বাংলা উইকিপিডিয়ায় স্বাগতমসম্পাদনা

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া নবীনগর বাড্ডা সরকারবাড়ীসম্পাদনা

মোঃমনিরুল ইসলাম সরকার, ২ই ফেব্রুয়ারি ১৯৮২তে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা, নবীনগর উপজেলা, সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন, বাড্ডা সরকারবাড়ীতে জন্ম গ্রহণ করেন, পিতা: মোঃসুজ্জু মিয়া সরকার, মাতা মোসা:সুফিয়া খাতুন। পেশা: গ্রাফিক্স ডিজাইনার এণ্ড আর্কিটেকচার ও চিত্রশিল্পী । মনিরুল ইসলাম অনেকটা প্রতিবাদী, ন্যায়ের পক্ষে কথা বলতে ভালোবাসেন। ছোট সময় থেকে মনিরুল ইসলাম ছবি আঁকা ভালোবাসেন, একসময় ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর ও বাঞ্ছারামপুর তার ছবি আঁকা ভালো প্রসংশনীয় হয়ে উঠেন। তার লেখা বেশ কিছু কবিতা ও বাণী আছে।

তিতাস নদীর তীরে গড়ে উঠা নবীনগর উপজেলার একটি ঐতিহ্যবাহী অঞ্চল হলো সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন । কাল পরিক্রমায় আজ সলিমগঞ্জ ইউনিয় শিক্ষা, সংস্কৃতি, ধর্মীয় অনুষ্ঠান, খেলাধুলা সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে তার নিজস্ব স্বকীয়তা আজও সমুজ্জ্বল।

সলিমগঞ্জ ইউনিয়নটি তিতাস নদীর পারে অবস্থিত। সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন একটি ঐতিহ্যবাহী ইউনিয়ন পরিষদ। নবীনগর উপজেলার একবারে শেষ শিমানায় অবস্থিত।

সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার একবারে পশ্চিম সীমানায় অবস্থিত। এ ইউনিয়নের পাশ দিয়ে বলে গেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিখ্যাত নদী তিতাস। পশ্চিম পাশ্র্বে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলা দক্ষিনে বাঞ্ছারামপুর ও উত্তরে নরসিংদী জেলার রায়পুরা উপজেলা অবস্থিত। সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন একটি বানিজ্যিক কেন্দ্র। এখানে কয়েকটি জেলার মানুষ প্রতিদিন যাওয়া আসা করে। ছলিমগঞ্জ ইউনিয়নের ওয়ার্ড সংখ্যা হল ০৯ (নয়) টি। (১) বাড্ডা (২) চর বাড্ডা (৩) বন্দে বাহের চর (৪) কাজীর গাও (৫) কাদৈর (৬) বাড়াইল (৭) নিলখী (৮) রাজনগর (৯) বাড়াইল কৈবত্য পাড়া। আর (১) বাড্ডা (২) চর বাড্ডা (৩) বন্দে বাহের চর (৪) কাজীর গাও এই চারটি গ্রামকে একসাথে মিলে বলা হয় বাড্ডা।এই গ্রামটিতে রয়েছে সরকারবাড়ী,যার ইতিহাস আজ গ্রামের মাঝে আলৌকিত হয়ে আছে।

ভাষা ও সংস্কৃতি নবীনগর উপজেলার ভূ-প্রকৃতি ও ভৌগলিক অবস্থান গত দিক থেকে সলিমগঞ্জ ইউনিয়নের ভাষা ও সংস্কৃতি গঠনে ভূমিকা রেখেছে। নবীনগর উপজেলায় সদরের একবারে পশ্চিম শেষ সিমান্তে অবস্থিত এই ইউনিয়নকে ঘিরে রয়েছে বাঞ্ছারামপুর, রায়পুরা উপজেলা। এখানে ভাষার মূল বৈশিষ্ট্য বাংলাদেশের অন্যান্য উপজেলার মতই, তবুও কিছুটা বৈচিত্র্য খুঁজে পাওয়া যায়। যেমন কথ্য ভাষায় মহাপ্রাণধ্বনি অনেকাংশে অনুপস্থিত, অর্থাৎ ভাষা সহজীকরণের প্রবণতা রয়েছে।আঞ্চলিক ভাষার সাথে সন্নিহিত ব্রাহ্মণবাড়ীয়া, ঢাকার ভাষার অনেকটা সাযুজ্য রয়েছে। গোমতী নদীর গতিপ্রকৃতি ইউনিয়নের আচার-আচরণ, খাদ্যাভ্যাস, ভাষা, সংস্কৃতিতে ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন। তথ্য মনিরুল ইসলাম বাড্ডা সরকারবাড়ী। সুজলা সুফলা শস্য শ্যামলা আমাদের বাড্ডা, বাড্ডার দু’পাশ ঘিড়ে আছে তিতাস নদী, আরো রয়েছে সবুজ মাঠ, বিকেলবেলায় রাখল ও কৃষক সবুজ মাঠ ভরে যায়। রাত ভর তিতাসের বুকে মাছ ধরে জেলেরা।বাড্ডাগ্রামটি অপরূপ সুন্দর দিয়ে ঢেকে আছে।


ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নবীনগর, ছলিমগঞ্জ, বাড্ডা সরকারবাড়ী, শিকড় সন্ধানে বাড্ডা সরকার বাড়ীর পরিচিতি বা ইতিহাস। ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলা, নবীনগর উপজেলা, ছলিমগঞ্জ ইউনিয়ন, বাড্ডা সরকার বাড়ী, এবং বাঞ্ছারামপুর, দরিকান্দি সরকার বাড়ী, একটি পরিবার বা একটি মূল শিকড় বলা যায়। একটি বৃক্ষ বা গাছের ভিত্তি হলো তার মূল বা শিকড়। শিকড় কেবল মাত্র গাছটিকে মাটির উপর শক্ত করে শুধু দাড় করিয়েই রাখে না, সঠিক খাদ্য দ্রব্য খনিজ সরবরাহ করে তার পুর্ণ বিকাশের সুযোগ করে দেয়। তাই এই শিকড় গাছের একটি অন্যতম মূল অংশ। মানুষের ক্ষেত্রেও এমন শিকড় রয়েছে, যা তার অতীত ইতিহাস। এই অতীত ইতিহাসের ধারাবাহিকতায় মানুষের বিকাশ হয়েছে। শিকড় থেকে বিচ্যুত হলে গাছের মতো আমরাও হারিয়ে যাই। ব্রাহ্মণবাড়ীয়া, নবীনগর, ছলিমগঞ্জ, বাড্ডা সরকার বাড়ী একটি সমৃদ্ধ প্রাচীন পরিবার। ইতিহাস ঐতিহ্যের প্রাচুর্যে ভরপুর বাড্ডা সরকার বাড়ী। শ্রদ্বেয় বীর পুরুষ সরকার বাড়ীর এক উজ্জ্বল নক্ষত্র অভিবাবক, জনাব বশির উদ্দীন সরকার সাহেব থেকে শুরু করলাম, সরকার বাড়ীর পরিচিতি লেখা। কিছু জানতে হলে পড়তে হবে, এবার চলুন সরকার বাড়ীর পরিচিতি টা পড়েই দেখি কি আছে।

অতীতের এক একটি পরিবার আজ এক একটি বিশাল জনগোষ্ঠী। চিন্তা-চেতনা, উৎসাহ-উদ্দিপনা, আনন্দ-অনুপ্রেরণা, আর কর্মস্পৃহার কেন্দ্রবিন্দু আমাদের পরিবার। পরিবারকে কেন্দ্র করেই সকল আশা-আকাঙ্ক্ষা, পরিকল্পনা-উন্নয়ন, মেধা-শ্রম-প্রচেষ্টা ঘুর্ণায়মান। মানুষ সামাজিক জীব। একাকি বাস করা মানুষের পক্ষে সম্ভব নয়। সমাজের প্রাথমিক একক বা ইউনিট হচ্ছে পরিবার। ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত কিছু ব্যক্তিকে নিয়ে পরিবারের গঠন। পরিবারের সমন্বয়ে সমাজ গড়ে ওঠে। বাবা-মা, ভাই-বোন, চাচা-চাচি, দাদা-দাদি, ক্ষেত্র বিশেষে নানা-নানি সমন্বয়ে এক একটি পরিবার গঠিত। আধুনিক যুগে বাস্তবতার নিরিখে যৌথ পরিবারের অস্তিত্ব প্রায় বিলীন হয়ে যাচ্ছে। সামাজিক বিবর্তনের সুদীর্ঘ আঁকা বাঁকা পথ পেরিয়ে আজ আমরা বর্তমান অবস্থায় পৌঁছেছি।

শ্রদ্বেয় জনাব, বশির উদ্দীন সরকার সাহেবের শিকড় বা পরিচিতি:- তিন ছেলে। (১) জনাব, নোয়াব আলী সরকার (২) জনাব, ফয়জু উদ্দীন সরকার (৩) জনাব, আজগর আলী সরকার

শ্রদ্বেয় জনাব, নোয়াব আলী সরকার সাহেব এর শিকড় শ্রদ্বেয় জনাব, নোয়ব আলী সরকার সাহেব বহুযোগ আগে থেকেই কুমিল্লা জেলা, মুরাদনগর থানা, ভুতাইল গ্রামে পরিবার সহ বসতি করে যাচ্ছেন। একটি গাছ যতক্ষণ শিকড়ের সাথে সংযুক্ত থাকে ততক্ষণ তাকে গাছ আকড়ে রাখে। কিন্তু যখনই সে শিকড় থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় তাকে আর গাছ আকড়ে রাখেন না। তাই বর্তমান প্রজন্মের সাথে আমাদের যোগাযোগ না থাকায় তাদের পরিচিতি লিপিগুলি সংগ্রহ করা সম্ভব হয়ে উঠেনি, সন্ধানের অপেক্ষায়।

শ্রদ্বেয় ফয়জু উদ্দীন সরকার সাহেব এর শিকড় বা পরিচিতি:- চার ছেলে। (১) জনাব,আফছু উদ্দীন সরকার ( মাষ্টার ) (২) জনাব, তোতা মিয়া সরকার (৩) জনাব,ওয়ারেছ আলী সরকার ( মুক্তার ) (৪) জনাব,সামসুউদ্দীন সরকার

শ্রদ্বেয় জনাব, আফছু উদ্দীন সরকার সাহেব এর শিকড় বা পরিচিতি :- দুই ছেলে, দুই মেয়ে। (১) জনাব, হারুনুর রশীদ সরকার (পূবালী ব্যাংক ম্যানেজার ) (২) জনাব, ফোরকান উদ্দীন সরকার ( মুক্তার ) (৩) জনাবা, মোছাম্মদ নাসরিন আক্তার ( সরকার ) (৪) জনাবা, মোছাম্মদ শিউলী আক্তার ( সরকার )

