বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপ

আইএএএফ বিশ্ব অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশীপ আন্তর্জাতিক অ্যাথলেটিকস ফেডারেশন (আইএএএফ) কর্তৃক অনুষ্ঠিত বৈশ্বিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। শুরুতে প্রতি চার বৎসর অন্তর এ প্রতিযোগিতা আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। কিন্তু ১৯৯১ সালে তৃতীয় আসর আয়োজনের পর অদ্যাবধি প্রতি দুই বৎসর পরপর দ্বি-বার্ষিক আকারে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপ
খেলাঅ্যাথলেটিকস
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৮৩
দলের সংখ্যা২০০ (২০০৭), ২০২ (২০০৯), ২০৪ (২০১১), ২০৬ (২০১৩), ২০৭ (২০১৫)
মহাদেশআন্তর্জাতিক (আইএএএফ)
সাম্প্রতিক চ্যাম্পিয়নসর্বশেষ বিজয়ীদের তালিকা
টিভি সহযোগীএসবিএস টু (অস্ট্রেলিয়া)
ইউরোভিশন (ইউরোপ)
কেবিএস (দক্ষিণ কোরিয়া)
সিসিটিভি (চীন)
টিবিএস (জাপান)
এনবিসি ইউনিভার্সাল (যুক্তরাষ্ট্র)
স্পোরটিভি (ব্রাজিল)

ইতিহাসসম্পাদনা

১৯৮৩ সালে প্রথম আসর আয়োজনের বেশ পূর্ব থেকেই বিশ্ব অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশীপ প্রতিযোগিতা আয়োজনের চিন্তাধারা চলতে থাকে। ১৯১৩ সালে আইএএএফ সিদ্ধান্ত নিয়েছিল যে, গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক ক্রীড়াই অ্যাথলেটিকসের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশীপের জন্য যথেষ্ট। পঞ্চাশ বছরেরও অধিককাল এ ধারণা বহমান ছিল। কিন্তু ১৯৬০-এর দশকের শেষার্ধ্বে আইএএএফ সদস্যদের মাঝে নিজেদের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশীপ প্রবর্তনের ধারণা বিরাটভাবে প্রভাববিস্তার করতে থাকে। ফলশ্রুতিতে ১৯৭৬ সালে পুয়ের্তোরিকোয় অনুষ্ঠিত সভায় অলিম্পিক গেমস থেকে পৃথক হয়ে স্বতন্ত্র বিশ্ব অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশীপ প্রচলনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

পশ্চিম জার্মানির স্টুটগার্টফিনল্যান্ডের হেলসিঙ্কি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশীপ আয়োজনের জন্য আগ্রহ প্রকাশ করে। কিন্তু, আইএএএফ কাউন্সিল ১৯৮৩ সালে উদ্বোধনী প্রতিযোগিতার জন্য হেলসিংকিকে আমন্ত্রণ জানায়। ১৯৫২ সালের গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকের আয়োজনকারী হেলসিংকি অলিম্পিক স্টেডিয়ামে প্রথম আসরটি অনুষ্ঠিত হয়। এর পূর্বে অবশ্য দুইটি আইএএএফ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশীপ অনুষ্ঠিত হয়। ১৯৭৬ সালের গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক থেকে বাদ পড়া পুরুষদের ৫০ কিলোমিটার হাঁটা বিষয়কে নিয়ে প্রতিযোগিতা আয়োজনের ফলে আইএএএফ নিজেদের প্রতিযোগিতা করার চিন্তা বাস্তবায়নে অগ্রসর হয়। এর চার বছর পর ১৯৮০ সালের গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক থেকে বাদ পড়া মহিলাদের ৪০০ মিটার হার্ডলস৩০০০ মিটার বিষয়গুলোকে অন্তর্ভুক্ত করে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশীপ অনুষ্ঠিত হয়।[১][২]

