মুশা শাহ(ইংরেজি: Musha Shah) (? - মার্চ, ১৭৯২) ছিলেন একজন ফকির বা সুফি সাধু। তিনি ফকির-সন্ন্যাসী বিদ্রোহে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। কিছু পন্ডিতের মতে এই বিদ্রোহ ছিল ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের প্রথম যুদ্ধের অন্যতম। তার চাচা মজনু শাহের দলে তিনি ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির বিরুদ্ধে অনেক যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। মজনু শাহের অনুচরদের মধ্যে ছিলেন মুশা শাহ, চেরাগ আলী শাহ এবং পরাগল শাহ। মুশা শাহ ছিলেন মজনু শাহের ভ্রাতুষ্পুত্র এবং পরাগল শাহ ছিলেন তার পুত্র।[১]

১৭৮৭ সালে মজনু শাহের মৃত্যুর পর অন্যান্য ফকির নায়কদের নিয়ে বিদ্রোহ অব্যাহত রাখেন। ১৭৮৮ সালের মার্চ মাসে তার বাহিনী রাজশাহী জেলায় প্রবেশ করে। ২৪ মার্চ রাণী ভবানীর বরকন্দাজ বাহিনীর সংগে তার দলের যুদ্ধে বরকন্দাজ বাহিনী পরাজিত হয়। সরকারি বিবরণে জানা যায় গ্রামবাসী কৃষকেরা বিদ্রোহীদের নানাভাবে সহযোগিতা করতেন। ২৮ মে ১৭৮৭ তারিখে লেফটেন্যান্ট ক্রিস্টির আকস্মিক আক্রমণে তার বাহিনী পলায়ন করেন। পরে রাজশাহী জেলায় তার ও ফেরাগুল শাহের মধ্যে নেতৃত্ব নিয়ে দ্বন্দ্ব আরম্ভ হলে তিনি ফেরাগুলের হাতে নিহত হন।[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. হোসেনউদ্দীন হোসেন, বাংলার বিদ্রোহ প্রথম খণ্ড, বিদ্যাপ্রকাশ, ঢাকা, অক্টোবর, ২০০৩, পৃষ্ঠা ৯২
  2. সুবোধ সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, প্রথম খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, নভেম্বর ২০১৩, পৃষ্ঠা ৫৭৮-৫৭৯, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-১৩৫-৬