জনাব, হারুনুর রশীদ সরকার (পূবালী ব্যাংক ম্যানেজার ) এর শিকড় বা পরিচিতি :- এক ছেলে এক মেয়ে। (১) জনাব, মোহাম্মদ নিপু সরকার (২) জনাবা, জান্নাতুল ফেরদৌস (সরকার) জনাব, ফোরকান উদ্দীন সরকার সাহেব, দরিকান্দি বাড্ডা আছমাতু নেচ্ছা বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় এর ম্যানেজিং কমিটির মেম্বার নির্বাচিত হয়েছেন বহুবার। জনাব, ফোরকান উদ্দীন সরকার ( মুক্তার ) এর শিকড় বা পরিচিতি:- এক ছেলে এক মেয়ে। (১) জনাব, আল মামুন তপু সরকার (২) জনাবা, মোছাম্মদ পূর্ণি সরকার

জনাব, তোতা মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি :- দুই ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব, মোহন মিয়া সরকার (২) জনাব, মতিন মিয়া সরকার (৩) জনাবা, মোছাম্মদ আমিনা খাতুন ( সরকার ) (৪) জনাবা, মোছাম্মদ মোমেনা খাতুন ( সরকার )

জনাব, মোহন মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- দুই ছেলে তিন মেয়ে। (১) জনাব, মোছা সরকার (২) জনাব, আল আমিন সরকার (৩) মোছাম্মদ নাহার বেগম ( সরকার ) (৪) জনাবা, মোছাম্মদ হালিমা বেগম ( সরকার ) (৫) জনাবা, মোছাম্মদ সালমা বেগম ( সরকার )

জনাব, মতিন সরকার সাহেব এর শিকড় বা পরিচিতি:- দুই ছেলে। (১) জনাব, আতাউর রহমান ( খোকন ) সরকার (২) জনাব, সোহাগ সরকার

জনাব,ওয়ারেছ আলী সরকার ( মুক্তার ) এর শিকড় বা পরিচিতি:- এক ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব, নজরুল ইসলাম ( নুরু মিয়া ) সরকার ( বি ডি আর মুক্তিযুদ্ধা ) (২) জনাবা, মোছাম্মদ রেজিয়া খাতুন ( সরকার ) (৩) জনাবা, মোছাম্মদ হাতেম খাতুন ( সরকার )

জনাব, নজরুল ইসলাম ( নুরু মিয়া ) সরকার ( বি ডি আরমুক্তিযুদ্ধা ) এর শিকড় বা পরিচিতি:- তিন ছেলে তিন মেয়ে। (১) জনাব, আলমগীর সরকার (২) জনাব, শামীম সরকার (৩) জনাব, সুমন সরকার (৪) মোছাম্মদ লিলি বেগম ( সরকার ) (৫) মোছাম্মদ ডলি বেগম ( সরকার ) (৬) মোছাম্মদ ময়না বেগম ( সরকার )

জনাব,সামসুউদ্দীন সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি :- চার ছেলে। (১) জনাব, জয়নাল সরকার (২) জনাব, মুতিউর রহমান সরকার (৩) জনাব, মানিক মিয়া সরকার (৪) জনাব, জাম্মান সরকার তবে ওরা এখন বাড্ডা সরকার বাড়ীতে বসবাস করেন না, অনেক দিন পূর্বে এই পরিবারটি সিলেট চলে গেছেন, বর্তমান ওরা ঢাকায় বাড়ী করে ঢাকাতেই বসবাস করতেছেন।

পরিচ্ছেদসমূহ  [লুকিয়ে রাখুন]  ১ =======0===== ২ ========0==== ৩ =======০==== ৪ =====০======= ৫ =========০=== ৬ ০=== ৭ ======০====== ৮ ========০==== =======0=====[উৎস সম্পাদনা] শ্রদ্বেয় জনাব, আজগর আলী সরকার সাহেব এর শিকড় বা পরিচিতি:- ছয় ছেলে তিন মেয়ে। (১) জনাব, ওমর আলী সরকার ( মুক্তার ) (২) জনাব, মোকবল হোসেন সরকার (দারোগা, ডিসটিক ইনটিলিজেনট ব্রান্স ) (৩) জনাব, আবদু মিয়া সরকার ( Government Servants) ( সরকারী চাকরিজীবী ) (৪) জনাব, এ এম নাজির উদ্দীন সরকার ( মালেক মিয়া ) (ইন্সপেক্টর ) (৫) জনাব, ফিরোজ মিয়া সরকার ( বি. সি. আই. সি.) (৬) জনাব, সুজ্জু মিয়া সরকার ( ব্যবসায়ী )

জনাব, ওমর আলী সরকার ( মুক্তার ) দরিকান্দি বাড্ডা আছমাতু নেচ্ছা বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় এর ম্যানেজিং কমিটির মেম্বার নির্বাচিত হয়েছেন বহুবার। জনাব, ওমর আলী সরকার ( মুক্তার ) এর শিকড় বা পরিচিতি:- দুই ছেলে। (১) জনাব, লিয়াকত আলী সরকার (২) জনাব, তৈয়ব আলী সরকার ( স্ট্যাম্প ভেন্ডার ব্যবসায়ী )

জনাব, মোকবল হোসেন সরকার ( দারোগা ) এর শিকড় বা পরিচিতি:- তিন ছেলে এক মেয়ে। (১) জনাব, ডাক্তার গোলাম মোস্তফা সরকার ( বকুল মিয়া) (দারোগা, ডিসটিক ইনটিলিজেনট ব্রান্স ) (২) জনাব, বাবুল সরকার (৩) জনাব, ফারুক সরকার (৪) জনবা, মোছাম্মদ আলেখা বেগম ( জাকু সরকার ) তিনি ছলিমগঞ্জ ইউনিয়নের মহিলা মেম্বার নির্বাচিত হয়েছিলেন।বর্তমানে তার মেয়ে রেশমা আক্তার (রুবি) ছলিমগঞ্জ ইউনিয়নের মহিলা মেম্বার নির্বাচিত ।

জনাব, আবদু মিয়া সরকার ( Government Servants) এর শিকড় বা পরিচিতি:- এক ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব, আব্দু রহিম সরকার ( পোস্ট অফিস অবশেয়ার ইনচার্জ ) (২) জনাবা, মোছাম্মদ রবিসের নেছা ( সরকার ) (৩) জনাবা, মোছাম্মদ আয়েশা সরকার

জনাব, এ এম নাজির উদ্দীন সরকার ( মালেক মিয়া ) (ইন্সপেক্টর ) এর শিকড় বা পরিচিতি:- পাঁচ ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব, মিজানুর রহমান সরকার ( ইঞ্জিনিয়ার ) (২) জনাব, মোজামেল হক সরকার (৩) জনাব, মাফুজুর রহামন সরকার (৪) জনাব, মকসুদুর রহামন সরকার (৫) জনাব, তানভীর সরকার ( লন্ডন প্রবাসী ) (৬) জনাবা, রাহেলা সরকার (৭) জনাবা, মাহমুদা সরকার

জনাব, ফিরোজ মিয়া সরকার ( বি. সি. আই. সি.) এর শিকড় বা পরিচিতি:- এক ছেলে চার মেয়ে। (১) জনাব, মাহবুব সরকার (২) জনাবা, নার্গিস পারভীন ( সেতারা সরকার ) (৩) জনাবা, রাবেয়া সরকার (৪) জনাবা, শ্যামলী সরকার (৫) জনাবা, সীমা সরকার

জনাব, সুজ্জু মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- এক ছেলে এক মেয়ে। (১) জনাব, মনিরুল ইসলাম সরকার ( আর্কিটেকচার এণ্ড গ্রাফিক্স ডিজাইনার ) (২) জনাবা, মধুমালা (পপি সরকার )

========0====[উৎস সম্পাদনা] শ্রদ্বেয় জনাব, জমীরউদ্দীন সরকার এবং শ্রদ্বেয় জনাব,আনছুর আলী সরকার শিকড় বা পরিচিতি:- শ্রদ্বেয় জনাব, জমীরউদ্দীন সরকার এর ছেলে জনাব, তাজউদ্দীন সরকার শ্রদ্বেয় জনাব,আনছুর আলী সরকার এর ছেলে জনাব, আশ্ররাফ আলী সরকার জনাব, তাজউদ্দীন সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:-এক ছেলে ওয়াদুদ সরকার। জনাব, ওয়াদুদ সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- চার ছেলে। (১) জনাব, নিজাম উদ্দীন সরকার (২) জনাব, নাছির উদ্দীন সরকার (৩) জনাব, কামাল উদ্দীন সরকার (৪) জনাব, মোছলেম উদ্দীন সরকার

জনাব, নিজাম উদ্দীন সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- চার ছেলে এক মেয়ে। (১) জনাব, মাইন উদ্দীন সরকার ( ব্যবসায়ী ) (২) জনাব, দেলোয়ার সরকার ( ব্যবসায়ী ) (৩) জনাব, সজল সরকার ( ব্যবসায়ী ) (৪) জনাব, আলাল সরকার (৫) জনাবা, তাসমিমা সরকার

জনাব, নাছির উদ্দীন সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:-চার ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব, কুদ্দুস সরকার (২) জনাব, জামাল উদ্দীন সরকার (৩) জনাব, মর্শিদ সরকার (৪) জনাব,আওয়াল সরকার (৫) জনাবা, সুফিয়া খাতুন (সরকার) (৬) জনাবা, রফিয়া খাতুন (সরকার)

জনাব, কামাল উদ্দীন সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:-চার ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব,জাম্মান সরকার (২) জনাব, আল আমিন সরকার (৩) জনাব, রাব্বিল সরকার (৪) জনাব, সাব্বির সরকার (৫) জনাবা, খোকমনি সরকার (৬) জনাবা, মাহমুদা সরকার

জনাব, মোছলেম উদ্দীন সরকার, ঢাকায় চাকরিজীবী ছিলেন, বর্তমান সময়ে তিনি ঢাকায় বাড়ী করেছেন, এবং ব্যবসা আছে নিজের তাই তিনি ঢাকায় নিজ বাড়ীতেই থাকেন তার দুই মেয়ে।

শ্রদ্বেয় জনাব, আশ্ররাফ আলী সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- তিন ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব, সুরুজ মিয়া সরকার (২) জনাব, আবুল কাশেম সরকার ( কালা মিয়া ব্যাপারী) (৩) জনাব, মোহাম্মদ আলী সরকার (৪) জনাবা, মোছাম্মদ খাতুন (সরকার) (৫) জনাবা, মোছাম্মদ উর্মি বেগম (সরকার)

জনাব, সুরুজ মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- তিন ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব, আরজু মিয়া সরকার (২) জনাব, কাউছার সরকার (৩) জনাব, শাহজাহান সরকার (৪) জনাবা, পাভীন সরকার (৫) জনাবা, নাজু সরকার

জনাব, আবুল কাশেম সরকার ( কালা মিয়া ব্যাপারী ) এর শিকড় বা পরিচিতি:- ছয় ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব, মোমেন মিয়া সরকার (মাওলানা ) (২) জনাব, হুমায়ন আহম্মদ সরকার ( ব্যবসায়ী ) (৩) জনাব, জীবন সরকার (৪) জনাব, বাদল মিয়া সরকার (ব্যবসায়ী ) (৫) জনাব, আবুল হোসেন সরকার ( ব্যবসায়ী ) (৬) জনাব, আনোয়ার হোসেন সরকার (৭) জনাবা, জুলেখা বেগম (সরকার) (৮) জনাবা, রুহেনা বেগম ( সরকার )

জনাব, মোহাম্মদ আলী সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- তিন ছেলে তিন মেয়ে। (১) জনাব, জালাল সরকার (২) জনাব, ফরিদ সরকার (৩) জনাব, সোহরাব সরকার (৪) জনাবা, মায়া রানী সরকার (৫) জনাবা, মর্জিনা সরকার (৬) জনাবা, জায়েদা সরকার

=======০====[উৎস সম্পাদনা] শ্রদ্বেয় জনাব, ঈমান আলী সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- ছেলে মুঞ্জুর আলী সরকার। শ্রদ্বেয় জনাব, মুঞ্জুর আলী সরকার এর এক ছেলে চার মেয়ে। (১) জনাব, মদন মিয়া সরকার (২) জনাবা, জ্যোৎস্না বেগম ( সরকার ) (৩) জনাবা, রেনু বেগম ( সরকার ) (৪) জনাবা, বেনু বেগম ( সরকার ) (৫) জনাবা, মনি বেগম ( সরকার )

জনাব, মদন মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- তিন ছেলে। (১) জনাব, সজল আহম্মেদ সরকার (২) জনাব, কাজল সরকার (৩) জনাব, অপু সরকার

শ্রদ্বেয় জনাব, হাছান আলী সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- দুই ছেলে দুই মেয়ে । (১) জনাব, দানু মিয়া সরকার (২) জনাব, আনু মিয়া সরকার (৩) জনাবা, আবুতারা বেগম ( সরকার ) (৪) জনাবা, সায়েজতারা বেগম ( সরকার )

জনাব, দানু মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- তিন ছেলে। (১) জনাব, ফারুক সরকার (২) জনাব, ছোট্ট মিয়া সরকার (৩) জনাব, মঞ্জিল আহম্মদ সরকার

জনাব, আনু মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- এক মেয়ে। (১) জনাবা, সেনুয়ারা বেগম (সরকার) বশির উদ্দীন সরকার, ফয়জুদ্দীন সরকারের বংশধর ওহেদ আলী সরকার। ওহেদ আলী সরকারের ছেলে হযরত দয়াল মনুর উদ্দীন শাহ (সরকার) জনাব, সুন্দর আলী সরকার এর এক ছেলে, জনাব, রশিদ মিয়া সরকার, জনাব, রশিদ মিয়া সরকার অনেক দিন আগে থেকে ছেলে,মেয়ে পরিবার সহ চট্টগ্রাম বাড়ী করে বসবাসরত আছেন।

=====০=======[উৎস সম্পাদনা] শ্রদ্বেয় জনাব, রেহমান ব্যাপারী সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- চার ছেলে। (১) জনাব, গফুর মিয়া সরকার ( ডিলার ) (২)জনাব, জব্বার মিয়া সরকার (৩) জনাব, কালু মিয়া সরকার (৪) জনাব, ফাইজ উদ্দীন সরকার

জনাব, গফুর মিয়া সরকার ( ডিলার ) এর শিকড় বা পরিচিতি:- এক ছেলে। (১) জনাব, আবুল কাশেম সরকার জনাব, জব্বার মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- এক ছেলে । (১) জনাব, জহর মিয়া সরকার জনাব, কালু মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- চার ছেলে। (১) জনাব, কাঞ্চন মিয়া সরকার (২) জনাব, শহীদ মিয়া সরকার (৩) জনাব, সৈয়দুর রহমান সরকার (৪) জনাব, মানিক মিয়া সরকার

জনাব, ফাইজ উদ্দীন সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- পাঁচ ছেলে এক মেয়ে। (১) জনাব, নজরুল ইসলাম সরকার ( ডক্টরেট ) (২) জনাব, অরুন মিয়া সরকার ( ব্যবসায়ী ) (৩) জনাব, ফুল মিয়া সরকার (৪) জনাব, হুমায়ন কবির সরকার (ইঞ্জিনিয়ার ) (৫) জনাব, সাইফুল ইসলাম সরকার (৬) জনাবা, আনার বেগম (সরকার)

প্যানেল চেয়ারম্যান, ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলা পরিষদ জনাব, ফাইজ উদ্দীন সরকার এর সুযোগ্য নাতনী, জনাব, অরুন মিয়া সরকার এর সুযোগ্য মেয়ে “সনি আক্তার সুচি”