বিষয়সমূহের অন্তর্ভুক্তিসম্পাদনা

সাম্প্রতিক বছরগুলোয় প্রতিযোগিতার আকার ব্যাপকভাবে বেড়ে যায়। ১৯৮৩ সালে ১৫৪ দেশ থেকে ১,৩০০ ক্রীড়াবিদ অংশ নেন।[৩] প্যারিসে অনুষ্ঠিত ২০০৩ সালের প্রতিযোগিতায় ২০৩ দেশ থেকে ১,৯০৭জন ক্রীড়াবিদ অংশ নিয়েছিলেন। এছাড়াও, ক্রীড়াক্ষেত্র পরিবর্তিত হয়ে মহিলাদের নতুন বিষয়গুলো যুক্ত হচ্ছে। ২০০৫ সালের সময়সূচীতে পুরুষ ও মহিলাদের বিষয়গুলো প্রায় সমান ছিল। কেবলমাত্র পুরুষদের ৫০ কিলোমিটার হাঁটা বিষয় ব্যতিক্রম। মহিলাদের ১০০ মিটার হার্ডলসহেপ্টাথলন বিষয়ের বিপরীতে পুরুষদের ১১০ মিটার হার্ডলসডেকাথলন রয়েছে।

নিম্নের তালিকায় বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশীপে প্রথমবারের মতো যুক্ত নতুন বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়েছে:-

চ্যাম্পিয়নশিপসম্পাদনা

আসর সাল শহর দেশ তারিখ মাঠ বিষয়
সংখ্যা
দেশের
সংখ্যা
ক্রীড়াবিদের
সংখ্যা
শীর্ষ
পদকধারী
১ম ১৯৮৩ হেলসিঙ্কি   ফিনল্যান্ড ৭ আগস্ট – ১৪ আগস্ট অলিম্পিয়াস্ট্যাডিওন ৪১ ১৫৩ ১,৩৩৩   পূর্ব জার্মানি
২য় ১৯৮৭ রোম   ইতালি ২৮ আগস্ট – ৬ সেপ্টেম্বর স্ট্যাডিও অলিম্পিকো ৪৩ ১৫৬ ১,৪১৯   পূর্ব জার্মানি
৩য় ১৯৯১ টোকিও   জাপান ২৩ আগস্ট – ১ সেপ্টেম্বর জাতীয় অলিম্পিক স্টেডিয়াম ৪৩ ১৬২ ১,৪৯১   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
৪র্থ ১৯৯৩ স্টুটগার্ট   জার্মানি ১৩ আগস্ট – ২২ আগস্ট গটলিয়েব-ডেইমলার-স্ট্যাডিওন ৪৪ ১৮৭ ১,৬৩০   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
৫ম ১৯৯৫ গুটেনবার্গ   সুইডেন ৫ আগস্ট – ১৩ আগস্ট আলেভি ৪৪ ১৯০ ১,৭৫৫   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
৬ষ্ঠ ১৯৯৭ এথেন্স   গ্রীস ১ আগস্ট – ১০ আগস্ট অলিম্পিয়াকো স্ট্যাডিও ৪৪ ১৯৭ ১,৭৮৫   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
৭ম ১৯৯৯ সেভিলে   স্পেন ২০ আগস্ট – ২৯ আগস্ট এস্তাদিও অলিম্পিকো ডি লা কার্তুজা ৪৬ ২০০ ১,৭৫০   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
৮ম ২০০১ এডমন্টন   কানাডা ৩ আগস্ট – ১২ আগস্ট কমনওয়েলথ স্টেডিয়াম ৪৬ ১৮৯ ১,৬৭৭   রাশিয়া
৯ম ২০০৩ সেন্ট-ডেনিস   ফ্রান্স ২৩ আগস্ট – ৩১ আগস্ট স্ট্যাড ডি ফ্রান্স ৪৬ ১৯৮ ১,৬৭৯   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
১০ম ২০০৫ হেলসিঙ্কি   ফিনল্যান্ড ৬ আগস্ট – ১৪ আগস্ট অলিম্পিয়াস্ট্যাডিওন ৪৭ ১৯১ ১,৬৮৮   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
১১শ ২০০৭ ওসাকা   জাপান ২৪ আগস্ট – ২ সেপ্টেম্বর নাগাই স্টেডিয়াম ৪৭ ১৯৭ ১,৮০০   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
১২শ ২০০৯ বার্লিন   জার্মানি ১৫ আগস্ট – ২৩ আগস্ট অলিম্পিয়াস্ট্যাডিওন বার্লিন ৪৭ ২০০ ১,৮৯৫   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
১৩শ ২০১১ দাইগু   দক্ষিণ কোরিয়া ২৭ আগস্ট – ৪ সেপ্টেম্বর দাইগু স্টেডিয়াম ৪৭ ১৯৯ ১,৭৪২   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
১৪শ ২০১৩ মস্কো   রাশিয়া ১০ আগস্ট – ১৮ আগস্ট লুঝনিকি স্টেডিয়াম ৪৭ ২০৩ ১,৭৮৪   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
১৫শ ২০১৫ বেইজিং   চীন ২২ আগস্ট – ৩০ আগস্ট বেইজিং ন্যাশনাল স্টেডিয়াম ৪৭ ২০৫ ১,৭৭১   কেনিয়া
১৬শ ২০১৭ লন্ডন   যুক্তরাজ্য ৫ আগস্ট – ১৩ আগস্ট রাণী এলিজাবেথ অলিম্পিক পার্ক
১৭শ ২০১৯ দোহা   কাতার ২৮ সেপ্টেম্বর – ৬ অক্টোবর খলিফা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম
১৮শ ২০২১ ইউজিন   মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৪ আগস্ট - ২২ আগস্ট (অনানুষ্ঠানিক) হেওয়ার্ড ফিল্ড

