প্রধান মেনু খুলুন

বেগম রোকেয়া পদক নারী জাগরণের ক্ষেত্রে বেগম রোকেয়ার অবিস্মরণীয় অবদান স্বীকৃতি উল্লেখ করে বাংলাদেশ সরকারের একটি রাষ্ট্রীয় পদক। প্রতিবছর ডিসেম্বরের ৯ তারিখ বেগম রোকেয়ার জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকীতে সরকারী ভাবে এই পদক প্রদান করা হয়।[১]

প্রবর্তনের ইতিহাসসম্পাদনা

নারী কল্যাণ সংস্থা ১৯৯১ সাল থেকে এই নামের একটি পদক প্রদান করা শুরু করে। সরকারী ভাবে ১৯৯৬ সাল থেকে এই পদক প্রদান করা হয়। পুরস্কৃত প্রত্যেককে এককালীন এক লক্ষ টাকা, ১৮ ক্যারেট মানের পঁচিশ গ্রাম ওজনের একটি স্বর্ণ পদক এবং একটি সম্মাননাপত্র প্রদান করা হয়।[২]

পদক লাভের বিভিন্ন ধাপসমূহসম্পাদনা

প্রতি বছর ৩০শে জুন তারিখের মধ্যে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক পূর্ববর্তী বছরের জন্য মনোনয়ন আহবান করে। ১৫ই অক্টোবর তারিখের মধ্যে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বাছাই কমিটি পুরস্কার পাবার উপযুক্ত মহিলাদের নামের তালিকা জাতীয় পুরস্কার সংক্রান্তত মন্ত্রিসভা কমিটির বিবেচনার জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে প্রেরণ করে। প্রতি বৎসর ৯ ডিসেম্বর মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক আয়োজিত ‘‘বেগম রোকেয়া দিবস’’ অনুষ্ঠানে এই পদক প্রদান করা হয়।[২]

পদক বিজয়ীদের নামসম্পাদনা

  • শামসুন নাহার মাহমুদ (১৯৯৫, মরনোত্তর)[৩]
  • নীলিমা ইব্রাহিম (১৯৯৬)[৩]
  • জোহরা বেগম কাজী (২০০২)
  • মেহের কবীর (২০১০)
  • আয়েশা জাফর (২০১০)
  • বেগম মেহেরুন্নেসা খাতুন (২০১১)
  • হামিদা খানমকে (২০১১, মরণোত্তর)
  • অধ্যাপক মাহফুজা খানম ও সৈয়দ জেবুন্নেসা হক এমপি (২০১২)
  • ঝর্ণাধারা চৌধুরী ও অধ্যাপক হামিদা বানু (২০১৩)

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "জাতীয় পুরস্কার/পদক সংক্রান্ত নির্দেশাবলি (১৫/০৫/২০১৭)" (PDF)বাংলাদেশ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। সংগ্রহের তারিখ ১৩ জুলাই ২০১৯ 
  2. বেগম রোকেয়া পদক ২০১১ এর জন্য মনোনয়ন আহবান, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়। প্রকাশিত হয়েছে ৭ই জুন ২০১১।
  3. নীলিমা ইব্রাহিম ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৪ আগস্ট ২০১৩ তারিখে, গুণীজন আমাদের প্রেরণার উৎস। দ্য ডেইলি স্টার, প্রকাশিত হয়েছে ১৮ই জুন ২০০৬।