সিলেটি রন্ধনশৈলী: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

চিত্র
(১টি উৎস উদ্ধার করা হল ও ০টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল।) #IABot (v2.0.8.6)
(চিত্র)
| image2 = Chicken Tikka Masala KellySue.JPG|caption2=চিকেন টিক্কা মাসালা ব্রিটিশ-সিলেটি রাঁধুনিদের দ্বারা উদ্ভাবিত
| image3 = সাত রঙ্গা চা।.jpg|caption3=জনপ্রিয় [[সাত রং চা]]
| image4 = ꠚꠥꠞꠤꠞ ꠛꠣꠠꠤꠞ ꠁꠍꠔꠣꠞꠤ ২.jpg|caption4=ফুরীর বাড়ির ইফতারি
| image4 = ꠉꠥꠀ-ꠙꠣꠘ.jpg|caption4=[[পান]]-[[সুপারি]] দিয়ে সিলেটি খাবার শেষ করা হয়।
}}
{{সিলেটের সংস্কৃতি}}
 
== ভাত ==
[[File:ꠜꠣꠔ ꠍꠣꠟꠘ.jpg|thumb|তরকারিসহ সিলেটি সুগন্ধি বিরইন ও আলা ভাত]]
বেশিরভাগ [[বাংলাদেশী]] সিদ্ধ ভাত খেতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে,<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.banglatribune.com/national/news/248875|শিরোনাম=আতপ চাল খাওয়ার অভ্যাস কত দিনে হবে?|তারিখ=5 Oct 2017|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=বাংলা ট্রিবিউন|ভাষা=bn}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://m.banglanews24.com/economics-business/news/bd/603862.details|শিরোনাম=ওএমএসে আতপ চাল পেয়ে ক্ষুব্ধ ক্রেতারা|তারিখ=20 Sep 2017|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=banglanews24.com|ভাষা=bn|আর্কাইভের-তারিখ=২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭|আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20170924222534/http://m.banglanews24.com/economics-business/news/bd/603862.details|ইউআরএল-অবস্থা=অকার্যকর}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.ntvbd.com/bangladesh/155181/%E0%A6%86%E0%A6%A4%E0%A6%AA-%E0%A6%9A%E0%A6%BE%E0%A6%B2-%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%87-%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%A4%E0%A6%BE-%E0%A6%B6%E0%A7%82%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%AF-%E0%A6%93%E0%A6%8F%E0%A6%AE%E0%A6%8F%E0%A6%B8%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%9A%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%A6%E0%A7%8B%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%A8|শিরোনাম=আতপ চাল, তাই ক্রেতা শূন্য ওএমএসের চালের দোকান|তারিখ=20 Sep 2017|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=[[এনটিভি (বাংলাদেশ)]]|ভাষা=bn}}</ref> শুধুমাত্র [[চট্টগ্রাম|চাটগাইয়া]] এবং [[সিলেটি]]রা ব্যতীত।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://archive.prothom-alo.com/detail/date/2013-08-31/news/131024|শিরোনাম=চট্টগ্রামসহ দুই বিভাগের জন্য আতপ চাল কিনছে সরকার|তারিখ=13 Feb 2011|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=[[প্রথম আলো]]|ভাষা=bn}}{{অকার্যকর সংযোগ|তারিখ=সেপ্টেম্বর ২০২১ |bot=InternetArchiveBot |ঠিক করার প্রচেষ্টা=yes }}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://blog.bdnews24.com/sukantaks/225867|শিরোনাম=বঙ্গে নতুন উপদ্রপ- আতপ চালের ‘নক্তা’|তারিখ=19 Sep 2017|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=[[bdnews24.com]]|ভাষা=bn}}</ref> [[সিলেট অঞ্চল|সিলেট অঞ্চলে]]র উল্লেখযোগ্য ধান হল আউশ, আমান, বোরো, ইরি, বিরইন, কালোজিরা, সোনালি জিরা ইত্যাদি। ''আলা ভাত'' (আতপ চাল) সিলেটিদের প্রধান খাদ্য।<ref name="syl"/> এটা কিছুটা চটচটে এবং সুস্বাদু।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.prothomalo.com/opinion/article/44618/%E0%A6%86%E0%A6%AE%E0%A6%B0%E0%A6%BE-%E0%A6%AF%E0%A7%87-%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A6%A3%E0%A7%87-%E0%A6%AA%E0%A7%81%E0%A6%B7%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A6%BF%E0%A6%AC%E0%A6%9E%E0%A7%8D%E0%A6%9A%E0%A6%BF%E0%A6%A4|শিরোনাম=আমরা যে কারণে পুষ্টিবঞ্চিত|তারিখ=5 Sep 2013|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=প্রথম আলো|ভাষা=bn}}</ref> সিলেটিরা বিভিন্ন স্বাদের মিষ্টান্ন তৈরিতে আঠালো ভাত পছন্দ করে। গবেষণায় দেখা গেছে যে সিলেটে উৎপন্ন ধানে বাংলাদেশের অন্যান্য অঞ্চলে একই ধরনের ধানের চেয়ে কম [[আর্সেনিক]] রয়েছে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.iospress.nl/ios_news/low-arsenic-rice-discovered-in-bangladesh-could-have-major-health-benefits/|শিরোনাম=Low-Arsenic Rice Discovered in Bangladesh Could Have Major Health Benefits|তারিখ=Feb 18, 2013|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=[[IOS Press]]}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://frontline.thehindu.com/science-and-technology/lowarsenic-rice/article4434752.ece|শিরোনাম=Low-arsenic rice|তারিখ=Feb 20, 2013|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=frontline.thehindu.com|ভাষা=en}}</ref> ''বায়োমেডিকাল স্পেকট্রোস্কোপি এবং ইমেজিং জার্নাল'' অনুসারে, সিলেটি ভাতে প্রয়োজনীয় পুষ্টিউপাদান [[সেলেনিয়াম]] এবং [[জিঙ্ক|জিঙ্কের]] পরিমাণ অধিকতর।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.thehindubusinessline.com/news/world/scientists-find-lower-arsenic-bangladeshi-rice-strain/article23092738.ece|শিরোনাম=Scientists find lower arsenic Bangladeshi rice strain|তারিখ=Feb 14, 2013|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=thehindubusinessline.com|ভাষা=en}}</ref> [[ভারত]] ও [[পাকিস্তান|পাকিস্তানের]] সুপরিচিত [[বাসমতী]] সুগন্ধি চালের তুলনায় বেশ কয়েকটি জাতের সিলেটি সুগন্ধি চাল কম আর্সেনিক সংক্রমিত।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.sciencedaily.com/releases/2013/02/130212100510.htm|শিরোনাম=Low-arsenic rice discovered in Bangladesh could have major health benefits|তারিখ=Feb 12, 2013|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=[[সাইন্সডেইলি]]}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.newsmax.com/t/health/article/490414?keywords=Low-Arsenic-Super-Nutritious-Rice-Discovered-Sylheti&year=2013&month=02&date=14&id=490414|শিরোনাম=Low-Arsenic, Super-Nutritious Rice Discovered|তারিখ=Feb 12, 2013|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=[[নিউজম্যাক্স]]|ভাষা=en}}</ref>
 
== মাংস ==
কাঁচা এবং শুকনো মরিচ, মূল এবং মশলা বেঁটে তৈরি তরকারি সিলেটিদের কাছে খুব প্রিয়।
[[File:ꠉꠞꠥ ꠉꠥꠍ꠆ꠔꠞ ꠚꠣꠟ.jpg|thumb|গরুর মাংস এবং নাগা মরিচের আচার দিয়ে তৈরি সাধারণ সিলেটি ফাল তরকারি]]
 
=== সাতকরার গরুর মাংস ===
=== ফাল ===
ফাল হল ব্রিটিশ এশীয় কারি যা ব্রিটিশ বাংলাদেশি মালিকানাধীন কারি-হাউসে উৎপন্ন একটি রেসিপি। এটি বিন্দালুর চেয়েও ঝাল। এই খাবারটি একটি [[টমেটো]] ভিত্তিক ঘন তরকারি যা [[আদা]] এবং মৌরির বীজের বিকল্প হিসাবে অন্তর্ভুক্ত।
 
== মাছ ==
সিলেটি খাবারে বিভিন্ন ধরণের মাছের তরকারি পাওয়া যায়। মাছ তরকারী এবং ভাজা উভয়ই খাওয়া হয়। শুকনো এবং গাঁজানো মাছ হুটকি নামে পরিচিত, এবং [[সাতকরা|হাতকরা]], একটি তিক্ত এবং সুগন্ধী সাইট্রাস ফল যা [[সাতকরা|তরকারী]] রান্নার জন্য ব্যবহৃত হয়। এমনকি অত্যন্ত ঝাল [[নাগা মরিচ]] তরকারিতে ব্যবহার করা হয়।<ref name="gbc">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.greatbritishchefs.com/features/bangladeshi-food-guide-cuisine|শিরোনাম=The 6 Seasons of Bangladeshi Cuisine|তারিখ=8 March 2019|সংগ্রহের-তারিখ=26 April 2020|প্রকাশক=[[গ্রেট ব্রিটিশ শেফস]]|ভাষা=en}}</ref> সর্বাধিক জনপ্রিয় স্থানীয় খাবারগুলিতে হিদল বা শুটকি চাটনি, হুটকি শিরা বা শুকনো মাছের তরকারি এবং এই অঞ্চলে প্রাপ্ত বিভিন্ন মাছ রয়েছে।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://bitmesra.ac.in/naps/barak/|শিরোনাম=The Beckoning Beauty of Barak|তারিখ=21 December 2017|ওয়েবসাইট=[[বিড়লা ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি, মেসরা | বিআইটি MESRAr]]|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|আর্কাইভের-তারিখ=৫ জুলাই ২০২০|আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20200705202457/https://bitmesra.ac.in/naps/barak/|ইউআরএল-অবস্থা=অকার্যকর}}</ref><ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://indianexpress.com/article/express-sunday-eye/smells-like-a-secret-5504173/|শিরোনাম=The fiery flavours of East Bengal’s dried and fermented fish are all the notes of life|তারিখ=December 23, 2018|ওয়েবসাইট=[[The Indian Express]]|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|ভাষা=en}}</ref> স্থানীয়দের ধারণা হিদল চাটনির অতিরিক্ত ঝাল সর্দি এবং মাথা ব্যথার প্রতিকার হিসবে কাজ করে।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.atlasobscura.com/foods/shidol-chutney-fermented-fish-bangladesh|শিরোনাম=Shidol Chutney|তারিখ=21 December 2017|ওয়েবসাইট=[[অ্যাটলাস ওবস্কুরা]]|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|ভাষা=en}}</ref>
 
== পিঠা ==
[[File:ꠘꠥꠘꠉꠠꠣ ꠀꠞ ꠢꠣꠘ꠆ꠖꠦꠡ 1.jpg|thumb|নুনগড়া ও হান্দেশ]]
 
=== নুনর বড়া ===
নুনর বড়া, যা নুনগড়া নামেও পরিচিত হচ্ছে একটি মসলাদার ময়দার তৈরি জলখাবার। এটি [[পিঁয়াজ|পেঁয়াজ]], [[আদা]] এবং [[হলুদ (মশলা)|হলুদ]] দিয়ে তৈরি যা নাস্তাটিকে তার সোনালি রূপ দেয়। এটি নাস্তা হিসাবে [[চা]]য়ের সাথে খাওয়া হয় এবং সিলেটবাসীদের কাছে [[ঈদ]] উত্সবের সময় খুব জনপ্রিয়। নুনর বড়া না ভেঁজে পরবর্তী ব্যবহারের জন্য [[রেফ্রিজারেটর|ফ্রিজে]] সংরক্ষণ করা যেতে পারে।<ref>https://www.deshebideshe.com/home/printnews/38341{{অকার্যকর সংযোগ|তারিখ=জানুয়ারি ২০২১ |bot=InternetArchiveBot |ঠিক করার প্রচেষ্টা=yes }}</ref>