বীরাঙ্গনা (রনাঙ্গনের বীর নারী) হল বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে ধর্ষিত ও নির্যাতিত নারীদের জন্য একটি খেতাব।[১][২]

ইতিহাসসম্পাদনা

বাংলাদেশ স্বাধীনতা যুদ্ধের পর ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তান থেকে স্বাধীনতা লাভ করে। যুদ্ধের সময় বাংলাদেশের প্রায় ২০০,০০০-৪০০,০০০ লক্ষ নিরিহ নারী পাকিস্তান সেনাবাহিনী ও তাদের সহযোগীদের দ্বারা ধর্ষিত হয়।[৩][৪] ১৯৭১ সালের ২২ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সরকার যুদ্ধকালীন সময়ে ধর্ষিত নারীদের বীরঙ্গনা খেতাব প্রদান করে।.[৫]

সাহিত্যে সম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "The Birangona beyond her wound"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৬-১২-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৪-২১ 
  2. "Rethinking the Birangona | Dhaka Tribune"Dhaka Tribune (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৬-১১-১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৪-২১ 
  3. "Birangona: Will the World Listen?"The Huffington Post (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৪-২১ 
  4. ""The war is not over yet""The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৩-২৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৪-২১ 
  5. "HISTORY AND THE BIRANGONA"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৩-২৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৪-২১