প্রাগৈতিহাসিক ধর্ম: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

যাচাইযোগ্যতার জন্য ১টি বই যোগ করা হল (20220126)) #IABot (v2.0.8.6) (GreenC bot
(যাচাইযোগ্যতার জন্য ১টি বই যোগ করা হল (20220126)) #IABot (v2.0.8.6) (GreenC bot)
 
 
[[File:Neanderthal Burial, Cast (42496831584).jpg|thumb|left|alt=refer to caption|নিয়ান্ডারথাল সমাধিস্থলের আদল]]
ধর্মের প্রতিনিধি ও মুখবন্ধ হিসেবে নিয়ান্ডারথাল আচার-অনুষ্ঠান নিয়ে গবেষণাটি মৃত্যু ও সমাধিদান-সংক্রান্ত রীতিনীতি-কেন্দ্রিক। প্রায় ১৫০,০০০ বছর আগে প্রথম অবিতর্কিত সমাধিদানের ঘটনাগুলি নিয়ান্ডারথালদের দ্বারাই সংঘটিত হয়েছিল। প্রত্নতাত্ত্বিক প্রমাণের অভাবে সমাধিক্ষেত্রগুলি থেকে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া-সংক্রান্ত আচারগুলি অনুধাবন করা কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। যদিও [[সমাধি দ্রব্য]] ও হাড়ের উপর অস্বাভাবিক চিহ্নাঙ্কন অন্তেষ্টিক্রিয়া-সংক্রান্ত অনুষ্ঠানের কথা ইঙ্গিত করে। অন্ত্যেষ্টি ছাড়াও ক্রমশ এমন প্রমাণের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে যা ইঙ্গিত করে যে নিয়ান্ডারথালেরা রঞ্জক পদার্থ, পালক এবং পশুপাখির নখ দিয়েও অলংকার প্রস্তুত করা শুরু করেছিল।<ref name="pttrs2">{{cite journal|title=''হোমো নিয়ান্ডারথালেনসিস'' অ্যান্ড দি ইভোলিউশনারি অরিজিনস অফ রিচুয়াল ইন ''হোমো সেপিয়েন্স'' |journal=ফিলোজফিক্যাল ট্র্যানজাকশনস অফ দ্য রয়্যাল সোসাইটি বি |volume=৩৭৫ |issue=১৮০৫ |date=১৭ অগস্ট ২০২০ |vauthors=নিয়েলসেন এম., ল্যাংলি এম. সি., শিপটন সি., ক্যাপিটানি আর. |doi=10.1098/rstb.2019.0424|pmid=32594872|pmc=7423259}}</ref> অলংকারের প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন না থাকায় এটি বোঝা যায় শুধুমাত্র আধুনিক শিকারী-সংগ্রাহকদের সঙ্গে তুলনার মাধ্যমে। আধুনিক শিকারী-সংগ্রাহকদের ক্ষেত্রে অলংকার অনেক ক্ষেত্রেই আধ্যাত্মিক গুরুত্বসম্পন্ন আচার-অনুষ্ঠানগুলির সঙ্গে সম্পৃক্ত।<ref name="hayden5">{{cite book|title=শ্যামানস, সোরসারারস, অ্যান্ড সেন্টস: আ প্রিহিস্ট্রি অফ রিলিজিয়ন |url=https://archive.org/details/shamanssorcerers00hayd |last=হেইডেন |first=ব্রায়ান |date=১৭ ডিসেম্বর ২০০৩ |publisher=স্মিথসোনিয়ান বুকস |location=ওয়াশিংটন, ডিসি|chapter=দ্য প্রাইমাল প্যালিওলিথিক|pages=88–90[https://archive.org/details/shamanssorcerers00hayd/page/n94 88]–90|isbn=9781588341686}}</ref> একই সময়কালের মধ্যে প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনে ''হোমো সেপিয়েন্স সেপিয়েন্স''-দের বিপরীতে নিয়ান্ডারথাল সমাজে এক উল্লেখযোগ্য স্থিরতা লক্ষিত হয়। বহু শতাব্দী থেকে সহস্রাব্দ পর্যন্ত এদের যন্ত্রপাতির নকশায় পরিবর্তন খুব কমই এসেছিল।<ref name="pttrs2" /> বংশাণু ও খুলির প্রমাণ থেকে পরিজ্ঞাত তথ্য অনুযায়ী নিয়ান্ডারথালদের [[wikt:sclerotic|স্ক্লেরোটিক]] ও সাদামাটা মনে করা হয়। যা শুধু সমসাময়িক কেন আধুনিক ''হোমো সেপিয়েন্স সেপিয়েন্স''-দের মধ্যেও দেখা যায় না।<ref name="zygon" /> আরও বিস্তারিতভাবে বললে, নিয়ান্ডারথাল আচার-অনুষ্ঠানগুলিকে শিক্ষাদানের একটি প্রক্রিয়া হিসেবে অনুমান করা হয়, যে প্রক্রিয়ার মাধ্যমে এই ধরনের সাংস্কৃতিক কঠিনীভবন সম্ভব হয়েছিল। চিন্তাভাবনা, জীবন ও সংস্কৃতির মধ্যে [[অর্থোপ্র্যাক্সি|অর্থোপ্র্যাক্সির]] প্রাধান্য এই শিক্ষণ প্রণালীর মধ্যে নিহিত ছিল।<ref name="pttrs2" /> এই বিষয়টি প্রাগৈতিহাসিক ''হোমো সেপিয়েন্স সেপিয়েন্স''-দের ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের মধ্যে দেখা যায় না, যেগুলিকে শিল্পকলা, সংস্কৃতিক ও বৌদ্ধিক কৌতুহলের একটি সম্প্রসারিত অংশ মনে করা হয়।<ref name="zygon" />
 
