"বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

Zahidur Rahman (আলাপ) এর সম্পাদিত সংস্করণ হতে BellayetBot এর সম্পাদিত সর্বশেষ স�
(Zahidur Rahman (আলাপ) এর সম্পাদিত সংস্করণ হতে BellayetBot এর সম্পাদিত সর্বশেষ স�)
[[ভারতীয় প্রজাতন্ত্র]] এমনই একটি যুক্তরাষ্ট্র যেখানে ''কেন্দ্রীয় সরকার'' নামে পরিচিত যুক্তরাষ্ট্রীয় সরকার ও [[ভারতের রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল|রাজ্যের]] সরকার একযোগে রাজনৈতিক ক্ষমতা ভোগ করেন। সেই কারণে ১৯৪৭ সালে স্বাধীনতার পর থেকে ১৯৬৫ সাল পর্যন্ত প্রতিটি সীমান্তবর্তী রাজ্যের স্থানীয় সশস্ত্র পুলিশ ব্যাটেলিয়নই ভারতের আন্তর্জাতিক সীমান্ত পাহারার কাজে নিযুক্ত থাকত। তাদের মধ্যে পারস্পরিক সংযোগের অত্যন্ত অভাব ছিল।
 
[[১৯৬৫ সালের ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ|১৯৬৫ সালের ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের]] ভারতের পরাজয়ের মূল কারণ হিসেবে তৎকালীন সীমান্ত প্রহরা ব্যবস্থাকেই দায়ী করে একটি সুসংহত কেন্দ্রীয় সংস্থা হিসেবে বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স স্থাপিত হয়। এই সংস্থার নির্দিষ্ট কাজ হয় ভারতের আন্তর্জাতিক সীমান্ত পাহারা দেওয়া। [[১৯৭১ সালের ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ|১৯৭১ সালের ভারত পাকিস্তান যুদ্ধে]] যেসব অঞ্চলে [[ভারতের সামরিক বাহিনী]] পূর্ণশক্তিতে উপস্থিত থাকতে পারেনি সেইসব অঞ্চলে বিএসএফ-এর আধাসামরিক দক্ষতাকে [[পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী|পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর]] বিরুদ্ধে কাজে লাগানো হয়; এমনকি [[লঙ্গেওয়ালার যুদ্ধ|লঙ্গেওয়ালার যুদ্ধেও]] বিএসএফ অংশগ্রহণ করে।
 
প্রথমদিকে কেবলমাত্র ভারতের বহিঃসীমান্ত রক্ষার কাজে নিযুক্ত থাকলেও সাম্প্রতিক কালে রাষ্ট্রদ্রোহ বা সন্ত্রাসবাদবিরোধী বা সবাধীনতাকামীদের বিরুদ্ধে কাজ করারঅপারেশনের সময় [[ভারতীয় সেনাবাহিনী|ভারতীয় সেনাবাহিনীকে]] সহায়তা করার দায়িত্বও বিএসএফ-এর উপর বর্তানো হয়েছে। ১৯৮৯ সালে ভারত[[জম্মু কত্রিক দখল্ক্রিতকাশ্মীর|জম্মু ও কাশ্মীরে]] সবাধীনতার দাবিতে তীব্ররাষ্ট্রদ্রোহমূলক আন্দোলন ছড়িয়ে পড়লে সেখানকারজম্মু ও কাশ্মীর পুলিশ এবং অল্পসংখ্যক [[সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স]] (সিআরপিএফ) সবাধীনতারঘনায়মান আন্দোলনকেহিংসাকে দমননিয়ন্ত্রণ করার সরবাত্তকলক্ষ্যে চেষ্টাসংগ্রাম চালায়করতে থাকে; তখন ভারত সরকার দখল্ক্রিতজম্মু ও কাশ্মীরে সবাধীনতাকামীদেরইসলামি বিরুদ্ধেজঙ্গিদের বিএসেফকেবিরুদ্ধে যুদ্ধে প্রেরণ করেন। সবাধীনতাকামীদেররাষ্ট্রদ্রোহীদের আক্রমণেহানায় প্রথমদিকে বিএসএফ-কে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়তে হলেও পরবর্তীকালে তারা তাউল্লেখনীয় কাটিয়েসাফল্য উঠতেঅর্জন পারে ।করে। একটি গোয়েন্দা সংস্থা স্থাপন করে স্থানীয় নাগরিকদের সহায়তায় তারা সবাধীনতাকামীদেরজঙ্গি নেতাদের আটকগ্রেফতার করে।২০০৩ সালের অগস্ট মাসে [[জৈস-ই-মহম্মদ|জৈস-ই-মহম্মদের]] সেকেন্ড-ইন-কম্যান্ডার তথা [[২০০১ সালের ভারতীয় সংসদ জঙ্গিহানা|২০০১ সালের ভারতীয় সংসদ জঙ্গিহানার]] মূল পরিকল্পনাকারী [[গাজি বাবা|গাজি বাবাকে]] হত্যা করে বিএসএফ। [[শ্রীনগর|শ্রীনগরে]] গাজি বাবার আড্ডায় বিএসএফ অতর্কিতে হানা দেয় এবং এক গুলিযুদ্ধের পর তিনি নিহত হন। করে।
 
