ভারতের আদি মধ্যযুগীয় রাজ্যসমূহ: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

#WPWP #WPWPBN
(2409:4060:2E04:1BF6:2823:7068:CFB1:5571-এর সম্পাদিত সংস্করণ হতে নকীব বট-এর সম্পাদিত সর্বশেষ সংস্করণে ফেরত)
ট্যাগ: পুনর্বহাল মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
(#WPWP #WPWPBN)
 
{{ভারতের ইতিহাস}}
[[চিত্র:History of India Vol 2.djvu|থাম্ব|ভারতের ইতিহাস সম্পর্কিত একটি বই]]
'''ভারতের আদি মধ্যযুগীয় রাজ্যসমূহ''' বলতে বোঝায় খ্রিষ্টপূর্ব দ্বিতীয় শতাব্দীতে [[মৌর্য সাম্রাজ্য|মৌর্য সাম্রাজ্যের]] পতনের পর ভারতে উদ্ভূত রাজনৈতিক শক্তিগুলিকে। ২৩০ খ্রিষ্টপূর্বাব্দে [[সিমুক]] কর্তৃক [[সাতবাহন]] রাজবংশের প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে ভারতে আদি মধ্যযুগীয় রাজন্যবর্গের শাসনের সূত্রপাত ঘটে। এই যুগ ভারতের ধ্রুপদি যুগ নামে পরিচিত। এই যুগে বিশ্বের সামগ্রিক অর্থসম্পদের এক তৃতীয়াংশ থেকে এক চতুর্থাংশ নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে সমগ্র প্রাচীন ও মধ্যযুগীয় বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনৈতিক শক্তি রূপে আত্মপ্রকাশ করে ভারত। এই "আদি মধ্যযুগ" মোটামুটি ১,৫০০ বছর স্থায়ী হয়েছিল। খ্রিষ্টীয় ত্রয়োদশ শতাব্দীতে উত্তর ভারতে [[ভারতে ইসলামি সাম্রাজ্য|মুসলিম সালতানাতগুলির]] উত্থান (১২০৬ সালে [[দিল্লি সুলতানি|দিল্লি সুলতানির]] প্রতিষ্ঠা) এবং দক্ষিণ ভারতে [[চালুক্য চোল]] রাজ্যের পতনের (১২৭৯ সালে [[তৃতীয় রাজেন্দ্র চোল|তৃতীয় রাজেন্দ্র চোলের]] মৃত্যু) সঙ্গে সঙ্গে ভারতে আদি মধ্যযুগীয় রাজন্যবর্গের শাসনের সমাপ্তি ঘটে।
 
১,৫১৮টি

সম্পাদনা