মিস্টিক রিভার (চলচ্চিত্র)

মিস্টিক রিভার হল ক্লিন্ট ইস্টউড পরিচালিত এবং সুরারোপিত, ২০০৩ সালের আমেরিকান নব্য-নোয়ার রহস্য অপরাধ নাট্য চলচ্চিত্র। এতে অভিনয় করেছিলেন শন পেন, টিম রবিন্স, কেভিন বেকন, লরেন্স ফিশবার্ন, মার্সিয়া গে হার্ডেন, এবং লরা লিনিব্রায়ান হেলজল্যান্ড রচিত চিত্রনাট্যটি ২০০১ সালে ডেনিস লেহানে লিখিত একই নামের উপন্যাসের উপর ভিত্তি করে নির্মিত হয়েছিল। এটিই প্রথম চলচ্চিত্র যেখানে ইস্টউডকে স্কোর রচনার কৃতিত্ব দেওয়া হয়েছিল।

মিস্টিক রিভার
মিস্টিক রিভার (চলচ্চিত্র) পোস্টার.jpg
প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির পোস্টার বিল গোল্ড
পরিচালকক্লিন্ট ইস্টউড
প্রযোজক
চিত্রনাট্যকারব্রায়ান হেলজল্যান্ড
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারক্লিন্ট ইস্টউড
চিত্রগ্রাহকটম স্টার্ন
সম্পাদকজোয়েল কক্স
পরিবেশকওয়ার্নার ব্রস.
মুক্তি
  • ১৫ অক্টোবর ২০০৩ (2003-10-15)
দৈর্ঘ্য১৩৭ মিনিট[১]
দেশযুক্তরাষ্ট্র
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়$৩০ মিলিয়ন[২]
আয়$১৫৬.৬ মিলিয়ন[২]

মিস্টিক রিভার ছবিটি একাডেমি পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র বিভাগে একাডেমি পুরস্কার, সেরা পরিচালক, পেনের জন্য সেরা অভিনেতা, সেরা উপযোগকৃত চিত্রনাট্য, হার্ডেনের জন্য সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী এবং রবিন্সের জন্য সেরা পার্শ্ব অভিনেতা পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছিল। পেন এবং রবিন্স তাঁদের নিজ বিভাগে পুরস্কার জিতেছিলেন। ১৯৫৯ সালে বেন-হারের পর মিস্টিক রিভার উভয় বিভাগে পুরস্কার জয়ের গৌরব অর্জন করেছিল। এর পরে ২০১৩ সালে ডালাস বায়ার্স ক্লাব এই সম্মান অর্জন করেছিল।

ঘটনাসম্পাদনা

তিনটি ছেলে, জিমি মার্কাম, শন ডিভাইন, এবং ডেভ বয়েল ১৯৭৫ সালে বস্টনের একটি রাস্তায় হকি খেলছিল, সেইসময় ডেভকে দুজন লোক অপহরণ করে এবং চারদিন ধরে তার ওপর যৌন নির্যাতন চালায়, তারপরে কোনমতে সে পালিয়ে যায়।

২৫ বছর কেটে গেছে, সেই ছেলেরা এখন বড় এবং তারা এখনও বস্টনেই থাকে তবে কাছাকাছি থাকেনা। জিমি একজন প্রাক্তন অপরাধী, সে পাড়ায় মুদি দোকান চালায়; শন ম্যাসাচুসেটস রাজ্য পুলিশের গোয়েন্দা; এবং ডেভ একজন শ্রমজীবি কর্মী, তাকে বাল্যের সেই ধর্ষণের ঘটনা এখনো তাড়া করে বেড়ায়। জিমি এবং ডেভ এখনও প্রতিবেশী এবং কোন এক বিবাহসূত্রে সম্পর্কিত। শনের সন্তান সম্ভবা স্ত্রী লরেন সম্প্রতি তাকে ছেড়ে চলে গেছে; সে প্রায়শই শনকে ফোন করে, কিন্তু ফোনে কোন কথা বলে না। জিমির ১৯ বছর বয়সী কন্যা কেটি গোপনে ব্রেন্ডন হ্যারিসের সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলেছে, ব্রেন্ডনের পরিবারকে জিমি ঘৃণার দৃষ্টিতে দেখে। ব্রেন্ডন এবং কেটি ঠিক করেছে তারা একসাথে লাস ভেগাসে পালিয়ে যাবে।

কেটি তার বান্ধবীদের সাথে রাতের জন্য বের হয় এবং ডেভ তাকে একটি স্থানীয় বারে পৌঁছে দেয়। সেই রাতে কেটি খুন হয়ে যায়, এবং রক্তাক্ত ও আহত ডেভ ঘরে ফিরে এসে স্ত্রীকে বলে যে সে একজন গুন্ডার সাথে লড়াই করেছে এবং সম্ভবত তাকে হত্যা করেছে।

শন ও তার সহযোগী সার্জেন্ট হুইটি পাওয়ারস কেটি হত্যার তদন্ত করে এবং জিমি তার প্রতিবেশীদের জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে নিজের তদন্ত চালায়। শন আবিষ্কার করে যে কেটি সম্ভবত তার হত্যাকারীকে চিনতে পেরেছিল এবং হত্যায় ব্যবহৃত বন্দুকটি, একটি .৩৮ বিশেষ রিভলবার, ১৯৮৪ সালে "জাস্ট রে" হ্যারিস দ্বারা একটি মদের দোকানে ডাকাতিতেও ব্যবহৃত হয়েছিল। এই হ্যারিস হল ব্রেন্ডনের বাবা। হ্যারিস ১৯৮৯ সাল থেকেই নিখোঁজ, কিন্তু ব্রেন্ডনের দাবিমত সে এখনও প্রতি মাসে পরিবারকে ৫০০ ডলার পাঠায়। ব্রেন্ডন 'রে' এর বন্দুক সম্পর্কেও অজ্ঞতার ভান করে। হুইটি ডেভকে সন্দেহ করে কারণ তার হাতে কিভাবে আঘাত লেগেছিল সে সম্পর্কে সে বিভিন্ন রকম গল্প বলছে। ডেভ অদ্ভুত আচরণ করে চলে, তার স্ত্রী সন্দিগ্ধ হয় এবং ঘর ছেড়ে চলে যায়। সে জিমিকে বলে যে তার সন্দেহ হচ্ছে ডেভ এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকতে পারে।

জিমি এবং তার বন্ধুরা ডেভকে চেপে ধরে। জিমি ডেভের কাছে স্বীকার করে যে সে "জাস্ট রে" কে হত্যা করেছিল, কারণ জাস্ট রে তাকে কোন ঘটনায় জড়িয়ে দেবার ফলেই তার কারাবাস হয়েছিল। ডেভ জিমির কাছে প্রকাশ করে যে সে রাতে সে কাউকে হত্যা করেছিল, কিন্তু সে কেটি ছিল না; একটি লোককে শিশু পতিতার সাথে দেখতে পেয়ে সে শিশু ধর্ষণকারীকে হত্যা করেছিল। জিমি ডেভকে বিশ্বাস করে না এবং একটি ছুরি টেনে বের করে, তবে কেটি হত্যার কথা স্বীকার করলে তাকে ছেড়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। তবে ডেভ যখন কেটি হত্যার কথা স্বীকার করে, জিমি তাকে হত্যা করে এবং তার দেহ সংলগ্ন মিস্টিক নদীতে ফেলে দেয়।

এদিকে, বাবার বন্দুক খুঁজে না পেয়ে, ব্রেন্ডন তার ছোট ভাই "সাইলেন্ট রে" এবং তার বন্ধু জন ও'শিয়ার মুখোমুখি হয় কেটির হত্যার বিষয়ে। সে ছেলেদুটিকে মারধর করে, এবং তাদের অপরাধ স্বীকার করানোর চেষ্টা করে। জন যেইমাত্র জাস্ট রে এর বন্দুকটি টেনে বের করে ব্রেন্ডনকে গুলি করতে যাবে, শন এবং হুইটি সেখানে পৌঁছোয়, অস্ত্র কেড়ে নিয়ে তাকে এবং সাইলেন্ট রে কে গ্রেপ্তার করে।

পরের দিন সকালে শন জিমিকে জানায় যে জন এবং সাইলেন্ট রে কেটি হত্যার কথা স্বীকার করেছে, তাদের মধ্যে একটি তামাশা নিয়ে ভুল বোঝাবুঝির ফলে এই হত্যাকাণ্ড ঘটে গেছে। শন জিমিকে জিজ্ঞাসা করে যে সে ডেভকে দেখেছে কিনা, অন্য একটি মামলা, পরিচিত এক শিশু নিগ্রহক ব্যক্তির হত্যাকাণ্ডে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে দরকার। বিষণ্ন জিমি তার মেয়ের খুনিদের সন্ধান করার জন্য শনকে ধন্যবাদ জানায়, কিন্তু বলে, "যদি তুমি কিছুটা দ্রুত হতে।" শন তখন জিমিকে জিজ্ঞাসা করে যে সে "সেলেস্টি বয়েলকেও মাসে ৫০০ ডলার পাঠাচ্ছে?"

"তাকে দূরে সরিয়ে দেওয়ার জন্য" ক্ষমা চাওয়ার পরে শন তার স্ত্রী এবং মেয়ে নোরার সাথে পুনরায় মিলিত হয়। জিমি তার স্ত্রী অ্যানাবেথের কাছে গিয়ে সব স্বীকার করে। সে তাকে সান্ত্বনা দিয়ে বলে যে সে একজন রাজা এবং রাজারা সবসময় সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়। শহর প্যারেডে, ডেভের ছেলে দুঃখের সঙ্গে তার বাবার জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। শন জিমিকে দেখে এবং সে যে জিমির জন্য আসছে তা বোঝাতে হাত দিয়ে বন্দুক চালানোর মত দেখায়। জিমি তার বাহু ছড়িয়ে দিয়ে বোঝায় যে সেও প্রস্তুত।

চরিত্র চিত্রণসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "MYSTIC RIVER (15)"British Board of Film Classification। সেপ্টেম্বর ১০, ২০০৩। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ২৬, ২০১৫ 
  2. "Mystic River"Box Office Mojo। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ৪, ২০০৯ 

গ্রন্থপঞ্জীসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

টেমপ্লেট:Clint Eastwood টেমপ্লেট:Dennis Lehane