"প্রিয়ম্বদা দেবী" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
 
==জন্ম ও প্রারম্ভিক জীবন==
প্রিয়ম্বদা দেবীর জন্ম বৃটিশ ভারতের অধুনা বাংলাদেশের পাবনা জেলার গুনাইগাছা গ্রামে মাতামহের কর্মক্ষেত্রে। পৈতৃক নিবাস ছিল যশোরে। তার পিতা কৃষ্ণকুমার বাগচি। মাতা [[প্রসন্নময়ী দেবী]]ও একজন কবি ছিলেন।মায়ের সঙ্গে মাতুলালয়েই তাঁর জীবন কেটেছে।প্রখ্যাত সাহিত্যিক [[প্রমথ চৌধুরী]] ও [[কলকাতা উচ্চ আদালত| কলকাতা হাইকোর্টের]] বিচারপতি [[আশুতোষ চৌধুরী| স্যার আশুতোষ চৌধুরী]] ছিলেন তাঁর মাতুল। প্রিয়ম্বদা ১৮৮৮ খ্রিস্টাব্দে বেথুন স্কুল থেকে এন্ট্রান্স এবং বেথুন কলেজ থেকে এফ.এ ও ১৮৯২ খ্রিস্টাব্দে বি.এ পাশ করেন। ওই বছরেই [[মধ্য প্রদেশ |মধ্য প্রদেশের]] [[রায়পুর|রায়পুরের]] আইনজীবী তারাপদ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর বিবাহ হয়। ১৮৯৫ খ্রিস্টাব্দে তাঁর স্বামী মারা যান এবং ১৯০৬ খ্রিস্টাব্দে তাঁর একমাত্র পুত্র ও মারা গেলে তিনি সমাজসেবা এবং কাব্যচর্চাকে জীবনের অঙ্গ করেন - হয়ে ওঠেন দুঃখবাদী কবি।<ref name="সংসদ">সুবোধ সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, ''সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান'', প্রথম খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, আগস্ট ২০১৬, পৃষ্ঠা ৪৩৫, {{আইএসবিএন|978-81-7955-135-6}}</ref>
 
==কাব্যচর্চা==