রংপুরের পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা

২০২১ সালে বাংলাদেশের রংপুরের পীরগঞ্জে সংঘটিত সাম্প্রদায়িক সহিংসতা

২০২১ সালের ১৬ অক্টোবর রাতে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কাবা শরীফের ছবিতে কথিত আপত্তিকর মন্তব্যের জের ধরে রংপুর জেলা পীরগঞ্জ উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের তিনটি হিন্দু অধ্যুষিত গ্রামে সহিংসতার ঘটনা ঘটায় স্থানীয় কয়েক হাজার মুসলমান। এসময় তারা হিন্দুদের বাড়িঘর, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর, অগ্নি সংগোযোগ ও লুটপাট চালায়। ক্ষতিগ্রস্থ হয় মোট ৬৬টি পরিবার। এসব পরিবারের ৭টি টিনের বাড়ি, ৯টি ইটের তৈরি বাড়ি, ৪টি মাটির ঘর, ২টি দোকানসহ প্রায় ২৫টি বাড়ি ও দোকান আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়।[২][৩] হামলা-অগ্নিসংযোগের ঘটনাটি সংঘটনে নেতৃত্ব দেন রংপুর কারমাইকেল কলেজের দর্শন বিভাগের স্নাতকোত্তর শ্রেণির ছাত্র ও ওই বিভাগে ছাত্রলীগের কমিটির ১ নং সহ-সভাপতি এসএম সৈকত মণ্ডল (২৪)। তবে তার সম্পৃক্ততার বিষয়টি প্রকাশ পেলে গত ১৮ অক্টোবর তাঁকে অব্যাহতি দেওয়া হয় এবং তাকে আটকের পর অব্যহতির বিষয়টি প্রচার করা হয়।[৪]

২০২১ পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা
২০২১-এ বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা-এর অংশ
তারিখ১৬ অক্টোবর ২০১৭
অবস্থান
২৫°২৬′০৯″ উত্তর ৮৯°১৮′০০″ পূর্ব / ২৫.৪৩৫৮° উত্তর ৮৯.২৯৯৯° পূর্ব / 25.4358; 89.2999
কারণফেসবুকে মক্কার ছবিতে আপত্তিকর মন্তব্য করার অভিযোগে
প্রক্রিয়াসমূহহামলা, ভাঙচুর, অগ্নি সংগোযোগ, লুটপাট
ক্ষয়ক্ষতি
গ্রেপ্তার৫৮[১]

সূত্রপাত ও ঘটনাপ্রবাহ

সম্পাদনা
 
সহিংসতায় পুরে যাওয়া হিন্দুদের একটি ভ্যানগাড়ি।

২০২১ সালের ১৩ অক্টোবর কুমিল্লায় নানুয়া দীঘির উত্তরপাডড়েরর পূজামণ্ডপের বাইরে রাম-সীতা-লক্ষ্মণ-হনুমান মূর্তিরস্থলে হনুমান মূর্তির কোলের উপর একটি কুরআন শরীফ দেখা যায়। কুরআন উদ্ধারের পর এর ছবি স্যোশাল মিডিয়ায় নানাভাবে নানা ভাষ্যে খবর ছড়িয়ে পড়ে। কুরআন নিয়ে অবমাননার বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে লাইভ করে ফয়েজ আহমেদ নামে এক ব্যক্তি ।[৫]খবর পেয়ে স্থানীয় উগ্র মুসলমানরা ওই মণ্ডপে হামলা চালিয়ে প্রতিমা ভাঙচুর করে। ছাতিপাড়া চন্দ্রমনি রক্ষা কালী মন্দিরেও হামলা করে প্রতিমা ভাঙচুর ও আগুন দেয়া হয়। বাইরে আরো ১৫টি মন্দির ও মণ্ডপের পূজার গেটে আগুন দেয়া হয়, ভাঙচুর করা হয়। এই কারণে ওই দিন বেশ কিছু মন্দিরে পূজা বন্ধ হয়ে যায়।[৬]

‘পূজামণ্ডপে কোরআন রেখে কোরআন অবমাননা করা হয়েছে’ -এমন গুজব দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়ায় দেশের বিভিন্ন জায়গার পূজামণ্ডপ ও হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ, মন্দির, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাড়ি-ঘরে হামলা করতে থাকে উগ্র মুসলমানরা। এরই এক পর্যায়ে ১৬ অক্টোবর রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায় ফেসবুকে কা’বা শরীফের ছবিতে ‘আপত্তিকর মন্তব্যের’ অভিযোগ এনে তিনটি গ্রামে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট করা হয়।

‘ভালবাসার প্রস্তাব’ নামের একটি ফেসবুক আইডির প্রোফাইল ফটোতে কাবা শরীফের ছবি ছিল। সেই ছবিতে পরিতোষ সরকার নামে রামনাথপুর ইউনিয়নের মাঝিপাড়া গ্রামের এক কিশোর আপত্তিকর মন্তব্য করেছে এমন অভিযোগ এনে আশেপাশের গ্রামে উত্তেজনা ছড়ানো হয়। এতে নেতৃত্ব দেন ও স্থানীয় উগ্র মুসলমানদের সংগঠিত করেন রংপুর কারমাইকেল কলেজের দর্শন বিভাগের স্নাতকোত্তর শ্রেণির ছাত্র ও ওই বিভাগে ছাত্রলীগের কমিটির ১ নম্বর সহ-সভাপতি এসএম সৈকত মণ্ডল (২৪)। ঘটনার দিন ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের উসকানিমূলক বক্তব্য এবং মিথ্যা পোস্টের মাধ্যমে গুজব ছড়িয়ে স্থানীয় লোকজনকে উত্তেজিত করতে থাকেন সৈকত মণ্ডল। [৪][৭][৮]অপরদিকে একটি মসজিদ থেকে মাইকিং করে উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে স্থানীয় লোকজনকে জড়ো করেন সৈকত মণ্ডলের সহযোগী রবিউল ইসলাম (৩৬)। এসব গুজব ও মাইকে উস্কানিতে গত ১৬ অক্টোবর, রবিবার দিনভর আশেপাশের গ্রামগুলোতে উত্তেজনা বিরাজ করে। পুলিশ খবর পাওয়ার পর পরিস্থিতি আঁচ করতে পেরে পুলিশ পরিতোষ সরকারের বাড়িসহ আশপাশের বাড়িতে নিরাপত্তা দেয়। কিন্তু সন্ধ্যার পর থেকে গ্রামটি ঘিরে কয়েক হাজার মানুষ জড়ো হয়। রাত ৯টায় তারা অতর্কিত হামলা চালিয়ে রামনাথপুর ইউনিয়নের হিন্দু অধ্যুষিত মাঝিপাড়া, বটতলা ও হাতীবান্ধা গ্রামের হিন্দুদের বাড়িঘর, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর, অগ্নি সংগোযোগ ও লুটপাট করে।[৩][২]

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য, ইসলামিক স্লোগান দিয়ে বসতবাড়িতে ঢুকে দুর্বৃত্তরা গ্রামজুড়ে তাণ্ডব চালায়। এ সময় তারা হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনকে মারধর করে, হুমকি দেয়, অকথ্য ও আপত্তিকর ভাষায় গালাগাল করে। প্রাণ বাঁচাতে নারী, পুরুষ ও শিশুরা বাড়ি ছেড়ে পাশের ধানখেতে আশ্রয় নেয়। দুর্বৃত্তরা তখন একের পর এক বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। হামলাকারীরা গ্রামের বসতবাড়িতে ঢুকে অন্তত আধা ঘণ্টা ধরে তাণ্ডবলীলা চালালেও পুলিশের ভূমিকা দৃশ্যমান ছিল না। হামলাকারীরা চলে যাওয়ার পর পুলিশ গ্রামে গেলে ধানখেতে আশ্রয় নেওয়া লোকজন বাড়িতে ফেরে।[৯]

প্রতিক্রিয়া

সম্পাদনা

ঘটনার পর গত ১৯ অক্টোবার হামলা ও অগ্নিসংযোগে ক্ষতিগ্রস্ত হিন্দুপাড়া পরিদর্শন করেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ও রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনের সাংসদ শিরীন শারমিন চৌধুরী। এসময় তিনি এই সহিংসতার ঘটনাকে পূর্ব পরিকল্পিত উল্লেখ করে। এ হামলায় বহিরাগতরাও অংশ নিয়েছিল ও যারা জড়িত তাদের আইনের আওতায় আনার ঘোষণা দেন। ক্ষতিগ্রস্থদের পুনর্বাসনেরও আশ্বাস দেন তিনি। [১০]পীরগঞ্জে সহিংসতার ঘটনায় রংপুর জেলা-উপজেলাসহ সারাদেশের সচেতন মহল, বিভিন্ন রাজনৈতিক, অরাজনৈতিক, পেশাজীবি সংগঠন তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়। রংপুর নগরীসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় সহিংসতায় জড়িত ধর্মান্ধ গোষ্ঠিটির বিরুদ্ধে মানববন্ধন, বিক্ষোভ সমাবেশ করে দ্রুত এ ঘটনার বিচার দাবি করেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। [১১]স্যোশাল মিডিয়াতেও বিষয়টি নিয়ে তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ, বিচারের দাবি জানানো হয়।

ক্ষয়ক্ষতি

সম্পাদনা

পীরগঞ্জের সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্থ হয় মোট ৬৬টি পরিবার। এসব পরিবারের ৭টি টিনের বাড়ি, ৯টি ইটের তৈরি বাড়ি, ৪টি মাটির ঘর, ২টি দোকানসহ প্রায় ২৫টি বাড়ি ও দোকান আগুনে পুড়িয়ে দেয় মুসলমান সম্প্রদায়ের লোকজন। এছাড়াও মন্দিরে ভাঙচুর, গবাদিপশু, স্বর্ণালঙ্কার, নগদ অর্থ লুট করা হয়।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

মামলা ও বিচারকার্য

সম্পাদনা

পীরগঞ্জের ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে ৪টি মামলা দায়ের করা হয়। এরমধ্যে ৩ টি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ও অপরটি মামলা হয়েছে হিন্দুদের বাড়িঘরে ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ ও লুটের অভিযোগে। এই মামলায় ৪১ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতপরিচয় অনেককে আসামি করা হয়। দ্বিতীয় মামলাটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার মন্তব্য করার অভিযোগে অভিযুক্ত আসামি পরিতোষ সরকার (১৫) এর নামে। [১২]পরিতোষকে ১৮ অক্টোবর রাতে জয়পুরহাট থেকে আটক করা হয়। অপর মামলাটি ফেসবুকে দুই জনের বিরুদ্ধে নতুন করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার দুজন হলেন মাঝিপাড়া বড়করিমপুর এলাকার পাশের বড় মজিদপুর গ্রামের উজ্জ্বল হাসান (২১) ও সদর ইউনিয়নের কিশোরগাড়ি গ্রামের আল আমিন (২২)। [১৩] [১৪]

আপত্তিকর মন্তব্য করা নিয়ে পীরগঞ্জে হামলার ঘটনার ৪০ দিন আগে রামনাথপুর ইউনিয়নের মাঝিপাড়া গ্রামের পরিতোষ সরকারের সাথে পার্শ্ববর্তী বড় মজিদপুর গ্রামের উজ্জ্বল হাসান (২১) এর কথা কাটাকাটি হয়। পরিতোষকে শায়েস্তা করার জন্য তার দেওয়া আপত্তিকর পোস্টের স্ক্রিনশট বিভিন্নজনের কাছে পাঠায় উজ্জ্বল। এতে আশেপাশের লোকজন সংগঠিত ও উত্তেজিত হয়ে ওঠে।[১৩]

