বেঙ্গল গেজেট

ভারতের প্রথম সংবাদপত্র

বেঙ্গল গেজেট বা হিকির বেঙ্গল গেজেট ছিল ভারতের কলকাতা থেকে প্রকাশিত একটি ইংরেজি সাপ্তাহিক পত্রিকা।[১][২] এটি ছিলো ভারতের প্রথম প্রধান পত্রিকা যা ১৭৮০ সালের ২৯শে জানুয়ারি যাত্রা শুরু করে।[৩] এটি দুই বছর পর্যন্ত প্রকাশ হয়েছিল। ১২ ইঞ্চি দীর্ঘ ও ৮ ইঞ্চি প্রস্থ দুই পৃষ্ঠার এ পত্রিকাটির মালিক, সম্পাদক ও প্রকাশক ছিলেন জেমস অগাস্টাস হিকি[৩] ২৩শে মার্চ ১৭৮২ সালে পত্রিকাটির প্রকাশনা বন্ধ হয়ে যায়।

হিকির বেঙ্গল গেজেট
Hicky
হিকির বেঙ্গল গেজেটের প্রথম পৃষ্ঠা, ১০ই মার্চ, ১৭৮১। হেইডেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগ্রহ থেকে
ধরনসাপ্তাহিক
প্রকাশকজেমস অগাস্টাস হিকি
প্রতিষ্ঠাকাল২৯ জানুয়ারি, ১৭৮০
প্রকাশনা স্থগিত৩০ মার্চ ১৭৮২
সদরদপ্তর৬৭ রাধাবাজার
কলকাতা, ভারত
হিকির বেঙ্গল গেজেট।

প্রতিষ্ঠাতাসম্পাদনা

জেমস অগাস্টাস হিকি নামে একজন অত্যন্ত অদ্ভুত প্রকৃতির আইরিশ পত্রিকাটি প্রতিষ্ঠা করে যিনি পূর্বে দেনার দায়ে দুই বছর জেলে কাটান। পরবর্তীতে গভর্নর জেনারেল লর্ড ওয়ারেন হেস্টিংস-এর রোষানলে পরে পুনরায় জেলে যান। তিনি অধিকাংশ সময়ই লর্ড হেস্টিংসের স্ত্রী লেডি হেস্টিংসকে ব্যঙ্গ করে তাই নিবন্ধ প্রকাশ করতেন।[৪] তিনি জেলে থাকা অবস্থায়ও তার লেখা চালিয়ে যান ও পরবর্তীকালে লর্ড হেস্টিংসের আদেশে তার লেখার যন্ত্র বাজেয়াপ্ত করা হয়। হিকির এই পত্রিকাটিই ভারতীয় উপমহাদেশের প্রথম ইংরেজি পত্রিকা ও একই সাথে উপমহাদেশের প্রথম কাগজে মুদ্রিত পত্রিকা। সেসময় ভারতে দায়িত্ব পালন করা ব্রিটিশ সৈন্যদের কাছেই শুধুমাত্র পত্রিকাটি জনপ্রিয়তা অর্জন করেনি সাথে সাথে এটি ভারতীয়দের নিজেদের পত্রিকা প্রকাশে উৎসাহিতও করেছিল।

ইতিহাসসম্পাদনা

বেঙ্গল গেজেট পত্রিকাটির ইতিহাস কিছুটা বৈচিত্র্যপূর্ণ। কারণ এটির প্রতিষ্ঠাতা জেমস আগাস্টাস হিকি কিছুটা জেদ করেই এই পত্রিকাটি প্রকাশ করা শুরু করেন। এটি প্রকাশের আগে তিনি জেলে ছিলেন। তখনকার সময়ে জেলে থাকলে নিজের খরচ নিজেকেই চালানো লাগতো। হিকি জেলে বসেই ছাপাখানার কাজ করতেন। সেখানে বিজ্ঞাপন, দলিল, দিনপঞ্জিকা ইত্যাদি ছাপানোর কাজ করতেন। কিছুদিন পর যখন দেখলেন ছাপাখানায় বেশি সুবিধা করতে পারছেন না তখন তিনি পত্রিকা প্রকাশের সিদ্ধান্ত নিলেন। ১৭৮০ সালে, কলকাতার ৬৭ নম্বর রাধাবাজার থেকে প্রকাশিত হল হিকির বেঙ্গল গেজেট।[৫] হিকির পত্রিকার পাঠকশ্রেণী ছিল বেসরকারি ইংরেজ ব্যাক্তিরা, ভারতবর্ষে ব্যবসা করতে আসা ইউরোপিয়ানরা। নিয়মিত পাঠকরা চিঠি লেখত। চিঠিতে লেখা হতো তৎকালীন প্রসাশনের বিভিন্ন দুর্নীতির খবরাখবর, অভাব-অভিযোগ। আদলতের বেআইনি কাজকর্ম, সিক্কা মুদ্রা বাতিলের ফলে অসুবিধাসহ প্রসাশনের আরো নানান অপকর্ম উঠে আসতো হিকির পত্রিকায়। বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার জন্য যেমন হিকির শুভাকাঙ্ক্ষীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছিল তেমনি হিকির শত্রুও বৃদ্ধি পাচ্ছিল। বিশেষ করে গভর্নর হেস্টিংস এবং সুপ্রিমকোর্টের প্রধানবিচারপতি ইলিজা ইম্পে আরো বেশি ক্ষেপে যান। হেস্টিংস একের পর এক মামলা দিতে থাকেন হিকির বিরুদ্ধে। তিনি এবং ইলিজা ইম্পে সুযোগ খুঁজতে থাকেন হিকিকে জব্দ করার। একসময় হিকি গ্রেপ্তার হন। ১৭৮২ সালে, পত্রিকা প্রতিষ্ঠার মাত্র দুবছরের মাথায় হেস্টিংসের ইঙ্গিতে হিকির বেঙ্গল গেজেট বায়েজাপ্ত করা হয়।[৬]

বর্ণনাসম্পাদনা

পত্রিকাটিতে মূলত বিজ্ঞাপন, বিদেশি ইংরেজি পত্রিকা থেকে উদ্বিৃতি ও সংবাদদাতাদের বিবরণধর্মী লেখা ছাপা হতো। “পোয়েটস কর্ণার” নামে একটি বিশেষ অংশ ছিল। এ অংশটি অনেকেরই নজর কেড়েছিল। হিকি সহ আরো কয়েকজন নিয়মিত কবিতা লিখতেন। প্রেম-ভালোবাসা, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ছিল কবিতার বিষয়বস্তু।[৬] প্রকাশের প্রথম মাসে কোন রাজনৈতিক বিবাদপূর্ণ লেখা ছাপা হয়নি। পরে প্রশাসনের বিরোদ্ধে কিছু লেখা বের হলে ১৭৮০ সালের ১৪ই নভেম্বর ফোর্ট উইলিয়াম থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে ডাকঘর মারফর পত্রিকা বিতরণ বন্ধ করা হয়। পরবর্তীতে হিকি মামলায় জড়িয়ে পড়েন।[৭]

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Hicky's Bengal gazette, or, Calcutta general advertiser - JH Libraries"catalyst.library.jhu.edu (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৭-১১ 
  2. "South Asia"The British Library। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৭-১১ 
  3. "বাংলাপিডিয়া, বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ"। ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৩ 
  4. Hickey, William (১৭৮২)। Memoirs of William Hickey (1749-[1809]): 1775–1782. (ইংরেজি ভাষায়)। Hurst & Blackett, Limited। পৃষ্ঠা ১১৮। 
  5. "Hiki's" 
  6. "বেঙ্গল গেজেটের জন্মদিন"। ২৯ জানুয়ারি ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২২ এপ্রিল ২০২০ 
  7. বাংলা ভাষা ও সাহিত্য, ড. সৌমিত্র শেখর, আইএসবিএন:৯৮৪-৩২৩২১৭-৮, পৃষ্ঠা- ৫১৪