"সিজারিয়ান সেকশন" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

১টি উৎস উদ্ধার করা হল ও ০টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল।) #IABot (v2.0.8
(বানান সংশোধন)
(১টি উৎস উদ্ধার করা হল ও ০টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল।) #IABot (v2.0.8)
 
[[চিত্র:Cesarian the moment of birth3.jpg|thumb|250px|আধুনিক হাসপাতালে একদল প্রসূতিরোগবিদ একটি সিজারিয়ান অপারেশন করছেন। ছবিটি সদ্যজন্ম নেওয়া শিশুকে মায়ের একেবারে প্রথম দর্শনের দৃশ্য।]] '''সিজারিয়ান সেকশন''' ({{lang-en|Caesarean section বা মার্কিন ইংরেজিতে Cesarean section}}), যা '''সি-সেকশন''' (C-section) বা '''সিজার''' (Caesar) নামেও পরিচিত। এটি এক প্রকার [[শল্যচিকিৎসা]] যা এক বা একাধিক শিশু জন্মদানের জন্য মায়ের [[উদর]] ও [[জরায়ু|জরায়ুতে]] করা হয়। এটি সাধারণত করা হয় তখন, যখন প্রাকৃতিক নিয়মে জন্মনালির মাধ্যমে [[যোনি|যোনীয়]] প্রসব সম্ভব হয় না, বা সম্ভব করতে গেলে মায়ের বা শিশুর, জীবন বা স্বাস্থ্য হুমকির সম্মুখীন হতে পারে। যদিও বর্তমান সময়ে প্রাকৃতিক পন্থায় জন্মদান সম্ভব হলেও অনেক মা সিজারিয়ানের মাধ্যমে শিশু জন্মদানের জন্য অনুরোধ করেন। <ref>[http://www.smh.com.au/news/national/fear-a-factor-in-surgical-births/2007/10/06/1191091421081.html Fear a factor in surgical births - National - smh.com.au<!-- Bot generated title -->]</ref><ref>[{{ওয়েব উদ্ধৃতি |ইউআরএল=http://www.stuff.co.nz/stuff/4198257a11.html |শিরোনাম=Kiwi caesarean rate continues to rise - New Zealand news on Stuff.co.nz<!-- Bot generated title -->] |সংগ্রহের-তারিখ=৯ ডিসেম্বর ২০০৯ |আর্কাইভের-তারিখ=২৮ ফেব্রুয়ারি ২০০৯ |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20090228093452/http://www.stuff.co.nz/stuff/4198257a11.html |ইউআরএল-অবস্থা=অকার্যকর }}</ref><ref>{{ সাময়িকী উদ্ধৃতি | লেখক=Finger | প্রথমাংশ=C. | শিরোনাম=Caesarean section rates skyrocket in Brazil. Many women are opting for Caesareans in the belief that it is a practical solution. | সাময়িকী=Lancet | বছর=2003 | খণ্ড=362 | পাতা=628 | pmid=12947949 | ডিওআই=10.1016/S0140-6736(03)14204-3 }}</ref> [[বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা]] (ডব্লিউএইচও) পরামর্শ দেয় যে, কোনো দেশের সিজারিয়ানের মাধ্যমে শিশু জন্মদানের হার, যেন মোট জন্মহারের ১৫%-এর বেশি না হয়।<ref>[http://www.who.int/bulletin/volumes/85/10/06-035808/en/index.html who.int] intro - first line</ref>
 
সিজার করতে প্রায় ৪৫ মিনিট থেকে ১ ঘন্টা সময় লাগে।<ref name="NIH2010" /> এটি মেরুদন্ড ব্লকের মাধ্যমে করা যেতে পারে যে ব্যবস্থায় গর্ভবতীকে ঘুম পাড়ানো হয় না বা সাধারণ মাত্রার এনেস্থেশিয়া প্রয়োগকৃত অবস্থায় থাকে।<ref name="NIH2010" /> প্রস্রাব নিঃস্কাষনের জন্য ক্যাথিটার ব্যবহৃত হয়। পেটের চামড়া এন্টিসেপটিক দ্বারা পরিষ্কার করা হয়।<ref name="NIH2010" /> তারপর প্রায় ৬ ইঞ্চি পরিমান (প্রায় ১৫ সেমি) তলপেটের অংশে অপারেশন করেন একজন অভিজ্ঞ শল্যবিদ।<ref name="NIH2010" /> তারপর জরায়ুতেও একইভাবে অপারেশনপূর্বক শিশুকে বের করে আনা হয়।<ref name="NIH2010" /> তারপর চামড়া সেলাই করে জোড়া দেয়া হয়।<ref name="NIH2010" /> অপারেশনের পরপরই সদ্য মাকে অপারেশন কক্ষের বাইরে নিয়ে আসা হয় তখন তিনি যদি সজাগ থাকেন তবে শিশুকে বুকের দুধ পান করাতে পারেন।<ref>{{cite book|url=https://books.google.com/books?id=2X0_Takcr_wC&pg=PA274|title=Counseling the Nursing Mother: A Lactation Consultant's Guide|last2=Swisher|first2=Anna|date=2010|publisher=Jones & Bartlett Publishers|page=274|language=en|isbn=9781449619480|archive-url=https://web.archive.org/web/20170911003217/https://books.google.com/books?id=2X0_Takcr_wC&pg=PA274|archive-date=11 September 2017|url-status=live|last1=Lauwers|first1=Judith}}</ref> তবে পরিপূর্নভাবে সুস্থ হতে গেলে হাসপাতালে কয়েকদিন থাকতে হতে পারে।<ref name="NIH2010" />
৯৭,২৫৪টি

সম্পাদনা