মেরু (সংস্কৃত: मेरु), এছাড়াও সুমেরু ও মহামেরু হিসাবে স্বীকৃত, হিন্দুজৈন ও বৌদ্ধ সৃষ্টিতত্ত্বের  পবিত্র পাঁচ-শিখরের পর্বত এবং সকল ভৌত ও আধ্যাত্মিক ব্রহ্মাণ্ডের কেন্দ্র হিসেবে বিবেচিত।[১]

মেরু পর্বত এবং বৌদ্ধ মহাবিশ্বের ভুটানিজ থাংকা, ১৯ শতক, ট্রংসা জং, ট্রংসা, ভুটান
মহাবোধি মন্দির, ভারতের বোধগয়ার একটি বিখ্যাত বৌদ্ধ মন্দির, মেরু পর্বতের প্রতিনিধিত্ব করে

অনেক বিখ্যাত বৌদ্ধজৈন ও হিন্দু মন্দির এই পাহাড়ের প্রতীকী উপস্থাপনা হিসেবে নির্মিত হয়েছে। "সুমেরু সিংহাসন" 須彌座 xūmízuò শৈলীর ভিত্তি হল চীনা প্যাগোডাগুলির সাধারণ বৈশিষ্ট্য[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]। পায়াথাটের সর্বোচ্চ বিন্দু (চূড়ান্ত কুঁড়ি), বার্মিজ-শৈলীর বহু-স্তরযুক্ত ছাদ, মেরু পর্বতকে প্রতিনিধিত্ব করে।

ব্যুৎপত্তিগতভাবে, পর্বতটির সঠিক নাম হল মেরু, যার সাথে যুক্ত করা হয় অনুমোদনমূলক উপসর্গ সু-, যার অর্থ "উৎকৃষ্ট মেরু" বা "বিস্ময়কর মেরু"।[২] মেরু হল মালায় কেন্দ্রীয় পুঁতির নাম।[৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Gopal, Madan (১৯৯০)। K.S. Gautam, সম্পাদক। India through the ages। Publication Division, Ministry of Information and Broadcasting, Government of India। পৃষ্ঠা 78 
  2. C., Huntington, John (২০০৩)। The circle of bliss : Buddhist meditational art। Bangdel, Dina., Thurman, Robert A. F., Los Angeles County Museum of Art., Columbus Museum of Art.। Chicago: Serindia Publications। আইএসবিএন 1932476016ওসিএলসি 52430713 
  3. "Meru"Sanskrit Dictionary। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-১৬ 

উৎসসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা