ভুটানের রাজকীয় আর্থিক কর্তৃপক্ষ

ভুটানের কেন্দ্রীয় ব্যাংক

ভুটানের রাজকীয় আর্থিক কর্তৃপক্ষ (সংক্ষেপিত আরএমএ) (ইংরেজি: Royal Monetary Authority of Bhutan) (জংখা: བྲུག་རྒྱལ་གཞུང་དངུལ་ལས་དབང་འཛིན་) হল ভুটানের কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এটি 'ভুটানের রাজকীয় আর্থিক কর্তৃপক্ষ আইন ১৯৮২' দ্বারা প্রতিষ্ঠা লাভ করে। ভুটানের রাজকীয় আর্থিক কর্তৃপক্ষ এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়নের সদস্য। এটি ভুটানের মুদ্রা (ভুটানি ঙুলট্রুম) ছাপানো ও প্রচলনের দায়িত্ব পালন করে।[২][৩][৪][৫]

ভুটানের রাজকীয় আর্থিক কর্তৃপক্ষ
འབྲུག་རྒྱལ་གཞུང་དངུལ་ལས་དབང་འཛིན་
প্রধান কার্যালয়থিম্ফু, ভুটান
প্রতিষ্ঠিত১৯৮২
মালিকানা১০০% রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন[১]
গভর্নরদাশো পেনজোর
এর কেন্দ্রীয় ব্যাংকভুটানভুটান
মুদ্রাভুটানি ঙুলট্রুম
বিটিএন (আইএসও ৪২১৭)
ওয়েবসাইটআরএমএ

ইতিহাসসম্পাদনা

ভুটানের রাজকীয় আর্থিক কর্তৃপক্ষ ১৯৮২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। পরের বছরেই এটি ভুটানের মুদ্রা ছাপানো ও প্রচলন, বৈদেশিক মুদ্রার মজুদ সংরক্ষণ ও বৈদেশিক মুদ্রার বিনিময় পরিচালনার দায়িত্ব পালন করে শুরু করে। ১৯৮৮ সালে থেকে এটি সরকারের ব্যাংকার হিসেবে সরকারি আমানত সংরক্ষণ ও ঋণ ব্যবস্থার দায়িত্ব নেয়।[২][৩] ১৯৯২ সালে 'আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইন' অনুমোদন হলে এটি ভুটানে পরিচালিত সকল আর্থিক প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স প্রদান, নিয়ন্ত্রণ, পর্যবেক্ষণ ও নিরীক্ষা কার্যক্রম শুরু করে।[৬][nb ১] ১৯৮২ সালে রাজকীয় আর্থিক কর্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠার আগে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কার্যক্রম সমূহ অর্থ মন্ত্রনালয়, ভুটানের স্টেট ট্রেডিং কর্পোরেশন এবং ব্যাংক অব ভুটান কর্তৃক পরিচালিত হত। তখন মুদ্রা ছাপানোর দায়িত্বে ছিল অর্থ মন্ত্রনালয়, বৈদেশিক বাণিজ্য পরিচালনা ও বৈদেশিক মুদ্রার মজুদ সংরক্ষণের দায়িত্বে ছিল ভুটানের স্টেট ট্রেডিং কর্পোরেশন এবং যাবতীয় বাণিজ্যিক ব্যাংকিং কার্যক্রম ও সরকারের ব্যাংক হিসেবে দায়িত্বে ছিল ব্যাংক অব ভুটান।

১৯৮৩ সালের ১ নভেম্বর অর্থ মন্ত্রণালয়ের থেকে মুদ্রা (নোট এবং কয়েন) ছাপা ও প্রচলনের দায়িত্ব গ্রহনের মধ্য দিয়ে রাজকীয় আর্থিক কর্তৃপক্ষ প্রকৃত কার্যক্রম শুরু করে। পরবর্তীতে, এটি বৈদেশিক মুদ্রার মজুদকরন, সংরক্ষণ ও পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণ করে। ১৯৮৫ সালে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল ব্যাংকটির জন্য একটি গবেষণা ও পরিসংখ্যান বিভাগ প্রতিষ্ঠার উদ্দেশে মিঃ ক্লাউস ডর্নসিফ নামের একজন উপদেষ্টা নিয়োগ করে, যিনি প্রথম বছরেই প্রতিষ্ঠানটির বার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশে সহায়তা করে। ১৯৮৮ সালে এটি সরকারের ব্যাংকার হিসেবে দায়িত্ব পালন শুরু করে। ২০১০ সালে প্রথম বারের মত কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর নিয়োগের মধ্য দিয়ে রাজকীয় আর্থিক কর্তৃপক্ষ একটি পূর্ণ স্বায়ত্তশাসিত কেন্দ্রীয় ব্যাংকে উন্নীত হয় এবং এটির কার্যকারিতা এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে একক ক্ষমতা প্রতিষ্ঠিত হয়। বর্তমানে এটি অন্যান্য দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মতই যাবতীয় কার্যক্রম সম্পাদন করে।

