দ্য টাইমস: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

+
(দ্রুত বিষয়শ্রেণী যুক্তকরা হয়েছে ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা ( [)
(+)
| title= MORI survey of newspaper readers
| accessdate = 2009-07-18
}}</ref>
 
দ্য টাইমস “টাইমস” নামের মূল সংবাদপত্র। অন্যায় পত্রিকা যেমন- [[দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস]], [[দ্য লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস]], [[দ্য ডেইলি টাইমস]], [[দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়া]], [[দ্য স্ট্রেইট টাইমস]], [[দ্য টাইমস অফ মালটা]], এবং [[দ্য আইরিশ টাইমস]] এই পত্রিকা হতেই “টাইমস” শব্দটি গ্রহন করেছে। উত্তর আমেরিকায় দ্য টাইমস “লন্ডন টাইমস” বা “দ্য টাইমস অফ লন্ডন” নামেও পরিচিত।<ref name="Times of London" /><ref>{{cite news
| date = 26 May 2000
| author = Jeffrey Meyers <!-- not Gore Vidal, who is the subject of the article. The headings are misleading -->
| title = Fighting, fornication and fiction
| url = http://www.timeshighereducation.co.uk/story.asp?storyCode=156212&sectioncode=26
| work = Times Higher Education
| publisher = [[News Corporation]]
}}
</ref> দ্য টাইমস পত্রিকার মাধ্যমেই বিশ্বব্যাপী টাইমস রোমান [[ফন্ট|ফন্টের]] প্রচলন শুরু হয়।
 
২১৯ বছর ধরে দ্য টাইমস [[ব্রডশিট]] আকারে প্রকাশিত হত। তরুণ পাঠকদের আকর্ষণ এবং গণপরিবহণে সুবিধাজনকভাবে পড়ার জন্য ২০০৪ সাল থেকে পত্রিকাটি ট্যাবলয়েড আকারে প্রকাশিত হয়ে আসছে। দ্য টাইমসের মার্কিন সংস্করণ ২০০৬ এর ৬ জুন হতে প্রকাশিত হচ্ছে।<ref name = "Times of London">{{cite news
| date = 27 May 2006
| author = Eric Pfanner
| title = Times of London to Print Daily U.S. Edition
| url = http://www.nytimes.com/2006/05/27/business/media/27paper.html
| work = [[The New York Times]]
| publisher =
| accessdate = 2008-11-04
}}
</ref>