"অর্থনৈতিক মন্দা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎অন্যান্য দেশ: Typo fixing, replaced: ইতিমধ্যে → ইতোমধ্যে using AWB
(cleanup tag+)
(→‎অন্যান্য দেশ: Typo fixing, replaced: ইতিমধ্যে → ইতোমধ্যে using AWB)
{{Unreferenced section|date=February 2008}}
 
অন্যান্য আরও কয়েকটি দেশ নিজেদের জাতীয় গড় আয় বৃদ্ধির হার পতিত হতে দেখেছে। এর কারণ হিসেবে দায়ী করা হয় কমে যাওয়া আর্থিক সাচ্ছল্য, খাদ্য ও শক্তি ক্ষেত্রে মুদ্রাস্ফীতি এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মন্দাকে। [[EEA]]-এর মধ্যে এই দেশগুলির অন্তর্গত হল [[ব্রিটিশ যুক্তরাজ্য]], [[আয়ারল্যান্ড]], [[কানাডা]], [[জাপান]], [[চিন]], [[ভারত]], [[নিউজিল্যান্ড]] এবং অন্যান্য আরও কয়েকটি দেশ। এর মধ্যে কিছু দেশের ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞেরা ইতিমধ্যেইইতোমধ্যেই মন্দা পরিস্থিতি ঘোষণা করেছেন, বাকিরা পর পর দুটি ত্রৈমাসিকে ঋণাত্মক বিকাশ হয়েছে কিনা জানার জন্য এখনও চতুর্থ ত্রৈমাসিকের জাতীয় গড় আয়ের বিকাশের তথ্যের অপেক্ষায় রয়েছে। ভারত ও চিন অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে স্লথগতির মুখোমুখি হলেও পুরোপুরি মন্দার মুখে পড়েনি। আফ্রিকা ও দক্ষিণ আফ্রিকাও অর্থনৈতিক স্লথগতি ও বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মন্দার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে।
অস্ট্রেলিয়া ২০০৯ সালের প্রযুক্তিগত মন্দা এড়াতে সক্ষম হয়েছে এবং বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক অধঃপতন সত্ত্বেও ধনাত্মক বিকাশ ঘটাতে পেরেছে।
 
২,২০০টি

সম্পাদনা