ সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তিনি দু’টি শতক করেন। ট্রেন্ট ব্রিজের দ্বিতীয় শতকটি তিন উইকেট পতনের পর হয়। তিনি বেশকিছু আক্রমণাত্মক শট খেলেন; বিশেষ করে মার্ভ হিউজের উপর ৪-০-৩৮-০ চড়াও হন।

ব্রায়ান লারা’র রেকর্ড সৃষ্টিকারী ৩৭৫ রানের জবাবে অ্যান্টিগুয়ায় অনুষ্ঠিত ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিনি তার সর্বোচ্চ টেস্ট রান ১৭৫ সংগ্রহ করেন। ফাস্ট বোলারদের উপর রাজত্ব, আক্রমণাত্মক বোলিংয়ে স্বাচ্ছন্দ্যে খেললেও তুলনামূলকভাবে ধীরগতির বোলিং বিশেষ করে শেন ওয়ার্নের বিপক্ষে তিনি মোটেও সুবিধা করতে পারেননি।

২০০৩ সালে রবিন স্মিথ দীর্ঘ ২৩ বছর ক্লাব থেকে সকল স্তরের ক্রিকেট খেলা থেকে নিজেকে বিরত রাখার কথা ঘোষণা করেন।[৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Bateman, Colin (১৯৯৩)। If The Cap Fits। Tony Williams Publications। পৃষ্ঠা 152–153। আইএসবিএন 1-869833-21-X 
  2. Smith finds right time, BBC Sport, Retrieved 3 May 2009
  3. "Robin Smith retires"। ESPNcricinfo। ১২ সেপ্টেম্বর ২০০৩। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগস্ট ২০০৯ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা