মুসলিম শিক্ষা সমিতি (দক্ষিন আফ্রিকা)

সংস্থা

মুসলিম শিক্ষা সমিতি (দক্ষিণ আফ্রিকা) দক্ষিণ আফ্রিকার মুসলিম শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি জাতীয় সমিতি।

মুসলিম শিক্ষা সমিতি (দক্ষিণ আফ্রিকা)
দক্ষিণ আফ্রিকার মুসলিম শিক্ষা সমিতির লোগো
দক্ষিণ আফ্রিকার মুসলিম শিক্ষা সমিতির লোগো
গঠিত১৯৮৯
অবস্থান
ওয়েবসাইটams-uk.org

সমিতিটি জাতীয়ভাবে ৬৮ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিয়ে গঠিত। মুসলিম শিক্ষা সমিতি (দক্ষিণ আফ্রিকা) প্রাথমিক ও উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশাপাশি স্বতন্ত্র এবং রাষ্ট্রীয় সাহায্য প্রাপ্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিকে অন্তর্ভুক্ত করে। এটি দক্ষিণ আফ্রিকার ৯ টি প্রদেশের মধ্যে ৩ টিতে সক্রিয় রয়েছে।

ইতিহাসসম্পাদনা

১৯৮৯ সালের মার্চ মাসে আল ফালাহ কলেজে[১] মুসলিম শিক্ষা সমিতি (দক্ষিণ আফ্রিকা) (এএমএস-এসএ) গঠন করা হয়, সেই সময়ে কলেজটি লকাহাট ইসলামিয়া কলেজ নামে পরিচিত ছিল। সমিতির প্রাথমিক সদস্যগুলো হল: হাবিবিয়া ইসলামিক কলেজ, লকহাট ইসলামিয়া কলেজ, রোশনি মুসলিম স্কুল, আস-সালাম, লেনাসিয়া মুসলিম স্কুল এবং নুর-উল-ইসলাম স্কুল।[২] ১৯৮৯ সালের ১৩ ই মে সমিতিটি আনুষ্ঠানিকভাবে লেনাসিয়া মুসলিম স্কুলে প্রথম মুসলিম শিক্ষা সমিতি(এএমএস) সম্মেলনের সময় চালু হয়। সমিতিটিকে নিম্নলিখিত সুবিধা দেওয়ার জন্য বাধ্যতামূলক করা হয়েছিলঃ

  • প্রশাসনিক সহযোগিতা
  • শিক্ষক উন্নয়ন কর্মশালা
  • চূড়ান্ত পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের মূল্যায়ন / সংযোজন
  • আন্তঃস্কুল ক্রীড়া
  • বিষয় ভিত্তিক কর্মশালা
  • একটি সম্প্রদায় প্রচার কার্যক্রম

মুসলিম শিক্ষা সমিতি (দক্ষিণ আফ্রিকা)(এএমএস-এসএ) বছরের পর বছর ধরে ক্রমাগত বৃদ্ধি পেয়েছে। বার্ষিক সাধারণ সভা ও শিক্ষক সম্মেলন বছরের পর বছর ধরে শিক্ষাক্ষেত্রের অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বকে আকৃষ্ট করেছে। সমিতির আরও একটি পরিচালকের সম্মেলন এবং একটি অধ্যক্ষদের সম্মেলন রয়েছে যা নিয়মিতভাবে অনুষ্ঠিত হয়। বর্তমানে সমিতিটি জাতীয়ভাবে ৬৮ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিয়ে গঠিত। এটি জাতীয় ও প্রাদেশিক শিক্ষা বিভাগ, দক্ষিণ আফ্রিকা শিক্ষকদের কাউন্সিল (এসএইসিই), উমালুসী (স্বাধীন বিদ্যালয়গুলোর জাতীয় পর্যবেক্ষণ সংস্থা), সেক্টর শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ কর্তৃপক্ষের (এসইটিএ) দ্বারা আরও স্বীকৃত এবং নিয়মিতভাবে জড়িত।

পর্যায়সম্পাদনা

মুসলিম শিক্ষা সমিতিতে (দক্ষিণ আফ্রিকা) তিনটি আলাদা আলাদা পর্যায় রয়েছে। যারা প্রতি বছরের জাতীয় মুসলিম শিক্ষা সমিতি এজিএম এবং শিক্ষা সম্মেলনে মিলিত হয়। প্রতিটি পর্যায়ে নিম্নলিখিত সদস্য রয়েছেঃ

কোয়াজুলু-নাটাল[৩]সম্পাদনা

গাউটেং[৪]সম্পাদনা

ওয়েস্টার্ন কেপ[৫]সম্পাদনা

অন্তর্ভুক্তিসম্পাদনা

মুসলিম শিক্ষা সমিতিটি দক্ষিণ আফ্রিকার স্বাধীন বিদ্যালয়ের জাতীয় জোটের(এনএআইএসএ) প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। এই সংস্থাটি স্বাধীন স্কুল সমিতি এবং "যৌথ মৈত্রী কমিটির" পৃষ্ঠপোষকতা করে।[৬] মুসলিম শিক্ষা সমিতি (দক্ষিণ আফ্রিকা) মুসলিম শিক্ষা সমিতির দক্ষিণ আফ্রিকার পর্যায়।

প্রতিযোগিতাসম্পাদনা

মুসলিম শিক্ষা সমিতি বার্ষিক আন্তঃ স্কুল ক্রীড়া-প্রতিযোগিতা আয়োজন করে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. AMS-SA ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৫ অক্টোবর ২০০৯ তারিখে
  2. "AMS South Africa - About Us"www.ams-sa.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-০১ 
  3. "AMS South Africa - KZN School List"www.ams-sa.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-০১ 
  4. "AMS South Africa - Gauteng Region"www.ams-sa.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-০১ 
  5. "AMS South Africa - Western Cape Region"www.ams-sa.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-০১ 
  6. NAISA ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১২ ফেব্রুয়ারি ২০০৯ তারিখে

বহিঃসংযোগসম্পাদনা