"হিযবুত তাহরীর" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(MdsShakil-এর করা 5134767 নং সংস্করণ পুনরুদ্ধার করা হয়েছে উপরেরটা আলোচনা ছাড়া বানান স্থানান্তর (পুনরুদ্ধারকারী))
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা পূর্বাবস্থায় ফেরত উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
'''হিযবুত তাহরীর''' ({{lang-ar|حِزْبُ التَحْرِير}}) ([[বাংলা ভাষা|বাংলা ভাষায়ঃ]] মুক্তির দল) একটি ইসলামি মতাদর্শ ভিত্তিক রাজনৈতিক দল যা পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। বাংলাদেশে ২০০১ সাল হতে আনুষ্ঠানিকভাবে এ দলটি তাদের কার্যক্রম শুরু করে। ২০০৯ সালের অক্টোবর মাসে (২২ শে অক্টোবর) বাংলাদেশের স্বরাষ্ষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক "জননিরাপত্তার স্বার্থে" -এ কারণ দেখিয়ে এ দলটিকে নিষিদ্ধ করা হয়।<ref name="bd">[http://archive.prothom-alo.com/detail/news/14155]</ref> দলটি পৃথিবীর অন্য অনেকগুলো দেশেও নিষিদ্ধ ঘোষিত হয়েছে। <ref name=EGYPTCOUP>[http://www.bhhrg.org/mediaDetails.asp?ArticleID=50 Muslim girl's brother linked to Islam radicals] {{ওয়েব আর্কাইভ|ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20050421160242/http://www.bhhrg.org/mediaDetails.asp?ArticleID=50 |তারিখ=২১ এপ্রিল ২০০৫ }} British Helsinki Human Rights Group</ref>
 
হিযবুত তাহরীর দলটি নানা কারণে সমালোচিত হয়েছে। সন্ত্রাসের বিরোধিতা আপাতত করলেও সেই বিরোধিতাটুকুকে সাময়িক কৌশল বলে অভিহিত করা হয়েছে।<ref>[http://www.globalsecurity.org/military/world/para/hizb-ut-Tahrir.htm Hizb ut-Tahrir al-Islami] on Global Security.org</ref> আরো অভিযোগ রয়েছে, এই দলটি সন্ত্রাসকে লালন করা ও উৎসাহিত করার মতো পরিবেশ সৃষ্টি করছে। <ref name=IMRANKHAN>[http://news.bbc.co.uk/2/hi/programmes/newsnight/3182271.stm 27 BBC News, August, 2003, Hizb ut-Tahrir]</ref> হিযবুত তাহরীরের সাম্প্রদায়িক ঘৃণার বিষয়ে প্রচারণা চালায় বলে অভিযোগ রয়েছে। <ref name=Sardarhist>Ziauddin Sardar [http://www.newstatesman.com/200511140010 "Ziauddin Sardar explains the long history of violence behind Hizb ut-Tahrir"] {{ওয়েব আর্কাইভ|ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20080511175612/http://www.newstatesman.com/200511140010 |তারিখ=১১ মে ২০০৮ }} ''New Statesman'', 14 November 2005</ref> এছাড়া এটি সন্ত্রাসবাদী আত্মঘাতী বোমাবাজদের শহীদ বলে আখ্যায়িত করে এবং "নতুন ক্রুসেডারদের ধ্বংস করতে হবে" এমন প্রচারণা চালিয়ে থাকে এসবের মাধ্যমে হিযবুত তাহরীর মুসলিম তরুণদের সন্ত্রাসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে।<ref name=THarper>[http://www.telegraph.co.uk/news/uknews/1564616/Islamists-'urge-young-Muslims-to-use-violence'.html "Islamists 'urge young Muslims to use violence,'" By Tom Harper, 19 April 2008]</ref>
 
== ইতিহাস ==
 
== কর্মপদ্ধতি ==
খিলাফৎখিলাফত প্রতিষ্ঠার ইসলামি ফরজফরয জিম্মাদায়িত্ব পালনের লক্ষ্যে হিযবুত তাহরীর সমগ্র বিশ্বে কাজ করে থাকে। এবং এক্ষেত্রে রাসূলুল্লাহ (সাঃ) -এর পবিত্র জীবন থেকে হিযবুত তাহরীর তাদের কর্মপদ্ধতি গ্রহণ করেছে। হিজবুকহিযবুত তহরীরতাহরীর খিলাফৎখিলাফত প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কোনো ধরনের সশস্ত্র পন্থায় বিশ্বাস করে না। বরং তারা একমাত্র বুদ্ধিবৃত্তিক ও রাজনৈতিক পদ্ধতিতেই কর্মকাণ্ড পরিচালনায় বিশ্বাসী। হিযবুত তাহরীর মনে করে যে যেভাবে রাসূলুল্লাহ (সাঃ) তার মক্কী জীবনে বুদ্ধিবৃত্তিক ও রাজনৈতিক সংগ্রামের মাধ্যমে মদিনায় একটি ইসলামি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন, ঠিক সে কর্মপদ্ধতিতেই আবার খিলাফৎখিলাফত ব্যবস্থা ফিরে আসবে এবং এটাই এ কাজের ক্ষেত্রে একমাত্র সঠিক কর্মপদ্ধতি। {{সত্যতা}}
রাসূলাল্লাহ (সাঃ) খিলাফৎখিলাফত প্রতিষ্ঠায় ৩টি স্তর অতিক্রম করেন। যথাঃ ১. গোপন দাওয়াত পর্যায় (০-৩ বছর), ২. প্রকাশ্য দাওয়াত পর্যায় (৩-১০ বছর) এবং ৩. নুসরাহ (সামরিক সমর্থন) খোঁজা পর্যায় (১০-১৩ বছর)। হিযবুত তাহরীর এই ৩ টি পর্যায়-এ কাজ করে। বর্তমানে এরা পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নুসরাহ (Militaryসামরিক Supportসহায়তা) খুজছে। তারা বিশ্বাস করে, পৃথিবীর কোনও-না-কোনও মুসলিম দেশের সেনা-বাহিনী তাদের নিরশর্ত সমর্থন দিয়ে ক্ষমতায় বসাবে। তাদের নুসরাহ সংগ্রহের তালিকায় বাংলাদেশ সেনা-বাহিনী-ও রয়েছে, যেটা প্রমাণিত হয় ২০১২ সালের জানুয়ারি মাসের সেনা অভুত্থান প্রচেষ্টার মধ্য দিয়ে।
 
== বিভিন্ন দেশে হিযবুত তাহরীর ==
[[বাংলাদেশ|বাংলাদেশসহ]] বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে হিযবুত তাহরীরেরতাহরীরকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। <ref name=bd /> বেশ কিছু আরব দেশে এটি নিষিদ্ধ। এছাড়া রাশিয়া ও তুরস্কেও এটিকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। [[মিশর|মিশরে]] ১৯৭৪ সালে সরকার উৎখাতের চেষ্টার দায়ে এ দলটিকে নিষিদ্ধ করা হয়।<ref name=EGYPTCOUP />
 
== সন্ত্রাস বিষয়ে হিযবুত তাহরীরের অবস্থান ==
২০০৭ এর ১২ই সেপ্টেম্বর তারিখে নিউ ইয়র্ক টাইমসে উল্লেখ করা হয়েছে, হিযবুত তাহরীর স্পষ্টভাবে সন্ত্রাসবাদের নিন্দা করে থাকে। <ref>[http://www.nytimes.com/2007/09/12/world/europe/12britain.html New York Times]</ref> কিন্তু বিবিসি ও দ্য গার্ডিয়ানে ডেনমার্কের হিযবুত তাহরীরের সদস্য ফাদি আবদেল লতিফের কর্মকান্ডের উদাহরণ দিয়ে বলা হয়েছে, হিযবুত তাহরীরতাহরীরের সদস্যরা ফিলিস্তিনিদের আত্মঘাতী বোমা হামলাকে ন্যায্য কাজ বলে মনে করে। <ref name=BBCmartyrdom>[http://news.bbc.co.uk/2/hi/programmes/newsnight/3182271.stm "Hizb ut-Tahrir"], BBC News, August 27, 2003.</ref><ref>[http://politics.guardian.co.uk/terrorism/story/0,,1978581,00.html PM shelves Islamic group ban]</ref>
 
ডেইলি টেলিগ্রাফে টম হার্পার হিযবুত তাহরীরকেতাহরীরের লিফলেটের উদাহরণ দিয়েছেন, এসব লিফলেটে বলা হয়েছে, <blockquote>"Your forefathers destroyed the first crusader campaigns. Should you not proceed like them and destroy the new crusaders? ... "Let the armies move to help the Muslims in Iraq, for they seek your help."<ref name=THarper/></blockquote>
 
বিবিসি টিভির প্যানোরামা টিভি সিরিজে দেখানো হয়েছে, আগস্ট ২০০৬ এ হিযবুত তাহরীরের আন্তর্জাতিক নেতা শায়েখ আতা আবু রাশতা কাষ্মীরের হিন্দু ধর্মাবলম্বী, চেচনিয়ার রুশ, এবং ইসরাইলের ইহুদিদের হত্যা ও ধ্বংস করার জন্য হিযবুত তাহরীর সদস্যদের আহবান জানাচ্ছেন। <ref name=THarper/>