মীরা শঙ্কর

ভারতীয় কূটনীতিক

মীরা শঙ্কর (জন্ম ৯ অক্টোবর, ১৯৫০) হলেন একজন ভারতীয় কূটনীতিক, যিনি ২০০৯ খ্রিষ্টাব্দের ২৬শে এপ্রিল থেকে ২০১১ পর্যন্ত আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রে ভারতের রাষ্ট্রদূত ছিলেন।[১][২] তিনি ছিলেন আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রে দ্বিতীয় মহিলা রাষ্ট্রদূত, তার আগে উক্ত পদ অলংকৃত করেন প্রয়াত মাননীয়া বিজয়লক্ষ্মী পণ্ডিত। ২০১১ খ্রিষ্টাব্দের ১লা অগস্ট, নিরুপমা রাও মীরা শঙ্করের স্থলাভিষিক্ত হন।

মীরা শঙ্কর
Meera Shankar at U.S.-India People to People Conference cropped.jpg
২০১০ খ্রিস্টাব্দে যুক্তরাষ্ট্র-ভারত দুই দেশের নাগরিকদের মধ্যে সম্মেলনে মীরা শঙ্কর
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ভারতের রাষ্ট্রদূত
কাজের মেয়াদ
২০০৯ – ২০১১
পূর্বসূরীরণেন সেন
উত্তরসূরীনিরুপমা রাও

মীরা শঙ্কর হলেন ১৯৭৩ ব্যাচের একজন আধিকারিক; তিনি ১৯৯১ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ১৯৯৫ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত ওয়াশিংটন, ডি.সি. শহরে তার কাজে নিয়োজিত ছিলেন। তিনি রাষ্ট্রদূত রণেন সেন মহাশয়ের স্থলাভিষিক্ত হয়েছিলেন।

প্রারম্ভিক জীবন ও পেশাসম্পাদনা

মীরা শঙ্কর নৈনিতাল শহরের সেন্ট মেরি'জ কনভেন্ট স্কুলে পড়াশোনা করেছেন। ১৯৭৩ খ্রিষ্টাব্দে তিনি ইন্ডিয়ান ফরেন সার্ভিসে যোগদান করেন।

মীরা শঙ্কর ১৯৮৫ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ১৯৯১ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ডাইরেক্টর হিসেবে কাজ করেছিলেন, এবং ১৯৯১ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ১৯৯৫ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ে কাজ করেন। যে সময় তিনি বিদেশ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কাজে নিযুক্ত ছিলেন, সেই সময় দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা (সার্ক)-এর সঙ্গে কাজের ক্ষেত্রে এবং নেপালভূটান দেশদ্বয়ের সঙ্গে সম্পর্কের ক্ষেত্রে দুটো গুরুত্বপূর্ণ বিভাগের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

২০০৯ খ্রিষ্টাব্দের পূর্বে তিনি জার্মানির রাজধানী বার্লিনে ভারতের রাষ্ট্রদূত হিসেবে কাজ করেছেন।

মীরা শঙ্কর হলেন জি শঙ্কর বাজপাইয়ের পর প্রথম কূটনীতিক যিনি ওয়াশিংটনে নিযুক্ত হয়ে দুই দশকের বেশি সময় ধরে কাজ করেছিলেন। ২০০৩ খ্রিষ্টাব্দে তিনি অতিরিক্ত সচিবের পদমর্যাদা অর্জন করেছিলেন; তিনি জাতিসংঘ এবং আন্তর্জাতিক নিরাপত্তার জন্যে দায়িত্ব প্রাপ্ত ব্যক্তি ছিলেন।

অন্যান্য কার্যকলাপসমূহসম্পাদনা

মীরা শঙ্কর, আলফ্রেড গেসেলস্ক্যাফ্ট-এর ডয়েটশ ব্যাঙ্কের বোর্ড অফ ট্রাস্টিতে আসীন ছিলেন।[৩] তিনি প্রথম মহিলা, যিনি ২০১২ খ্রিষ্টাব্দে, ভারতীয় সমন্বয়কারী সংস্থা আইটিসির বোর্ড অফ ডাইরেক্টরে সামিল হয়েছিলেন।[৪]

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

মীরা শঙ্কর, ১৯৭৩ ব্যাচের ইন্ডিয়ান অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিসের অন্যতম আধিকারিক, অজয় শঙ্করের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। মীরা শঙ্কর এবং অজয় শঙ্করের এক কন্যাসন্তান আছেন, যাঁর নাম প্রিয়া।[৫]

বিতর্কসমূহসম্পাদনা

মীরা শঙ্কর একসময় খবরের শিরোনামে এসেছিলেন, যখন জ্যাকসন-এভার্স বিমান বন্দরে ২০১০ খ্রিষ্টাব্দের ডিসেম্বরে তার প্যাট-ডাউন চেক হচ্ছিল, মার্কিন বিমানবন্দরে ভারতীয় ভিআইপিদের আটক ও অনুসন্ধান বচসায় যাঁরা জড়িয়ে পড়েছিলেন, তিনিও তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছিলেন। ওই ঘটনা ভারত থেকে কূটনৈতিক প্রতিবাদ ছিল। একজন ভারতীয় হিসেবে তিনিও সেই প্রতিবাদে সামিল হয়েছিলেন।[৬]

আরো দেখুনসম্পাদনা

উল্লেখসমূহসম্পাদনা

  1. Meera shankar। "Meera shankar"। News.google.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-১০-১৪ 
  2. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। Indian Embassy, Washington। ২০১৫-০৪-১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৪-১৪ 
  3. Board of Trustees ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০ আগস্ট ২০১৮ তারিখে Alfred Herrhausen Gesellschaft of Deutsche Bank.
  4. Mukherjee, Writankar (৪ আগস্ট ২০১২)। "ITC inducts Meera Shankar in its board as the first women ever"The Times Of India। সংগ্রহের তারিখ ৭ আগস্ট ২০১৭ 
  5. Scott, Gail (২৮ মার্চ ২০১১)। "Private Indian Couple Dedicates Careers to Public Service"Washington Diplomat। সংগ্রহের তারিখ ৭ আগস্ট ২০১৭ 
  6. "After pat-down, US pats Meera"The Economic Times। ১১ ডিসেম্বর ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ১৩ মার্চ ২০১৬ 
রাজনৈতিক কার্যালয়সমূহ
পূর্বসূরী 

রণেন সেন
আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রে ভারতের রাষ্ট্রদূত

২০০৯-২০১১
উত্তরসূরী 

নিরুপমা রাও