=========০===[উৎস সম্পাদনা] বাড্ডা উত্তরপাড়া সরকার বাড়ীর এবং দক্ষিনপাড়া সরকার বাড়ী একই বংশদর। বাড্ডা উত্তরপাড়া সরকার বাড়ীতে বসবাসরত আছেন শ্রদ্বেয় জনাব মালুমিয়া সরকার। শ্রদ্বেয় জনাব মালুমিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতিঃ জনাব মালুমিয়া সরকার এর এক ছেলে- জনাব চাঁনমিয়া সরকার। জনাব, চাঁনমিয়া সরকারের তিন ছেলে দুই মেয়ে, (১) জনাব, আমির হোসেন সরকার (২) জনাব, জাকির হোসেন সরকার (৩) জনাব, সাদ্দাম হোসেন সরকার (৪) জনাবা, আমেনা বেগম (সরকার) (৫) জনাবা, লিপি বেগম (সরকার)

জনাব,আমির হোসেন সরকার এর শিকড় বা পরিচিতিঃ জনাব,আমির হোসেন সরকার এর এক ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব,সুজন সরকার (২) জনাবা, আতিফা আক্তার (সরকার) (৩) জনাবা, সুরাইয়া আক্তার (সরকার)

জনাব, আপ্তার উদ্দীন সরকার এর শিকড় বা পরিচিতিঃ জনাব, আপ্তার উদ্দীন সরকার এর তিন ছেলে, (১) জনাব, রহমত উল্লা মোল্লা (সরকার) (২) জনাব, মালুমিয়া সরকার (৩) জনাব, শুক্কুর আলী সরকার

জনাব, রহমত উল্লা মোল্লা (সরকার) এর শিকড় বা পরিচিতিঃ জনাব, রহমত উল্লা মোল্লা (সরকার) এর দু্ই ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব, মালেক মিয়া সরকার (২) জনাব, সূরুজমিয়া সরকার (৩) জনাবা, আছিয়া বেগম (সরকার) (৪) জনাবা, মরিয়ম বেগম (সরকার)

জনাব, মালেক মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতিঃ জনাব, মালেক মিয়া সরকার এর তিন ছেলে এক মেয়ে, (১) জনাব,বিল্লাল মিয়া সরকার (২) জনাব, আলম মিয়া সরকার (৩) জনাব, মিজান মিয়া সরকার (৪) জনাবা, জাহানারা বেগম (সরকার)

জনাব, বিল্লাল মিয়া সরকার এর দুই ছেলে এক মেয়েঃ (১) জনাব, আওলাদ হোসেন সরকার (২) জনাব, মুকবল হোসেন সরকার (৩) জনাবা, মুনছুরা বেগম (সরকার)

জনাব, আলম মিয়া সরকার এর দুই ছেলেঃ (১) জনাব, মোঃ আবদুল্লাহ সরকার (২) জনাব, মোঃ শাহজালাল সরকার

জনাব,মিজান মিয়া সরকার এর দুই ছেলেঃ (১) জনাব, মোঃ পরান সরকার (২) জনাব, মোঃ জাহিদ সরকার বর্তমান সময়ে এরা এখন চট্টগ্রাম বসবাসরত আছেন। মালুমিয়া সরকার ও শুক্কুর আলী সরকার।

জনাব, সূরুজমিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতিঃ জনাব, সূরুজমিয়া সরকার এর দুই ছেলে তিন মেয়ে, (১) জনাব, মোঃ মুসা সরকার (২) জনাব, মোঃ ইসহাক সরকার (৩) জনাবা, নূরনাহার বেগম (সরকার) (৪) জনাবা, ইয়াসমীন বেগম (সরকার) (৫) জনাবা, মমতাজ বেগম (সরকার)

জনাব, মুসা সরকার এর দুই ছেলেঃ (১) জনাব, মোঃ আরিফ সরকার (২) জনাব, মোঃ শরীফ সরকার

জনাব, মোঃ ইসহাক সরকার এর এক মেয়েঃ (১) জনাবা, ইভা সরকার

০===[উৎস সম্পাদনা] পৃথিবীটা আজব পৃথিবী, মোট কথা এই সমাজে, আত্মীয়তার বন্ধনে আবদ্ধ হয়েই সবাই বেঁচে থেকেছেন শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে। অনুসন্ধানে দেখা যায়, বাস্তবিক জীবনে পরস্পরের সাথে কত গভীর আত্মীয়তার বন্ধনে প্রতিটি মানুষ জড়িত। আত্মীয়তার বন্ধনে সরকার বাড়ীর সাথে জড়িত হয়ে, আরো ঘনিষ্ঠ নিজ পরিবারের মতো সরকার বাড়ীর বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে গেছে। ব্যক্তি,পরিবার ও সমাজে আত্মীয়তার সর্ম্পক সর্বতোভাবে জড়িত, সরকার বাড়ীর বিরাট একটি অংশ, যারা সরকার বাড়ীর রক্তে মাংসে মিশে আছে। (১) জনাব, ফজলু মিয়া সরকার (২) জনাব, মাক্কু মিয়া সরকার (৩) জনাব, কুদ্দুস মিয়া সরকার (৪) জনাব, হাসু মিয়া সরকার

জনাব, ফজলু মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- ছয় ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব, শাহজাহান সরকার ( ব্যবসায়ী ) (২) জনাব, শাহ আলম সরকার ( ব্যবসায়ী ) (৩) জনাব, শাহ জালাল সরকার ( ব্যবসায়ী ) (৪) জনাব, জালাল উদ্দীন সরকার (৫) জনাব, হেলাল সরকার (৬) জনাব, সিতল মিয়া সরকার

