"সার্স-কোভি-২ ভাইরাসের ডেল্টা প্রকারণ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

88.244.17.126-এর সম্পাদিত সংস্করণ হতে Sojol Rana-এর সম্পাদিত সর্বশেষ সংস্করণে ফেরত
(YOU DESTROY DELTA, WHEN YOU GOT FAMILY!!!)
ট্যাগ: পুনর্বহালকৃত
(88.244.17.126-এর সম্পাদিত সংস্করণ হতে Sojol Rana-এর সম্পাদিত সর্বশেষ সংস্করণে ফেরত)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা পুনর্বহাল উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
'''সার্স-কোভি-২ ভাইরাসের ডেল্টা প্রকারণ''', যা '''বি.১.৬১৭.২ বংশ''' নামেও পরিচিত, করোনাভাইরাস রোগ ২০১৯ (কোভিড-১৯) সৃষ্টিকারী সার্স-কোভি-২ ভাইরাসের একটি প্রকারণ, যা ভাইরাসটির বি.১.৬১৭ বংশের অন্তর্ভুক্ত।<ref name="gov.uk">{{cite news|url=https://www.gov.uk/government/news/confirmed-cases-of-covid-19-variants-identified-in-uk |title=Confirmed cases of COVID-19 variants identified in UK |website=www.gov.uk |date=15 April 2021 |access-date=2021-04-20}}</ref> এটি ২০২০ সালের শেষভাগে ভারতে প্রথম শনাক্ত করা হয়।<ref name="GISAID">{{cite web |url=https://www.gisaid.org/hcov19-variants/ |title=Tracking of Variants |author=<!--Not stated--> |date=26 April 2021 |website=gisaid.org |publisher=[[GISAID]] |access-date=30 May 2021}}</ref><ref name="SMC1">{{cite web |title=Expert reaction to cases of variant B.1.617 (the 'Indian variant') being investigated in the UK |url=https://www.sciencemediacentre.org/expert-reaction-to-cases-of-variant-b-1-617-the-indian-variant-being-investigated-in-the-uk/ |publisher=Science Media Centre |access-date=20 April 2021}}</ref> [[বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা]] ২০২১ সালের মে মাসে এটিকে ডেল্টা প্রকারণ নামকরণ করে।<ref name="BBC.May.31.2021">{{cite news|date=2021-05-31|title=Covid: WHO renames UK and other variants with Greek letters|publisher=BBC News|url=https://www.bbc.com/news/world-57308592|access-date=2021-06-08}}</ref>
 
সার্স-কোভি-২ কীলক প্রোটিনের সংকেত বহনকারী বংশাণুটিতে একাধিক পরিব্যক্তি (টি৪৭৮কে এবং এল৪৫২আর)<ref>{{cite web|date=2021-05-07|title=expert reaction to VUI-21APR-02/B.1.617.2 being classified by PHE as a variant of concern|url=https://www.sciencemediacentre.org/expert-reaction-to-vui-21apr-02-b-1-617-2-being-classified-by-phe-as-a-variant-of-concern/?cli_action=1621097773.028|access-date=2021-06-18|website=sciencemediacentre.org}}</ref> ঘটে এই প্রকারণটি সৃষ্টি হয়েছে। ফলে আদি বন্য প্রকারের ভাইরাসের তুলনায় এই প্রকারণটির সংবহনযোগ্যতা বৃদ্ধি পেয়েছে এবং এটিকে প্রতিবস্তু (অ্যান্টিবডি) দ্বারা নিষ্ক্রিয়করণের সম্ভাবনাও কমে গেছে। [[পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড]] ২০২১ সালের মে মাসে লক্ষ করে যে আলফা প্রকারণের তুলনায় ডেল্টা প্রকারণের আক্রমণের হার ৫১-৬৭% বেশি।<ref>{{Cite web|title=SARS-CoV-2 variants of concern and variants under investigation in England|date=27 May 2021|url=https://assets.publishing.service.gov.uk/government/uploads/system/uploads/attachment_data/file/990339/Variants_of_Concern_VOC_Technical_Briefing_13_England.pdf|url-status=live|access-date=2021-06-18}}</ref>
 
২০২১ সালের ৭ই মে পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড প্রকারণটিকে অনুসন্ধানাধীন প্রকারণ থেকে উদ্বেগজনক প্রকারণে পুনর্শ্রেণীবিন্যস্ত করে, কেননা তারা এটির সংবহনযোগ্যতা কমপক্ষে আলফা প্রকারণের সমান হিসেবে মূল্যায়ন করে।<ref name=gov.uk.May.7>{{cite web |website=www.gov.uk |url=https://www.gov.uk/government/news/confirmed-cases-of-covid-19-variants-identified-in-uk |title=Confirmed cases of COVID-19 variants identified in UK |date=7 May 2021 |access-date=2021-05-07 |archive-url=https://web.archive.org/web/20210507162335/https://www.gov.uk/government/news/confirmed-cases-of-covid-19-variants-identified-in-uk |archive-date=7 May 2021 |url-status= live}}</ref> এর পরে ১১ই মে, ২০১১ তারিখে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও এই বংশটিকে উদ্বেগজনক প্রকারণ হিসেবে শ্রেণীবদ্ধ করে। এই প্রকারণটি ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি
মাসে ভারতে শুরু হওয়া করোনাভাইরাস রোগের মহামারীর দ্বিতীয় তরঙ্গের জন্য আংশিকভাবে দায়ী বলে মনে করা হয়।<ref name=":0">[https://www.cnbc.com/2021/05/11/india-covid-explainer-what-we-know-about-the-bpoint1point617-variant.html WHO labels a Covid strain in India as a 'variant of concern' — here's what we know], CNBC, 11 May 2021.</ref><ref name=":1">[https://www.bbc.co.uk/news/world-asia-india-57067190 "WHO says India Covid variant of 'global concern{{'"}}], BBC News, 11 May 2021.</ref><ref>[https://science.thewire.in/health/covid-19-the-second-wave-may-not-be-the-last-but-which-one-will-be/ "India's second COVID-19 wave"], The Wire Science, 22 April 2021.</ref>
 
==তথ্যসূত্র==