মেইজি যুগ (明治時代, Meiji jidai) হলো জাপানের ইতিহাসের একটি সময়কাল যা ২৩ অক্টোবর, ১৮৬৮ থেকে ৩০ জুলাই, ১৯১২ পর্যন্ত বজায় ছিল।[১] মেইজি যুগ ছিল জাপান সাম্রাজ্যের ইতিহাসের প্রথমার্ধ, যখন জাপানি জনগণ পশ্চিমা শক্তির উপনিবেশবাদের ঝুঁকিতে থাকা একটি বিচ্ছিন্ন সামন্ততান্ত্রিক সমাজ থেকে একটি আধুনিক, শিল্পোন্নত জাতিরাষ্ট্র এবং উদীয়মান মহান শক্তির নতুন দৃষ্টান্তে পৌছে ছিল। এর পিছনে ছিল পশ্চিমা বৈজ্ঞানিক, প্রযুক্তিগত, দার্শনিক, রাজনৈতিক, আইনি এবং নান্দনিক ধারণার প্রভাব। আমূল ভিন্ন ধারার এই ধরনের ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণের ফলে, জাপানে ঘটা পরিবর্তনগুলি গভীর ও সুদূরপ্রসারী ছিল এবং জাপানের সামাজিক কাঠামো, অভ্যন্তরীণ রাজনীতি, অর্থনীতি, সামরিক এবং বৈদেশিক সম্পর্ককে প্রভাবিত করেছিল। যুগটি মূলত সম্রাট মেইজির ৪৫ বছরের শাসনকালেকে প্রতিফলিত করে যার সূচনা হয়েছিল ১৮৬৮ সালে কেইয়ো যুগের সমাপ্তির মাধ্যমে এবং ১৯১২ সালে সম্রাট মেইজির মৃত্যুর পর সম্রাট তাইশো সিংহাসনে আরোহণ করলে এই যুগের অবসান হয় এবং তাইশো যুগের সূচনা হয়।

মেইজি যুগ
明治時代
২৩ অক্টোবর, ১৮৬৮ – ৩০ জুলাই, ১৯১২
Promulgation of The New Japanese Constitution (1889).jpg
মেইজি সংবিধান ঘোষণা (১৮৮৯)
ঘটনাসমূহ
পূর্ববর্তী যুগকেইয়ো
পরবর্তী যুগতাইশৌ
শাসক(গণ)মেইজি
উল্লেখযোগ্য ঘটনামেইজি পুনর্গঠন
কামাকুরা১১৮৫–১৩৩৩
কেন্‌মু পুনর্গঠন১৩৩৩–১৩৩৬
১৩৩৬–১৫৭৩
১৫৬৮–১৬০৩
১৬০৩–১৮৬৮
১৮৬৮–১৯১২
১৯১২–১৯২৬
শোওয়া ১৯২৬–১৯৮৯
১৯৮৯–২০১৯
সম্রাট মেইজী

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Nussbaum, Louis-Frédéric. (2005). "Meiji" in গুগল বইয়ে Japan encyclopedia, p. 624, পৃ. 624,; n.b., Louis-Frédéric is pseudonym of Louis-Frédéric Nussbaum, see Deutsche Nationalbibliothek Authority File.