পূর্ণাঙ্গ পদক তালিকাসম্পাদনা

তালিকাটিতে ১৯৮৩ সালের প্রতিযোগিতা থেকে ২০১৫ সালের প্রতিযোগিতায় প্রাপ্ত পদক দেখানো হলো:

  United States ১৪৩ ৯৬ ৮৪ ৩২৩
  Russia ৫৫ ৬০ ৫৭ ১৭২
  Kenya ৫০ ৪৩ ৩৫ ১২৮
  Germany ৩৩ ৩৫ ৪০ ১০৮
  Jamaica ৩১ ৪৪ ৩৫ ১১০
  Great Britain ২৫ ৩০ ৩৪ ৮৯
  Ethiopia ২৫ ২২ ২৫ ৭২
  Soviet Union ২২ ২৭ ২৮ ৭৭
  Cuba ২১ ২৩ ১২ ৫৬
১০   East Germany ২০ ১৮ ১৫ ৫৩
১১   Poland ১৬ ১১ ১৬ ৪৩
১২   Czech Republic ১৩ ২২
১৩   চীন ১১ ১৮ ১৫ ৪৪
১৪   ইতালি ১১ ১৫ ১৩ ৩৯
১৫   Ukraine ১১ ১১ ১৩ ৩৫
১৬   France ১০ ১৭ ১৯ ৪৬
১৭   অস্ট্রেলিয়া ১০ ১১ ১২ ৩৩
১৮   Belarus ১৩ ১১ ৩৩
১৯   Morocco ১১ ২৭
২০   Spain ১৫ ১৬ ৩৯
২১   South Africa ২১
২২   Finland ২২
২৩   The Bahamas ২০
২৪   Sweden ১৫
২৫   Canada ১৪ ১২ ৩২
২৬   Norway ১৩
২৭   Algeria
২৮   Romania ১০ ২৩
২৯   Portugal ১৮
৩০   Bulgaria ১৬
৩১   Bahrain
৩২   New Zealand
৩৩   Japan ১৩ ২৩
৩৪   গ্রিস ১০ ২০
৩৫   Czechoslovakia ১১
৩৬    Switzerland
৩৭   Croatia
৩৭   Ireland
৩৯   Mexico ১২
৪০   Mozambique
৪১   Ecuador
৪২   Denmark
৪৩   Netherlands ১৪
৪৪   Trinidad and Tobago ১১
৪৫   Estonia
৪৬   Lithuania
৪৬   Qatar
৪৮   Uganda
৪৯   Dominican Republic
৫০   Tajikistan
৫১   Colombia
৫২   ব্রাজিল ১২
৫৩   Namibia
৫৪   Zambia
৫৫   Slovenia
৫৬   Panama
৫৬   Botswana
৫৬   Eritrea
৫৯   Saint Kitts and Nevis
৬০   Slovakia
৬১   Grenada
৬১   Senegal
৬১   Somalia
৬১   Syria
৬৫   Barbados
৬৫   North Korea
৬৭   Hungary ১১
৬৮   Nigeria
৬৯   Kazakhstan
৭০   Djibouti
৭১   Israel
৭১   Tunisia
৭৩   Turkey
৭৪   Cameroon
৭৪   Ivory Coast
৭৪   Puerto Rico
৭৭   Belgium
৭৮   Austria
৭৮   Burundi
৭৮   Cyprus
৭৮   Ghana
৭৮   Sri Lanka
৭৮   Suriname
৮৪   Bermuda
৮৪   Egypt
৮৪   Sudan
৮৪   Tanzania
৮৮   Serbia
৮৯   Latvia
৯০   American Samoa
৯০   Bosnia and Herzegovina
৯০   Cayman Islands
৯০   Dominica
৯০   Haiti
৯০   India
৯০   Iran
৯০   Saudi Arabia
৯০   Zimbabwe
৯৮ সর্বমোট ৬৭০ ৬৮৫ ৬৮১ ২০৩৬

