গ্রুঞ্জ: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
সম্পাদনা সারাংশ নেই
সম্পাদনা সারাংশ নেই
==বাণিজ্যিক সাফল্য==
[[ব্ল্যাক সাবাথ]] ও [[লেড জেপলিন]] ব্যান্ডের প্রভাব ছিল লক্ষণীয়। গ্রুঞ্জ ব্যান্ডগুলোর আন্ডারগ্রাউন্ড জনপ্রিয়তার অনেক বাইরের ব্যান্ড এসে সিয়াটলে ভীড় করছিল মূল সাউন্ডটা পেতে। মাডহানি ব্যান্ডের স্টীভ টার্নার বলেন যে এটা ছিল খুবই খারাপ একটা ব্যাপার।এর প্রতিক্রিয়ায় [[নিরভানা]] ও টাড ব্যান্ডসহ আরও অনেক ব্যান্ড তাদের সাউন্ড নানাভাবে পরিবর্তন করতে থাকে।১৯৯১ সালের ক্রিসমাসে নিরভানার ৪০০০০০ কপি অ্যালবাম বিক্রি হয় এবং তখন এমটিভিতে টানা তাদের গানের ভিডিও ‘’স্মেলস লাইক টিন স্পিরিট’’ প্রচারিত হচ্ছিল।১৯৯২ সালের জানুয়ারি মাসে নেভারমাইন্ড পপ সুপারস্টার [[মাইকেল জ্যাকসন]]-এর ডেঞ্জেরাস অ্যালবামকে ১ম অবস্থান থেকে সরিয়ে দেয়। নেভারমাইন্ড অ্যালবামের বাণিজ্যিক সাফল্য সবাইকে চমকে দেয়।এরপর সাউন্ড গার্ডেন ও পার্ল জ্যাম ব্যান্ডও বাণিজ্যিক সাফল্য পায় এবং ১৯৯২ সালে বিলবোর্ডের ১ম ১০০টি অ্যালবামের তালিকায় তাদের গান জায়গা করে নেয়। বড় বড় রেকর্ড কোম্পানিগুলো তখন সিয়াটলের ব্যান্ডগলোর সাথে চুক্তিবদ্ধ হতে থাকে।নিরভানা ও পার্ল জ্যামের পরিবর্তি অ্যালবামও বিলবোর্ডে জায়গা করে নেয়। কিন্তু এ ধরণের জনপ্রিয়তা এই ব্যান্ডগুলোকে আস্বস্তিতে ফেলে দেয় যা তারা চায়নি এতটা।ফ্যাশন হাউজগুলো নানা ধরনের গ্রুঞ্জ ফ্যাশিন চালু করে ও বিশেষ মূল্যছাড়ে কাপড় বিক্রি করতে থাকে। সবাই গ্রুঞ্জ-এর ব্যাপারে আগ্রহী হয়ে ওঠে।পরবর্তীতে নানা কারণে গ্রুঞ্জ-এর জনপ্রিয়তা কমতে থাকে।
== বহিঃসংযোগ==
== বহির্সংযোগ==
*[http://www.allmusic.com/cg/amg.dll?p=amg&sql=77:2679]
*[http://web.archive.org/web/20070828075858/http://www.msnbc.msn.com/id/4652653/]
 
[[Category:সঙ্গীত]]
[[Category:রক সংগীতের প্রকারভেদ]]
 
[[an:Grunge]]
৭৪২টি

সম্পাদনা