[[ব্রায়ান হেইডেন (প্রত্নতত্ত্ববিদ)|ব্রায়ান হেইডেন]] প্রমুখ প্রত্নতত্ত্ববিদের মতে, নিয়ান্ডারথালদের সমাধিদানের রীতিটি পরলোক ও [[পূর্বপুরুষ পূজা|পূর্বপুরুষ পূজায়]] বিশ্বাসের ইঙ্গিতবাহী।<ref name="hayden6">{{cite book|title=শ্যামানস, সোরসারারস, অ্যান্ড সেন্টস: আ প্রিহিস্ট্রি অফ রিলিজিয়ন |last=হেইডেন |first=ব্রায়ান |date=১৭ ডিসেম্বর ২০০৩ |publisher=স্মিথসোনিয়ান বুকস|location=ওয়াশিংটন, ডিসি |chapter=দ্য প্রাইমাল প্যালিওলিথিক |page=১১৫ |isbn=9781588341686}}</ref> এছাড়াও হেইডেন মনে করতেন যে, নিয়ান্ডারথালরা [[ভাল্লুক পূজা]] করত। নিয়ান্ডারথাল জনবসতিগুলির পার্শ্ববর্তী এলাকায় গুহা ভাল্লুকের দেহাবশেষ আবিষ্কার এবং শীতল আবহাওয়ায় বসবাসকারী শিকারী-সংগ্রাহক সমাজগুলিতে এই ধরনের পূজার ব্যাপকতা থেকে এই ধরনের তত্ত্বের উদ্ভব ঘটেছে। সমগ্র বিংশ শতাব্দী জুড়ে গুহায় খননকার্য চালিয়ে নিয়ান্ডারথাল জনবসতিগুলিতে অথবা সেগুলির আশেপাশে প্রচুর ভাল্লুকের দেহাবশেষ পাওয়া গিয়েছে। এগুলির মধ্যে আছে স্তুপীকৃত খুলি, মানুষের সমাধিস্থলের আশেপাশে ভাল্লুকের হাড় ও পশুচর্ম প্রদর্শনীর সঙ্গে সাযুজ্যপূর্ণ কঙ্কালের অবশেষের সজ্জা।<ref name="hayden7">{{cite book|title= শ্যামানস, সোরসারারস, অ্যান্ড সেন্টস: আ প্রিহিস্ট্রি অফ রিলিজিয়ন |last=হেইডেন |first=ব্রায়ান |date=১৭ ডিসেম্বর ২০০৩ |publisher=স্মিথসোনিয়ান বুকস|location=ওয়াশিংটন, ডিসি |chapter=দ্য প্রাইমাল প্যালিওলিথিক |page=১০৫–১১৩|isbn=9781588341686}}</ref> ইনা উন প্রমুখ অন্যান্য প্রত্নতত্ত্ববিদেরা “ভাল্লুক কাল্ট”-এর প্রমাণগুলিকে বিশ্বাসযোগ্য মনে করেন না। উনের ব্যাখ্যা অনুযায়ী, নিয়ান্ডারথালেরা ছিল প্রাক্-ধর্মীয় জনগোষ্ঠী এবং তাদের জনবসতির আশেপাশে ভাল্লুকের দেহাবশেষ পাওয়া নেহাতই কাকতালীয় ব্যাপার। কারণ, গুহাভাল্লুকেরা স্বভাবতই গুহায় বাস করে এবং তাই সেখানে তাদের হাড় খুঁজে পাওয়ার মধ্যে অস্বাভাবিক কিছু নেই।<ref name="numen" /> বৃহত্তর প্রত্নতাত্ত্বিক প্রমাণেও এমন ইঙ্গিত পাওয়া যায় যে পুরাপ্রস্তরযুগীয় ধর্মে ভাল্লুক পূজা একটি প্রধান বিষয় ছিল না।<ref name="expmag" />
১,১৭,৩৬৪টি

সম্পাদনা