জাহান্নাম: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(→‎জাহান্নামে অবস্থানকাল: হালনাগাদ করা হল)
 
== জাহান্নামে অবস্থানকাল ==
জাহান্নামকে কখনো ধ্বংস করা হবেনা। এটি বর্তমানে অস্তিত্বশীল এবং এর অধিবাসীরা একের পর এক আগমনকারী দীর্ঘ সময় সেখানে অবস্থান করবে। এমন একটি ধারাবাহিক যুগ যে, একটি যুগ শেষ হবার পর আর একটি যুগ শুরু হয়ে যায়। এমন কোন যুগ হবে না যার পর আর কোন যুগ আসবে না। কুরআনের ৩৪ জায়গায় জাহান্নামবাসীদের জন্য ‘খুলুদ’ (চিরন্তন) শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে। তিন জায়গায় কেবল ‘খুলুদ’ বলেই শেষ করা হয়নি বরং তার সাথে “আবাদান” (চিরকাল) শব্দও বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://quranenc.com/bn/browse/bengali_zakaria/78/23|শিরোনাম=অর্থসমূহের অনুবাদ আয়াত 23 সূরা সূরা আন-নাবা - বাংলা ভাষায় অনুবাদ- ড. আবূ বকর মুহাম্মাদ যাকারিয়া|ওয়েবসাইট=আল-কুরআনুল কারীম বিশ্বকোষ|ভাষা=bn|সংগ্রহের-তারিখ=2021-08-22}}</ref> "উপযুক্ত প্রতিফলস্বরূপ"<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://quran.com/78:26/tafsirs/bn-tafsir-ahsanul-bayaan?locale=bn|শিরোনাম=Tafsir Ahsanul Bayaan - 78:26 - bengali|ওয়েবসাইট=quran.com|সংগ্রহের-তারিখ=2021-08-11}}</ref> অর্থাৎ জাহান্নামে তাদেরকে যে শাস্তি দেয়া হবে, তা ন্যায় ও ইনসাফের দৃষ্টিতে তাদের বাতিল বিশ্বাস ও কুকর্মের অনুরূপ হবে। এতে কোন বাড়াবাড়ি হবে না।
 
==তথ্যসূত্র==
২৪টি

সম্পাদনা