সন্ত্রাসবাদবিরোধী ভূমিকায় বিএসএফ-এর সাফল্য সত্ত্বেও সরকারে কেউ কেউ মনে করেন এই বাড়তি দায়িত্ব সংস্থার প্রধান অধ্যাদেশের অংশ হয়ে পড়ছে। ফলে দেশের সীমান্তরক্ষার যে প্রাথমিক দায়িত্ব তাদের উপর অর্পিত হয়েছিল তার ক্ষতি হচ্ছে। ভারত সরকার বর্তমানে প্রতিটি সিকিউরিটি এজেন্সিকে তার অধ্যাদেশের অন্তর্ভুক্ত না করার প্রস্তাব রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাই [[জম্মু ও কাশ্মীর|জম্মু ও কাশ্মীরে]] নিযুক্ত ১৬ ব্যাটেলিয়ন বিএসএফ জওয়ানদের রাষ্ট্রদ্রোহবিরোধী অপারেশনের দায়িত্ব থেকে ধীরে ধীরে অব্যাহতি দিয়ে তাদের সীমান্তরক্ষার কাজে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাদের স্থলাভিষিক্ত হয়েছে সন্ত্রাসবাদবিরোধী অপারেশনের বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কয়েকটি সিআরপিএফ ইউনিট।
 
বিএসএফ-এর বর্তমান ডিরেক্টর জেনারেল এম এল কুমাওয়াত ইন্ডিয়ান পুলিশ সার্ভিসের আধিকারিক। তিনি [[অন্ধ্রপ্রদেশ|অন্ধ্রপ্রদেশের]] বাসিন্দা।
 
== সমালোচনা ==
{{refimprove}}
[[বাংলাদেশ]] সরকার প্রায়শই বিএসএফ-এর বিরুদ্ধে বহিরাক্রমণ এবং ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত অঞ্চলে নাগরিকদের উপর বিনাপ্ররোচনায় গুলি চালানোর অভিযোগ এনে থাকেন।<ref name="star">{{cite news |title=Border tension flares as BSF kills 2 more |last=Staff Correspondent |url=http://www.thedailystar.net/2005/04/24/d5042401022.htm |publisher=[[The Daily Star (Bangladesh)|The Daily Star]] |date=2005-04-24 |accessdate=2007-04-19}}</ref> ২০০৮ সালের অগস্ট মাসে একটি সাংবাদিক সম্মেলনে বিএসএফ অফিসারেরা জানিয়েছিলেন পূর্ববর্তী ছয় মাসে সীমান্ত-অনুপ্রবেশের চেষ্টা করতে গিয়ে মোট ৫৯ জন তাঁদের হাতে নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে ৩৪ জন বাংলাদেশী, ২১ জন ভারতীয় ও বাকিদের পরিচয় জানা যায়নি।<ref name="bsf killing">[http://in.reuters.com/article/topNews/idINIndia-35156020080824 India says 59 killed over last six months on Bangladesh border], Reuters, August 24, 2008.</ref> ২০০৮ সালের ১৬ নভেম্বর এক মহিলা ও তার শিশু সহ মোট তিনজনকে এক মাতাল বিএসএফ জওয়ান গুলি করে হত্যা করে।<ref name="dstar11-16-08">[http://www.thedailystar.net/story.php?nid=63748 Three Bangladeshis killed in ‘drunk shooting’ by BSF man], Staff Correspondent, [[The Daily Star (Bangladesh)|Daily Star]], November 17, 2008.</ref>
 
সমপ্রপ্তি হিউমান রাইটস ওয়াচ এর এক রিপোরটে দেখা যায় যে, বিএসএফ অসোংখো নিরীহো নারি ও শিশু কে হত্তা করেছে । মানবাধিকার সংস্থা অধিকার এর এক রিপোরতে বলা হয়েছে শুধু ২০১০ সালে অরধশতাধিক নিরস্ত্র বাংলাদেশি নাগরিক কে খুন করেছে বিএসেফ । <ref>রাজকূট,কালেরকন্ঠ</ref>
 
 
 
=== গণ মাধ্যমে হতাহতের সংবাদ ===
১৯,৪০৯টি

সম্পাদনা