২৪ অক্টোবর রাতে পীরগঞ্জে সহিংসতার ঘটনায় অংশ নেওয়া আবদুল্লাহ আল মামুন (২৩) ও ওমর ফারুক টনেট (২৪) নামে দুই শিবির কর্মীকে আটক করে পুলিশ। এই দুই জনের বাড়ি গাইবান্ধা জেলার সাদুল্যাপুরে হলেও ঘটনার রাতে তারা পেট্রল নিয়ে মোটরসাইকেলে করে সাদুল্যাপুর থেকে পীরগঞ্জে এসে হামলায় অংশ নেয়।

২৫ অক্টোবর পীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সরেস চন্দ্র বলেন, ‘শিবির ক্যাডার আব্দুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে ঘটনার দিন প্রায় ৩০টি মোটর সাইকেল নিয়ে জামায়াত-শিবিরের ক্যাডাররা জেলেপাড়ায় হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর সহিংস ঘটনা ঘটায়। তাই আবদুল্লাহ আল মামুন ও ওমর ফারুককে গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে সাত দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।’[১৪]

আরও দেখুন

সম্পাদনা

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "মাঝিপাড়ায় এখন আর আতঙ্ক নেই: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী"ইত্তেফাক। ২৩ অক্টোবর ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ অক্টোবর ২০২১ 
  2. "কথিত ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে হামলা, লুটপাট"দৈনিক প্রথম আলো। অক্টোবর ১৮, ২০২১। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২০, ২০২১ 
  3. "ফেসবুক কমেন্টের জেরে রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দুদের বাড়িঘরে আগুন"বিবিসি বাংলা। অক্টোবর ১৮, ২০২১। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২০, ২০২১ 
  4. "পীরগঞ্জে হামলায় র‍্যাবের হাতে আটক সৈকত মণ্ডল ছাত্রলীগ নেতা"দৈনিক প্রথম আলো। অক্টোবর ২৩, ২০২১। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৩, ২০২১ 
  5. "কুমিল্লার ঘটনায় 'অপপ্রচারকারী' আটক"Newsbangla24। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-১০-১৬ 
  6. "২২ জেলায় বিজিবি, কী ঘটেছিল কুমিল্লায়"। www.dw.com। DW.COM। ১৪ অক্টোবর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০২১ 
  7. "পীরগঞ্জে হামলার 'হোতা' সৈকত মণ্ডল ছাত্রলীগ নেতা"দৈনিক যুগান্তর। অক্টোবর ২৩, ২০২১। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৩, ২০২১ 
  8. "পীরগঞ্জে সহিংসতার নেপথ্যে কে"দৈনিক ইত্তেফাক। অক্টোবর ২৩, ২০২১। ২৩ অক্টোবর ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৩, ২০২১ 
  9. "'কী দোষ করছিলাম, কেন আমাদের সব শেষ করে দিল'"দৈনিক প্রথম আলো। অক্টোবর ১৮, ২০২১। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২০, ২০২১ 
  10. "পীরগঞ্জের ঘটনা পূর্ব পরিকল্পিত: স্পিকার"দৈনিক ইত্তেফাক। অক্টোবর ১৯, ২০২১। ২০ অক্টোবর ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২০, ২০২১ 
  11. "পীরগঞ্জের ঘটনায় ছাত্রলীগের প্রতিবাদ মিছিল"দৈনিক সমকাল। অক্টোবর ১৮, ২০২১। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২০, ২০২১ 
  12. "ফেসবুকে অবমাননাকর পোস্ট: সেই পরিতোষ সরকার গ্রেফতার"দৈনিক যুগান্তর। অক্টোবর ১৮, ২০২১। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৮, ২০২১ 
  13. "পীরগঞ্জে হিন্দু পাড়ায় হামলার ঘটনায় আরও ১১ জন গ্রেপ্তার"দৈনিক প্রথম আলো। অক্টোবর ২০, ২০২১। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৩, ২০২১ 
  14. "পীরগঞ্জের ঘটনায় শিবিরকর্মীসহ আরও ২ জন গ্রেপ্তার, ১৩ আসামি রিমান্ডে"দৈনিক আমাদের সময়। অক্টোবর ২৫, ২০২১। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৬, ২০২১