বহু পদকধারী ক্রীড়াবিদসম্পাদনা

পুরুষ

কমপক্ষে ছয়টি পদক বিজয়ী ১৫জন ক্রীড়াবিদ এ তালিকায় দেখানো হলো:[৪]

ক্রীড়াবিদ দেশ       মোট
উসেইন বোল্ট   জামাইকা ১১ ১৩[৫]
লাশন মেরিট   যুক্তরাষ্ট্র ১১
কার্ল লুইস   যুক্তরাষ্ট্র ১০
মাইকেল জনসন   যুক্তরাষ্ট্র
এজিকিয়েল কেমবলি   কেনিয়া
হেইল জার্সেল্যাসি   ইথিওপিয়া
সার্গেই বুবকা   সোভিয়েত ইউনিয়ন /   ইউক্রেন
মো ফারাহ   যুক্তরাজ্য
জেরেমি ওয়ারিনার   যুক্তরাষ্ট্র
কেনেনিসা বেকেল   ইথিওপিয়া
লার্স রাইডেল   জার্মানি
হিচাম এল গুইরোজ   মরক্কো
বাচ রেনল্ডস   যুক্তরাষ্ট্র
বার্নার্ড লাগাত   কেনিয়া /   যুক্তরাষ্ট্র
গ্রেগ হটন   জামাইকা
প্রমিলা

কমপক্ষে ছয়টি পদক বিজয়ী ১৩জন ক্রীড়াবিদ এ তালিকায় দেখানো হলো:[৪]

ক্রীড়াবিদ দেশ       মোট
মারলিন অটি   জামাইকা ১৪
অ্যালিসন ফেলিক্স   যুক্তরাষ্ট্র ১৩
ভেরোনিকা ক্যাম্পবেল-ব্রাউন   জামাইকা ১১
শেলি-অ্যান ফ্রেজার-প্রাইস   জামাইকা
জার্ল মাইলস ক্লার্ক   যুক্তরাষ্ট্র
গেইল ডেভার্স   যুক্তরাষ্ট্র
গুইন টরেন্স   যুক্তরাষ্ট্র
সানিয়া রিচার্ডস-রস   যুক্তরাষ্ট্র
কারমেলিটা জেটার   যুক্তরাষ্ট্র
জুলিয়া পেচনকিনা   রাশিয়া
বেভার্লি ম্যাকডোনাল্ড   জামাইকা
লরেইন গ্রাহাম   জামাইকা
ক্রিস্টিন অহুরুগু   যুক্তরাজ্য

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা