শাহ ইসমাইল গাজী: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎মৃত্যু: সূত্র
(→‎মৃত্যু: সূত্র)
 
==মৃত্যু==
৮৭৮ হিজরি/১৪৭৪ খ্রিষ্টাব্দে শাহ ইসমাইল গাজীকে হত্যা করা হয়। লোক কাহিনী মতে, তার খন্ডিত মস্তক রংপুরের পীরগঞ্জ থানার কাঁটাদুয়ার নামক স্থানে কবর দেয়া হয় এবং দেহ হুগলি জেলার মান্দারণে সমাধিস্থ করা হয়।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://khonjkhobor.in/AllRajyaPosts/history-still-tacking-gar-mandaran/|শিরোনাম=ইতিহাস আজও কথা বলে হুগলীর গড় মান্দারনে – KHONJKHOBOR|ভাষা=en-US|সংগ্রহের-তারিখ=2021-10-13}}</ref> তবে শাহ ইসমাইল গাজীর স্মৃতি বিজড়িত ছয়টি দরগাহ রয়েছে। এগুলির একটি মান্দারণে, একটি ঘোড়াঘাটে এবং চারটি রংপুর জেলার পীরগঞ্জে অবস্থিত, যার মধ্যে [[কাটাদুয়ার দরগাহ]]-টিই অধিকতর গুরুত্বপূর্ণ।[http://bn.banglapedia.org/index.php?title=%E0%A6%B6%E0%A6%BE%E0%A6%B9_%E0%A6%87%E0%A6%B8%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%87%E0%A6%B2_%E0%A6%97%E0%A6%BE%E0%A6%9C%E0%A7%80_(%E0%A6%B0%E0%A6%83)]
 
==চিত্রশালা==