"খোন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

পরিষ্কারকরণ
(পরিষ্কারকরণ)
 
== কর্মজীবন ==
[[সরকারি মাদ্রাসা-ই-আলিয়া, ঢাকা|ঢাকার আলিয়া মাদ্রাসা]] থেকে ১৯৭৯ সালে কামিল পাশ করার পর ঝিনাইদহ সদরের 'নাসনা নূরনগর সিদ্দিকীয়া দাখিল মাদ্রাসায়’ প্রায় দুই বছর শিক্ষকতা করেন।<ref name=":1">{{সাময়িকী উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.alkawsar.com/bn/article/1866/|শিরোনাম=মুসলিম উম্মাহর একজন দরদী মানুষ ড. আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর রাহ.-কে যেমন দেখেছি|সাময়িকী=মাসিক আল কাউসার}}</ref> ১৯৯৮ সালে তিনি সৌদি আরব থেকে দেশে এসে প্রথমে [[দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয়|দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয়ে]] কয়েক মাস শিক্ষকতা করেন।<ref name=":1" /> এরপর ১৯৯৮ সালে তিনি [[ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ|ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশে]] আল হাদিস ও ইসলামি স্টাডিজ বিভাগের প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন।<ref>{{বই উদ্ধৃতি|শিরোনাম=প্রেরণার বাতিঘর, আবুল কালাম আজাদ আযহারী সম্পাদিত|বছর=মে ২০১৭|প্রকাশক=বাংলাদেশ জাতীয় মুফাসসির পরিষদ|অবস্থান=ঢাকা|পাতাসমূহ=১১২}}</ref> তিনি ইন্দোনেশিয়া থেকে ১৯৯৯ সালে ইসলামি উন্নয়ন ও আরবি ভাষা বিষয়ে উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। এসময় ইন্দোনেশিয়ার মালাং এ, মিনিস্ট্রি অব রিলিজিয়াস অ্যাফেয়ার্স আয়োজিত (১১-১৬ অক্টোবর, ১৯৯৯) সেমিনার ও কর্মশালায় তিনি তার গবেষণাপত্র পাঠ ও জমাদান করেন। একই বছর তিনি [[ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ|ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে]] সহকারী অধ্যাপক পদে ও ২০০৪ সালে ‘সহযোগী অধ্যাপক’ পদে পদোন্নতি লাভ করেন।<ref name=":7" /> এছাড়া তিনি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০০৪ সালে আইন বিভাগে ও ২০০৫ সালে আল ফিকহ বিভাগে খন্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৯ সালে [[ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ|ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের]] এই বিভাগেরই প্রফেসর পদে উন্নীত হন।<ref name=":6">{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20210610040013/https://www.iu.ac.bd/index.php/site/dept_mainmenu/AHIS/171|শিরোনাম=Islamic University Teacher's Index|তারিখ=2021-06-10|ওয়েবসাইট=web.archive.org|সংগ্রহের-তারিখ=2021-06-10}}</ref><ref name=":7" /> কর্মজীবনে তিনি দারুস সালাম কওমি মাদ্রাসা, ঢাকা ও পাবনার জেলার পাকশিতে অবস্থিত জামিআতুল কুরআনিল কারিম কওমি মাদ্রাসায় খণ্ডকালীন 'শায়খুল হাদিস' হিসেবে বুখারি শরিফ পড়াতেন।<ref name=":7" /><ref>{{বই উদ্ধৃতি|শিরোনাম=প্রেরণার বাতিঘর (ডঃ আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর স্মারকগ্রন্থ), সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ আযহারী, পৃষ্ঠা-৫৭।|প্রকাশক=বাংলাদেশ জাতীয় মুফাসসির পরিষদ}}</ref> তিনি ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন এবং আমৃত্যু ঝিনাইদহ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের পেশ ইমাম ও খতিবের দায়িত্ব পালন করেছেন।<ref name=":4" />
 
== মৃত্যু ==
আবদুল্লাহ জাহাঙ্গীরের মৃত্যুতে ১৮ মে ২০১৬ তারিখে তার নিজ কর্মস্থল ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে,<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://web.dailyjanakantha.com/details/article/192013/%E0%A6%87%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%A1-%E0%A6%86%E0%A6%AC%E0%A6%A6%E0%A7%81%E0%A6%B2%E0%A7%8D%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%B9-%E0%A6%9C%E0%A6%BE%E0%A6%B9%E0%A6%BE%E0%A6%99%E0%A7%8D%E0%A6%97%E0%A7%80%E0%A6%B0-%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%AE%E0%A6%B0%E0%A6%A8%E0%A7%87-%E0%A6%A6%E0%A7%8B%E0%A7%9F%E0%A6%BE-%E0%A6%93-%E0%A6%86%E0%A6%B2%E0%A7%8B%E0%A6%9A%E0%A6%A8%E0%A6%BE-%E0%A6%B8%E0%A6%AD%E0%A6%BE/print/|শিরোনাম=ইবিতে ড. আবদুল্লাহ জাহাঙ্গীর স্মরনে দোয়া ও আলোচনা সভা {{!}}{{!}} দেশের খবর {{!}}|তারিখ=১৮ মে ২০১৬|কর্ম=[[দৈনিক জনকন্ঠ]]|সংগ্রহের-তারিখ=৯ মার্চ ২০১৯|ভাষা=en|আর্কাইভের-তারিখ=১২ মার্চ ২০১৯|আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20190312031919/http://web.dailyjanakantha.com/details/article/192013/%E0%A6%87%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%A1-%E0%A6%86%E0%A6%AC%E0%A6%A6%E0%A7%81%E0%A6%B2%E0%A7%8D%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%B9-%E0%A6%9C%E0%A6%BE%E0%A6%B9%E0%A6%BE%E0%A6%99%E0%A7%8D%E0%A6%97%E0%A7%80%E0%A6%B0-%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%AE%E0%A6%B0%E0%A6%A8%E0%A7%87-%E0%A6%A6%E0%A7%8B%E0%A7%9F%E0%A6%BE-%E0%A6%93-%E0%A6%86%E0%A6%B2%E0%A7%8B%E0%A6%9A%E0%A6%A8%E0%A6%BE-%E0%A6%B8%E0%A6%AD%E0%A6%BE/print/|ইউআরএল-অবস্থা=কার্যকর}}</ref> ৪ জুন ২০১৬ তারিখে বাংলাদেশ জাতীয় মুফাসসির পরিষদ কর্তৃ‌ক<ref name=":0" /> এবং ১৯ মে ২০১৬ আইটিভি টোয়েন্টিফোর কতৃক দোয়া অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভা আয়োজিত হয়। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে আস সাফা ইসলামিক সেন্টার কতৃক দোয়া মাহফিল ও আলোচনা অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়।
 
আস সুন্নাহ পাবলিকেশন্স থেকে ২০২০ সালে তার জীবনীগ্রন্থ ({{ASIN|B092Q5ZPBV}}) প্রকাশিত হয়েছে। এগ্রন্থেএই গ্রন্থে তার সমন্ধে সমকালীন ইসলামি পন্ডিতদের বক্তব্যের একটি সংকলণওসংকলনও যুক্ত করা হয়েছে।
 
== আলোচনা-সমালোচনা ==
২৪৫টি

সম্পাদনা