জনাব, মাক্কু মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- তিন ছেলে আট মেয়ে। (১) জনাব, মিজানুর রহামন সরকার (ব্যবসায়ী ) (২) জনাব, খোরশেদ মিয়া সরকার ( ব্যবসায়ী ) (৩) জনাব, কবির সরকার ( ব্যবসায়ী ) জনাব, কুদ্দুস মিয়া সরকার এর শিকড় পরিচিতি:- দুই ছেলে। (১) জনাব, মজিবুর রহামন সরকার (২) জনাব,

জনাব, হাসু মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- দুই ছেলে চার মেয়ে। (১) জনাব, ফরিদ মিয়া সরকার ( ব্যবসায়ী ) (২) জনাব, হানান মিয়া সরকার

======০======[উৎস সম্পাদনা] (১) জনাব, সানু মিয়া সরকার (২) জনাব, অহিদ মিয়া সরকার (৩) জনাব, সেন্টু মিয়া সরকার (৪) জনাব, এরশাদ মিয়া সরকার (৫) জনাব, হালিম মিয়া সরকার

জনাব, সানু মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- তিন ছেলে চার তিন মেয়ে। (১) জনাব, জাকির হোসেন সরকার (২) জনাব, আলী হোসেন সরকার (৩) জনাব, মনির হোসেন সরকার (৪) জনাবা, মোছাম্মদ ফাতিমা বেগম(সরকার) (৫) জনাব, মোছাম্মদ রহিমা বেগম (সরকার) (৬) জনাবা, মোছাম্মদ জলি বেগম (সরকার)

জনাব, অহিদ মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- পাঁচ ছেলে দুই মেয়ে। (১) জনাব, ইয়াসিন সরকার (২) জনাব, ফেরদৌস সরকার (৩) জনাব, রাবিল সরকার (৪) জনাব, টিটু সরকার (৫) জনাব, টুটেল সরকার (৬) জনাবা, রোমানা (সরকার) (৭) জনাবা, রুনা (সরকার)

জনাব, এরশাদ মিয়া সরকার এর শিকড় বা পরিচিতি:- দুই ছেলে এক মেয়ে। (১) জনাব, শিপন মিয়া সরকার (২) জনাব, শামিম মিয়া সরকার (৩) জনাবা, মোছাম্মদ হনুফা বেগম (সরকার) সকলের ছবি সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি, তাই সব ছবি দিতে পারিনি।

বাঞ্ছারামপুর দরিকান্দি সরকার বাড়ী এবং আমাদের বাড্ডা সরকার বাড়ী, একই মূল শিকড় থেকে জন্ম, আমরা একটি পরিবার। দরিকান্দি মধ্যপাড়া জনাব, হানিফ সরকার এর বাড়ী (জনাব, টুকু মাস্টার সরকার, জনাব উকিল ডাক্তার সরকার, জনাব এস পি হাবীব সরকার, জনাব ইদনমিয়া সরকার)

========০====[উৎস সম্পাদনা] বিঃদ্রঃ তথ্যাবলী পর্যবেক্ষণে হয়ত কিছু ভুল হতেও পারে, যদি আপনাদের সঠিক তথ্য জানা থাকে, আমাকে সঠিক তথ্য দিতে পারেন, তাহলে ভুলগুলি সুদ্রে নেব, প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। মানুষ মাত্র ভুল , ভুল হলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। মনিরুল ইসলাম সরকার ( আর্কিটেকচার এণ্ড গ্রাফিক্স ডিজাইনার )

আমার মাসম্পাদনা

আমার “ মা ” ৭ই এপ্রিল ২০১৮ইং রোজ শনিবার ভোর ৪:৩০মিনিট, আমার জীবন থেকে চলে গেলো আমার আত্মা, আমার গর্ভধারিণী মা, যেই মা, আমাকে পৃথিবীর মূখ দেখালো আজ সেই মাই চলে গেলো। মা’ মাগো, তুমি আমার মাঝে নেই ভাবতে বড় কষ্ট লাগে। এ যেন ক্লান্তিময় এক দিনের সূচনা। মনের উদ্বেগকে কোনভাবেই মন থেকে আলাদা করা যাচ্ছে না, বৃথা চেষ্টা মাত্র। চাপা কান্না আর শত কষ্টের ভারে বাতাস যেন ক্রমশ ভারী হয়ে আসছে। স্পষ্টতই উপলব্ধি করছি এ মুহূর্তে মাকে হারানোর ব্যাথা আর শূণ্যতা ছাড়া আর কিছুই আমার ভাবনায় নেই। সন্তানের জীবনে মায়ের আসন হৃদয়ের সবটা জুড়েই। কেউবা তা প্রকাশ করতে পারেন খুব সহজে। আবার কোন কোন সন্তান তার প্রতিটি হৃদয় স্পন্দনে গভীর ভাবে তা উপলব্ধি করেন, কিন্তু প্রকাশ ক্ষমতায় তেমন পারদর্শী নন। আসলে বিশাল এক ছায়ার নাম ‘মা’। সন্তানের জীবনে মায়ের কোন বিকল্প নেই। মায়া, মমতা, আদর, স্নেহের এক অফুরন্ত ভান্ডার। জাগতিক জীবনে এক নিঃস্বার্থ ও নিরাপদ আশ্রয়স্থল।

