মুন্সিগঞ্জ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট

মুন্সিগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট বাংলাদেশের মুন্সিগঞ্জের মিরকাদিমে অবস্থিত একটি সরকারি বহুমুখী কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ২০০৬ সালে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এ প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড এর অধীনে ৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স পরিচালনা করে থাকে। এখানে ৮টি টেকনোলজি আছে ।

মুন্সিগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট
ধরনসরকারি
স্থাপিত২০০৬ (2006)
অধ্যক্ষজহিরুল আলম [১]
প্রশাসনিক কর্মকর্তা
৩৪
শিক্ষার্থী২২০০
অবস্থান
মিরকাদিম
, ,
২৩°৩৪′০৯″ উত্তর ৯০°২৯′০৯″ পূর্ব / ২৩.৫৬৯০৮১° উত্তর ৯০.৪৮৫৯১৪° পূর্ব / 23.569081; 90.485914স্থানাঙ্ক: ২৩°৩৪′০৯″ উত্তর ৯০°২৯′০৯″ পূর্ব / ২৩.৫৬৯০৮১° উত্তর ৯০.৪৮৫৯১৪° পূর্ব / 23.569081; 90.485914
শিক্ষাঙ্গনগ্রামীণ
সংক্ষিপ্ত নামএমপিআই

ইতিহাসসম্পাদনা

২০০৬ সালের ২২ জুলাই কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা গ্রহণের উদ্দেশ্যে মুন্সিগঞ্জ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠিত হয়। এবং ঐ বছর থেকেই শিক্ষাকার্যক্রম শুরু হয়। জনাম বিল্লাল হোসেন প্রতিষ্ঠাকালীন অধ্যক্ষ ছিলেন।

ক্যাম্পাস ও অবকাঠামোসম্পাদনা

মুন্সিগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট মুন্সিগঞ্জ জেলার মিরকাদিম নামক স্থানে অবস্থিত। এখানে পাঁচ তলা বিশিষ্ট একটি প্রশাসনিক ও একটি একাডেমিক ভবন, দুইতলা বিশিষ্ট দুইটি ওয়ার্কশপ সহ ২৩ টি ল্যাব রয়েছে। এছাড়াও অধ্যক্ষ বাস ভবন, দুইতলা স্টাফ কোয়ার্টার, একটি "শহীদ মিনার", একটি সাব স্টেশন ও একটি পাম্প হাউজ রয়েছে।

চিত্রশালাসম্পাদনা

শিক্ষা কার্যক্রমসম্পাদনা

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড এর অধীনে বর্তমানে ৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স চালু রয়েছে। কারিগরি শিক্ষার পাশাপাশি প্রত্যেক প্রযুক্তির ছাত্র-ছাত্রীদের আবশ্যিকভাবে পাঠ্য বাংলা, ইংরেজি, গণিত, পদার্থ, রসায়ন, ব্যবস্থাপনা, সমাজ বিজ্ঞান, শারীরিক শিক্ষা ইত্যাদি বিষয়ে পাঠদানের জন্য একটি অকারিগরি শিক্ষা বিভাগ রয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের সকালে ও দুপুরে দুই শিফটে পাঠদান করা হয়।

বিভাগ সমূহসম্পাদনা

ভর্তি পদ্ধতিসম্পাদনা

প্রতি বছর এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর দেশের সরকারি পলিটেকনিক গুলোতে এক সাথে অনলাইনে ভর্তি কার্যক্রম শুরু করে। লিখিত পরীক্ষার প্রাপ্ত নম্বর ও এসএসসি পরীক্ষার প্রাপ্ত স্কোরের সমম্বয়ে এ ফল প্রণীত হয়। অনলাইনে ভর্তি ফর্ম পূরণের মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের বিভিন্ন বিভাগ ও পলিটেকনিক পছন্দের সুযোগ থাকে। মেধা ও পছন্দের ভিত্তিতে বিভাগ ও ইন্সটিটিউট নির্বাচন করা হয়। এভাবে প্রতি বছর লক্ষীপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট এ প্রথম ও দ্বিতীয় শিফটে বিভিন্ন বিভাগে নির্ধারিত আসন সংখ্যা অনুযায়ী ৩৮৪ জন ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি হয়ে থাকে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Munshiganj Polytechnic Institute, Munshiganj"। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০১৬