প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষসম্পাদনা

রাজকীয় মুদ্রা কর্তৃপক্ষ আইন ২০১০ দ্বারা রাজকীয় মুদ্রা কর্তৃপক্ষের কার্যপরিধি নির্ধারণ করা হয়েছে। উক্ত আইন দ্বারা রাজকীয় মুদ্রা কর্তৃপক্ষের পরিচালনা পর্ষদ, নির্বাহী কমিটি, নিরীক্ষা কমিটির কাঠামো নির্ধারণ করা হয়েছে।[nb ২] এখানে একটি বাহ্যিক নিরীক্ষা কমিটির কথাও বলা হয়েছে যেটি পরিচালিত হবে রাজকীয় নিরীক্ষা কর্তৃপক্ষের দ্বারা। [nb ৩]

কর্তৃপক্ষের পরিচালনা পর্ষদ ৭ সদস্য বিশিষ্ট যার প্রধান হচ্ছে রাজা নিযুক্ত গভর্নর, ২ জন ডেপুটি গভর্নর যাদের মধ্যে একজন সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করে এবং সরকার নিযুক্ত ৪ জন সদস্য। পরিচালনা পর্ষদের মেয়াদ ৫ বছর কিন্তু দ্বিতীয় মেয়াদেও উক্ত পরিষদ নিয়োগপ্রাপ্ত হতে পারে।[nb ৪] [nb ৫] [nb ৬] নির্বাহী কমিটির কাঠামোও পরিচালনা পর্ষদের মতই এবং এখানেও ৭ জন সদস্য থাকে।

চেয়ারপারসন (১৯৮৩-২০১০)সম্পাদনা

  • আশি সনাম সোদেন ওয়াংচক, ১৯৮৩-১৯৯০[৭][৮]
  • লিওনপো দর্জি টশেড়িং, ১৯৯১-১৯৯৮[৭][৮]
  • লিওনপো ইয়েহে জিম্বা, ১৯৯৮-২০০২[৮]
  • লিওনপো ওয়াংডি নরবু, ২০০৩-২০০৭[৮]
  • লিওনপো কিনজং দোর্জি, ২০০৭-২০০৮[৮]
  • লিওনপো ওয়াংডি নরবু, ২০০৮-২০১০[৮]

ব্যবস্থাপনা পরিচালক (১৯৮৩-২০১০)সম্পাদনা

  • লিওনপো যেশেই জিম্বা, ১৯৮৩-১৯৮৬[৮]
  • দাশো বাপ্ কেসাং, ১৯৮৭-১৯৯১[৮]
  • দাশো সোনাম ওয়াংচুক, ১৯৯২-২০০৩[৮]
  • দাশো দাও তানজিন, ২০০৩-২০১০[৮]

গভর্নর (২০১০ থেকে)সম্পাদনা

  • দাশো দা তেনজিন, ২০১০-২০১৫ (প্রথম গভর্নর)[৯]
  • দাশো পেনজোর, ২০১৫-বর্তমান[১০]

আর্থিক অন্তর্ভুক্তিসম্পাদনা

ভুটানের রাজকীয় আর্থিক কর্তৃপক্ষ আর্থিক অন্তর্ভুক্তি নীতি প্রচলন ও প্রসারণে সক্রিয় ভুমিকা পালন করে এবং এটি আর্থিক অন্তর্ভুক্তি জোটের সদস্য।[১১]

আরও দেখুনসম্পাদনা

টীকাসম্পাদনা

  1. Constitution: Art. 14, §§ 2, 3, 5
  2. Royal Monetary Authority Act (RMAA) (2010): §§ 28–59
  3. RMAA (2010): §§ 64, 65, 156–168
  4. RMAA (2010): §§ 33–37, 184
  5. RMAA (2010): §§ 37–39
  6. RMAA (2010): §§ 31, 32

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. https://d-nb.info/1138787981/34
  2. "Royal Monetary Authority of Bhutan"Government of Bhutan। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০১-২৯ 
  3. "Royal Monetary Authority Act of Bhutan 1982" (PDF)Government of Bhutan। ১৯৮২। ২০১৭-০৯-০৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১০-০৮ 
  4. "Financial Institutions Act of Bhutan 1992" (PDF)Government of Bhutan। ১৯৯২। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১০-০৮ 
  5. "Royal Monetary Authority Act of Bhutan 2010" (PDF)Government of Bhutan। ২০১০-০৬-২২। ২০১১-০৭-০৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১০-০৮ 
  6. "The Constitution of the Kingdom of Bhutan" (PDF)Government of Bhutan। ২০০৮-০৭-১৮। ২০১১-০৭-০৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১০-০৮ 
  7. Central Banking Directory। Central Banking Publications। ১৮ এপ্রিল ১৯৯৩। আইএসবিএন 9780951790311 – Google Books-এর মাধ্যমে। 
  8. https://www.rma.org.bt/RMA%20Publication/Annual%20Report/annual%20report%202008-2009.pdf
  9. "Royal Monetary Authority of Bhutan - Whats New"www.rma.org.bt [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  10. "Board of Directors"www.rma.org.bt 
  11. "AFI members"। AFI Global। ২০১১-১০-১০। ২০১২-০২-২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০২-২৩ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা