মেহবুবা মাহনূর চাঁদনী

মেহবুবা মাহনূর চাঁদনী (যিনি চাঁদনী নামে বেশি পরিচিত) হলেন একজন বাংলাদেশী মডেল, অভিনেত্রী এবং নৃত্যশিল্পী। তিনি কিশোরী থাকাবস্থাতেই অভিনয় শুরু করেন। তার অভিনীত সফল চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে দুখাই, লালসালু এবং জয়যাত্রা[১]

চাঁদনী
জন্ম
মেহবুবা মাহনূর চাঁদনী

মে ১৯, ১৯৮২
জাতীয়তাবাংলাদেশী
পেশামডেল, অভিনেত্রী এবং নৃত্যশিল্পী
কর্মজীবন১৯৯৪-বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীবাপ্পা মজুমদার (মার্চ ২১, ২০০৮-২০১৮)
পুরস্কারজাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (২ বার)

প্ররম্ভিব জীবনসম্পাদনা

চার বছর বয়সে চাঁদনী নৃত্যু শেখা শুরু করেন। তিনি হিরুর অধীনে ভারতনাট্যম, আধুনিক এবং বাংলাদেশী নৃত্য শেখেন।[২] বিটিভিতে প্রচারিত নতুন কুঁড়িতে দলগত নাচে তিনি প্রথম স্থান অর্জন করেছিলেন।[৩]

কর্মজীবনসম্পাদনা

১৯৯৪ সালে দুখাই চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে তার চলচ্চিত্র যাত্রা শুরু হয়। চলচ্চিত্র অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি বেশ কিছু টেলিভিশন নাটকেও অভিনয় করেছেন। নৃত্যের মাধ্যমে পরিচিত পাওয়া চাঁদনী ২০১২ সালে ব্রুনাইয়ের ৪২তম স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে ব্রুনাই দারুস্‌সালামে বাংলাদেশী সম্প্রদায়ের একজন হিসেবে নৃত্য পরিবেশন করেন।[৪]

চলচ্চিত্রের তালিকাসম্পাদনা

বছর চলচ্চিত্র পরিচালক চরিত্র সহ-অভিনয়শিল্পী টীকা
১৯৯৪ দুখাই মোরশেদুল ইসলাম রাইসুল ইসলাম আসাদ, রোকেয়া প্রাচী
২০০১ লালসালু তানভীর মোকাম্মেল জমিলা রাইসুল ইসলাম আসাদ, মরিয়ম ইউসুফ শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন।
২০০৪ জয়যাত্রা তৌকির আহমেদ মরিয়ম মাহফুজ আহমেদ, বিপাশা হায়াত, আজিজুল হাকিম শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন।
২০১৫ বিষ কিশোর মাহমুদ সাব্বির, একে আজাদ সেতু জিপসি মেয়ে[৫]

নাটকসম্পাদনা

বছর নাটক পরিচালক
নাট্যকার
সহ-অভিনয়শিল্পী টীকা
বয়স যখন একুশ তাহের শিপন সজল নূর ধারাবাহিক
২০১০ হারুনের মঙ্গল হোক সজল নূর
২০১৪ ধ্যান অরণ্য আনোয়ার
২০১৫ বেলা নুজহাত আলভী আহমেদ
কামনা সীমা
সজল নূর মা দিবসে নির্মিত বিশেষ নাটক।[৬]
গ্রীন কার্ড নুজহাত আলভী আহমেদ
জাকির হোসাইন উজ্জল
সজল নূর এশিয়ান টিভিতে প্রচারিত সাত পর্বের ধারাবাহিক।[৭]

পুরস্কারসম্পাদনা

বছর পুরস্কার বিভাগ চলচ্চিত্র ফলাফল
নতুন কুঁড়ি দলগত নাচ প্রথম
২০০১ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেত্রী লালসালু বিজয়ী[৮]
২০০৪ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেত্রী জয়যাত্রা বিজয়ী[৯][১০]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "সংখ্যার চেয়ে মানে বিশ্বাসী: মেহবুবা মাহনূর চাঁদনী"দৈনিক ইত্তেফাক। ১৮ মে ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৭ মার্চ ২০১৮ 
  2. "In Search of Creative Unity Through Dance" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৪, ২০০৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "Bangladeshi Actress Mehbooba Mahnoor Chandni"bdalltime (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৪, ২০০৫ 
  4. Adib Noor (২০১২-০৪-০১)। "Cultural gala night celebrates Bangladesh Independence Day"The Brunei Times (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৫-১১-১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৪, ২০০৫ 
  5. "শেষ হলো 'বিষ'-এর শুটিং"দৈনিক প্রথম আলো। ১৬ নভেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ৭ মার্চ ২০১৮ 
  6. "Sajal-Chandni pair up for new drama"Bangladesh Info (ইংরেজি ভাষায়)। ২৫ নভেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৪, ২০০৫ 
  7. "সজলের সাত নায়িকা"banglanews24। ২০১৫-০৯-১৫। সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৪, ২০০৫ 
  8. নিষাদ চৌধুরী (৭ মে ২০১৩)। "চাঁদনীর তিন পৃথিবী"দৈনিক আমার দেশ। ০৭ মার্চ ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুলাই ২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |আর্কাইভের-তারিখ= (সাহায্য)
  9. Nadia Sarwat। "National Film Awards generate enthusiasm"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৪, ২০১৫ 
  10. "National Film Awards for the last fours years announced" [চার বছরের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘোষণা]। দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ঢাকা, বাংলাদেশ। ১ সেপ্টেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৫ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা