বৃষসেন

কর্ণ ও বৃষালীর পুত্র

হিন্দু মহাকাব্য মহাভারতে, বৃষসেন (সংস্কৃত: वृषसेन, প্রতিবর্ণীকৃত: Vṛṣasena) ছিলেন যোদ্ধা কর্ণ ও তাঁর স্ত্রী পদ্মাবতীর জ্যেষ্ঠ পুত্র।[১] তার পিতার সাথে, তিনি কৌরবদের পক্ষ থেকে কুরুক্ষেত্র যুদ্ধে যুদ্ধ করেন এবং উপপাণ্ডব, দ্রুপদ, ধৃষ্টদ্যুম্ন, নকুল, সহদেব, বিরাট এবং আরও অন্যান্যদের মতো অনেক বিশিষ্ট যোদ্ধার মুখোমুখি হয়েছিলেন।[২]

বৃষসেন
লিঙ্গপুরুষ
পেশাক্ষত্রিয়
পরিবারকর্ণ (পিতা)
পদ্মাবতী (মাতা)
চিত্রসেন, Dvipata, সত্যসেন, সুসেন, শত্রুঞ্জয়, Banasena, প্রসেন, বৃষকেতু (ভ্রাতাগণ)

কুরুক্ষেত্র যুদ্ধ

সম্পাদনা

কুরুক্ষেত্র যুদ্ধের সময়, ভীষ্মের সাথে তার বিবাদের কারণে কর্ণ প্রথম দশ দিন অংশ নেননি। যুদ্ধের ১০ম দিনে ভীষ্মের পতনের পর, কর্ণ এবং বৃষসেন সহ তার পুত্ররা ১১দশ দিনে যুদ্ধে যোগ দেন এবং পাণ্ডবদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেন।

১১দশ দিন

সম্পাদনা

যুদ্ধের ১১দশ দিনে, বৃষসেন নকুলের পুত্র শতানিককে একক যুদ্ধে পরাজিত করেন এবং পরে অন্যান্য উপপাণ্ডবদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেন এবং তাদের সবাইকে পরাস্ত করেন। তারপর তিনি সহদেবের সাথে যুদ্ধ করেন যেখানে তিনি তার ধনুক ভেঙ্গে তাকে সংজ্ঞাহীন করে দেন। অবশেষে সাত্যকি সহদেবকে উদ্ধার করেন।[৩]

১২দশ দিন

সম্পাদনা

যুদ্ধের ১২দশ দিনে তিনি পাণ্ডব সেনাবাহিনীর মৎস্য বাহিনীকে আক্রমণ করেন এবং রাজা বিরাটকে পরাজিত করে বিপর্যয় সৃষ্টি করেন এবং তাকে গুরুতরভাবে আহত করেন। এই দেখে অভিমন্যু বিরাটের সাহায্যে এগিয়ে আসেন এবং বৃষসেন ও অভিমন্যুর মধ্যে ভয়ানক দ্বন্দ্ব সংঘটিত হয়। বৃষসেন অভিমন্যুর বুকে এবং তার উরু দুটি তীর দিয়ে বিদ্ধ করেছিল কিন্তু অবশেষে অভিমন্যু তার ধনুক ভেঙ্গে তাকে পরাজিত করতে সক্ষম হয়।

১৪দশ দিন

সম্পাদনা

১৪দশ রাতে, বৃষসেন পাঞ্চালের রাজা দ্রুপদের বিরুদ্ধে একক যুদ্ধে লিপ্ত হন এবং তাকে পরাজিত করেন।[৪] দ্রুপদের পরাজয়ের পর, তিনি দ্রুপদপুত্র ধৃষ্টদ্যুম্নকে পরাজিত করেন যে কিনা পাণ্ডব সেনাদের প্রধান সেনাপতি এবং দ্রুপদ ও ধৃষ্টদ্যুম্নকে পিছু হটতে বাধ্য করেন।

১৭দশ দিন

সম্পাদনা

যুদ্ধের ১৭দশ দিনে বৃষসেন নকুলের বিরুদ্ধে একক যুদ্ধে লিপ্ত হন এবং তার রথ ধ্বংস করেন।[৫] এরপর নকুল ভীমের রথে আরোহণ করলে বৃষসেন তাদের উভয়কেই আঘাত করতে থাকে, তিনি ভীমের ধনুক ভেঙ্গে দেন এবং অসংখ্য ধারালো তীর দিয়ে ভীমের বুকে বিদ্ধ করেন। অতঃপর ভীম অর্জুনকে বলেন বৃষসেনকে বধ করতে এবং অর্জুন তার সাথে প্রচণ্ড যুদ্ধের পর তাকে হত্যা করেন।[৬]

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "The Vishnu Purana: Book IV: Chapter XVIII"www.sacred-texts.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৮-১৯ 
  2. Mani, Vettam (১৯৭৫)। Puranic encyclopaedia : a comprehensive dictionary with special reference to the epic and Puranic literature। Robarts - University of Toronto। Delhi : Motilal Banarsidass। পৃষ্ঠা 883। 
  3. "The Mahabharata, Book 7: Drona Parva, Dronabhisheka Parva, Section XVI" 
  4. "The Mahabharata, Book 7: Drona Parva, Ghatotkacha-Vadha Parva, Section CLXVIII"www.sacred-texts.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২২ 
  5. "The Mahabharata, Book 8: Karna Parva, Section 84"www.sacred-texts.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০১ 
  6. "The Mahabharata, Book 8: Karna Parva, Section 85"www.sacred-texts.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০১