‘মা’ একটি ছোট্ট শব্দ। এই শব্দের মধ্যেই লুকিয়ে আছে পৃথিবীর সব মায়া, মমতা, অকৃত্রিম স্নেহ আদর, নিঃস্বার্থ ভালোবাসার সব সুখের কথা। চাওয়া-পাওয়ার এই পৃথিবীতে মায়ের ভালোবাসার সঙ্গে কোন কিছুর তুলনা চলে না। মায়ের তুলনা মা নিজেই। মায়ের মতো এমন মধুর শব্দ অভিধানে দ্বিতীয়টি আর আছে কিনা আমি জানিনা। টাকা হলে আমি চাঁদের দেশে যেতে পারবো এবং চাইলে সাগরের তলদেশে যাওয়া যাবে কিন্তু মায়ের ভালোবাসার গভীরতা পরিমাপ করা সম্ভব কখনো হবে না। ‘মা’ যেন সীমার মাঝে অসীম, যার কোন তুলনা নেই।

মা শব্দটি ছোট হলেও এর বিশালতা আকাশের চেয়েও বড়। মা সন্তানের সুখের জন্য হাসিমুখে সব কিছু বিলিয়ে দিতেও মা কার্পণ্য করেন না। এই পৃথিবীর হাজারো অভিধানের মধ্যে সবচেয়ে সুমধুর শব্দ হচ্ছে মা। মা বলতেই চোখের সামনে মায়ের সদা হাস্যময়ী চেহারা ভেসে ওঠে। শহরে কি গ্রামে বা বিদেশে সবখানেই মায়ের শাশ্বত রূপ সদাই যেন একই রকম। মাকে ঘিরেই সন্তানের শৈশব-কৈশোর আবর্তিত হয়ে থাকে। আমি জানি না মায়ের কোন সংজ্ঞা আছে কিনা। আমার মতে মায়ের সংজ্ঞা মা নিজেই। মায়ের ক্ষেত্রে কোন সংজ্ঞা প্রযোজ্য বলে মনে হয় না। মা এমন একটি শব্দ যাকে ভাঙ্গা ও যায় না গড়াও যায় না।

মা’ তোমাকে কি তোমার যোগ্য মর্যাদা দিতে পেরেছি আমি? আমার মনে হয় আমি পারিনি মা।জানো মা’ তুমি বড্ড সরল মনের মানুষ ছিলে, আমি এখন বুজি মা তুমি কত ভালোবাসতে আময়।তুমি নিজে না খেয়ে আমার মুখে খানা তুলে দিয়েছ মা। মা’ আবেগের আকূলতায় তোমার মুখটি ভেসে ওঠে স্মৃতির মণিকোঠায়। কারণে-অকারণে কত না কষ্ট দিয়েছি তোমাকে। কতবার মনের জিদ্দে তোমাকে গালিগালাজ করেছি, তারপরও তুমি আদর করে বুকে জড়িয়ে নিয়েছ। মা’ এখন আর কেউ আমাকে তোমার মত করে ডাকে না। নিঃস্ব-নিঃসঙ্গ তোমাকে কখনোই শান্তি দিতে পারিনি, হয়তবা জীবনভর শুধু উৎকণ্ঠা আর সীমাহীন দুশ্চিন্তায় কেটেছে তোমার অনেকটা সময়। বলতে দ্বিধা নেই, তুমি ছিলে সৃজনশীল শৈল্পিক মনের একজন সরল-সাধারণ মানুষ। সেজন্য সন্তান হিসেবে আমি গর্বিত। জানো মা তোমাকে দেখতে বিষণ ইচ্ছা হয়, তোমার আদর পেতে মন চায় মা। মৃত্যুকালে তোমায় দেখতে পারিনি মা, তুমি আমায় ক্ষমা করে দিও মা, আমি তোমাকে অনেক ভালোবাসি মা। মা-মাগো আমি তোমার নিকট চলে আসতে চাই, আমাকে নিয়ে যাও মা।

মনিরুল ইসলাম মনির, গ্রাম বাড্ডা সরকারবাড়ী, ইউনিয়ন সলিমগঞ্জ, উপজেলা নবীনগর, জেলা ব্রাহ্মণবাড়য়া।

মনিরুল ইসলাম সরকারসম্পাদনা

মোঃমনিরুল ইসলাম সরকার, ২ই ফেব্রুয়ারি ১৯৮২তে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা, নবীনগর উপজেলা, সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন, বাড্ডা সরকারবাড়ীতে জন্ম গ্রহণ করেন, পিতা: মোঃসুজ্জু মিয়া সরকার, মাতা মোসা:সুফিয়া খাতুন। পেশা: গ্রাফিক্স ডিজাইনার এণ্ড আর্কিটেকচার ও চিত্রশিল্পী । মনিরুল ইসলাম অনেকটা প্রতিবাদী, ন্যায়ের পক্ষে কথা বলতে ভালোবাসেন। ছোট সময় থেকে মনিরুল ইসলাম ছবি আঁকা ভালোবাসেন, একসময় ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর ও বাঞ্ছারামপুর তার ছবি আঁকা ভালো প্রসংশনীয় হয়ে উঠেন। তার লেখা বেশ কিছু কবিতা ও বাণী আছে।

  1. পুনর্নির্দেশ [[
শিরোনামের লেখ শিরোনামের লেখ শিরোনামের লেখ
উদাহরণ উদাহরণ উদাহরণ
উদাহরণ উদাহরণ উদাহরণ
উদাহরণ উদাহরণ উদাহরণ

]]